• মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮  |   ১৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পাকিস্তানকে ২০২ রানের টার্গেট দিল বাংলাদেশ

  ক্রীড়া প্রতিবেদক

২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৩:৪৫
পাকিস্তানকে ২০২ রানের টার্গেট দিল বাংলাদেশ
পাকিস্তান ও বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা (ছবি : ইএসপিএন)

চট্টগ্রামের প্রথম টেস্টে পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় ইনিংসে ১৫৭ রানে গুটিয়ে গেছে টাইগাররা। এতে সফরকারীদের ২০০ রানের টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ।

এর আগে প্রথম ইনিংসে পেয়েছিলেন সেঞ্চুরি। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসেও ফিফটির দেখা পান টাইগার ব্যাটসম্যান লিটন দাস। যদিও এর পরপরই বিদায় নিতে হয় তাকে। নুরুল হাসান সোহানকে নিয়ে জুটিটাও মনে হচ্ছিল জমেই গেছে ক্রিজে। তবে সে ধারণা ভাঙল একটু পরই। লং অনে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন রাব্বির কনকাশনে মাঠে নামা সোহান।

ইয়াসির আলি রাব্বি মাথায় আঘাত পাওয়ার পর মাঠে নেমে লিটন দাসের সঙ্গে ভালো একটা জুটি গড়ার চেষ্টা করেন মেহেদী হাসান মিরাজ। যদিও ৪৪ বল মোকাবিলা করে মাত্র ১১ রানে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন তিনি।

মিরাজের পর ইয়াসির আলি রাব্বির কনকাশন সাব হওয়া তথা পরিবর্তিত ব্যাটার হিসেবে মাঠে নামেন নুরুল হাসান সোহান। যদিও শেষ রক্ষা হয়নি তারও। ৩৩ বল খেলে ১৫ করে মাঠ ছাড়তে হয় সোহানকে। এর কিছুক্ষণ পর আফ্রিদির বলে এলবিডব্লিউ হয়ে বিদায় নেন লিটন। এরপর রাহি ও তাইজুল আউট হন শূন্য রানে। আর এতেই মাত্র ১৫৭ রানে অলআউট হয় টাইগাররা।

এর আগে দিনের শুরুর তৃতীয় বলেই পাকিস্তানি পেসার হাসান আলির হাতে বোল্ড হয়ে গেলেন উইকেটে থাকা মুশফিকুর রহিম। দুটি লুজ বল দেয়ার পর তৃতীয় বলটি পারফেক্ট কর্কার ছিল হাসান আলির। মুশফিক ভেবেছিলেন অফ স্ট্যাম্প মিস করে যাবে বলটি। এ কারণে তিনি ব্যাট দিয়ে বল না ঠেকিয়ে ছেড়ে দেন; কিন্তু না, অফস্ট্যাম্পকে উড়িয়ে নিয়েই চলে গেলো বল।

স্রেফ বোকামি ছাড়া আর কিছুই নয়। অফ স্ট্যাম্পের ওপর থাকা বলটাকেই সঠিকভাবে বিচার করতে পারলেন না মুশফিক। দিনের প্রথম বলে একটি বাউন্ডারি মেরে যেন আত্মবিশ্বাসটা আকাশে উড়তে চাইছিল তার। সেটাই শেষ পর্যন্ত কাল হয়ে দাঁড়াল। হাসান আলির ট্রিকসটাই বুঝতে পারলেন না তিনি। ৩৩ বল মোকাবেলায় ১৬ রান করে আউট হলেন তিনি।

মুশফিক আউট হওয়ার পর মাঠে নামেন লিটন দাস। জুটি বাধেন ইয়াসির আলি রাব্বির সঙ্গে। ৪৭ রানের জুটি গড়েন দু’জন মিলে। এ সময়ই ঘটে দুর্ঘটনা। হেলমেটে বলের আঘাত লাগে রাব্বির। যার প্রভাব পড়েছে তার মাথায়ও।

ম্যাচের ৩০তম ওভারের পঞ্চম বলটিই মাথায় লাগে রাব্বির। বলটি শট লেন্থে করেছিলেন পাকিস্তানি পেসার শাহিন শাহ আফ্রিদি। প্রচণ্ড গতির বলটিকে ডাক করে মাথার ওপর দিয়ে চলে যেতে দিয়েছিলেন ইয়াসির আলী রাব্বি। কিন্তু বল এতটা উপরে উঠলো না। ফলে সেটি গিয়ে আঘাত হানে রাব্বির হেলমেটে, বাম চোখের কোনের কাছে।

সঙ্গে সঙ্গে দলীয় চিকিৎসক এসে রাব্বিকে শুশ্রুষা দেয়ার চেষ্টা করেন। এরপর শাহিনের ওভারের শেষ বলটিও মোকাবেলা করেন রাব্বি। পরের ওভারটি করতে আসেন পাকিস্তান স্পিনার নৌমান আলি।

আরও পড়ুন : মাথায় বল লেগে মাঠের বাইরে ইয়াসির রাব্বি

তার পুরো ওভারটাও খেলেন ইয়াসির আলি। কিন্তু মাথার যন্ত্রণায় আর টিকতে না পেরে শেষ পর্যন্ত মাঠের বাইরেই চলে যেতে বাধ্য হন তিনি। রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে গেলেন তিনি ৩৬ রানে। যদিও শেষের দিকে মাঠে নামার সুযোগ ছিল তার। কিন্তু তার ব্যাপারে আর ঝুঁকি নিতে রাজি নয় টিম ম্যানেজমেন্ট। যে কারণে কনকাশন সাব হিসেবে নেওয়া হয় সোহানকে।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড