• মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

বার্নার্ডকে বাড়ি ফিরতে দিল না 'অ্যানাবেলা'!

  বিনোদন ডেস্ক

০৯ জুলাই ২০১৯, ১৭:৫৯
অ্যানাবেলা
(ছবি: সংগৃহীত)

ভূতের ছবির প্রতি সবার একধরনের বাড়তি আকর্ষণ কাজ করে। আর সেটা যদি হয় অ্যানাবেলা সিরিজের কোনো ছবি, তাহলে তো কথাই নেই। ঠিক সেই আগ্রহ থেকেই ৭৭ বছর বয়সী ব্রিটিশ নাগরিক বার্নার্ড শ্যানিং সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত অ্যানাবেল সিরিজের তৃতীয় মুভি ‘অ্যানাবেল কামস হোম’ দেখতে গিয়েছিলেন। তিনি থাইল্যান্ডে ছুটি কাটাতে গিয়ে সেখানকার এক থিয়েটারে এই ছবি দেখতে যান। তবে সেই ছবি আর পুরোপুরি দেখে শেষ করতে পারেননি এই ভদ্রলোক। সিনেমা শেষ হওয়ার আগেই মৃত্যুমুখে পতিত হন তিনি।

জানা গেছে, গ্রীষ্মের ছুটি কাটাতে বার্নার্ড ব্রিটেন থেকে থাইল্যান্ড গিয়েছিলেন৷ আর এর মাঝেই অ্যানাবেল সিরিজের রোমহর্ষক ছবি –‘অ্যানাবেল কামস হোম’ মুক্তির খবর তার কানে আসে। ভাবলেন, ছুটির মাঝেই ছবিটা দেখে নেওয়া যাক৷ আর সেই ভাবনা থেকেই এক সন্ধ্যায় টিকিট কেটে থাইল্যান্ডের এক থিয়েটারে ঢুকে পড়লেন৷ নির্ধারিত সময়েই সিনেমা শুরু হলো। আর কিছুক্ষণ ধরে ছবিও দেখলেন তিনি। তবে পর্দায় নানা ভৌতিক ঘটনায় পরিবেশটা গা-ছমছম হলে শেষ পর্যন্ত স্নায়ু নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেননি বার্নার্ড। সিনেমা চলাকালীন হৃদযন্ত্রে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তার।

যথারীতি সিনেমা শেষ হলে থিয়েটারের আলো জ্বলে ওঠে। আর তখনই সকলের চোখ আটকে যায় বার্নার্ডকে দেখে। স্থানীয় এক মহিলা মন্থিরা ফেনগ্রাত বার্নার্ডের নিথর দেহ দেখে শিউরে ওঠেন। তিনিই সকলকে ডেকে আনেন। 

তার ভাষ্যমতে, ‘সিনেমা হলের সামনে কয়েকজনকে ডেকে ঘটনা বলি। সবাই মিলে ভিতরে যাই। ওই বয়স্ক ভদ্রলোককে উদ্ধার করে কাছের হাসপাতালে ভর্তি করাই।

তবে চিকিৎসকরা জানান, উনি সিনেমা দেখতে দেখতেই মারা গেছেন। আর সিনেমা হলের কর্মীরাও হতাশ  হয়ে পড়েছেন। আর কেউ যাতে ছবি তুলে আরও বিভ্রান্তি ছড়াতে না পারে, সে ব্যাপারেও তারা সচেষ্ট ছিলেন।’

থাই পুলিশের অন্যতম শীর্ষকর্তা পোলপাথাম থাম্মাচাট এ ব্যাপারে জানিয়েছেন, ‘সন্ধ্যা ৮টা নাগাদ বার্নার্ডের মৃত্যু হয়েছে। প্রাথমিকভাবে আমরা বুঝতে পারছি যে, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে। তবে ময়না তদন্তের রিপোর্টে বিস্তারিত সব প্রকাশিত হবে। আর আমরা ঘটনাটি খতিয়ে দেখছি। কাউকেই সন্দেহের ঊর্ধ্বে রাখা হচ্ছে না।’

প্রসঙ্গত, বাড়িতে থাকা অদ্ভুত দেখতে এক পুতুল ‘অ্যানাবেল’কে ঘিরেই এই সিরিজের ছবিগুলো নির্মিত হয়েছে। ‘কনজিউরিং’, ‘অ্যানেবেল’ ছবি দুটি হয়তো অনেকেই দেখেছেন। আর সারা বিশ্বেও এই অ্যানাবেল আতঙ্ক কমবেশি ছড়িয়েছিল।

অভিশপ্ত ‘অ্যানাবেলা ডল’ বাড়িতে রাখার ফলে বিভিন্ন পৈশাচিক ও অতি প্রাকৃত ঘটনা ঘটছিল। ২০১৪ সালে এই নিয়েই তৈরি হয়েছিল ‘অ্যানাবেল’ ছবিটি।

পরে ২০১৭ সালে অ্যানাবেলের পর ‘অ্যানাবেল ক্রিয়েশন’ ছবিটি মুক্তি পায়। আর চলতি বছরের ২৮ জুন মুক্তি পায় এই সিরিজের তৃতীয় ছবি ‘অ্যানাবেল কামস হোম’। 

ছবির ট্রেলারে দেখা যায়, অভিনেতা প্যাট্রিক উইলসন ও ভেরা ফারমিগা যারা কি না এড ও লরেন ওয়ারেন নামের এক অতিপ্রাকৃত-রহস্য উদঘাটনকারী দম্পতির চরিত্রে অভিনয় করছেন। তারা অ্যানাবেল নামের ওই পুতুলটি একটা চেয়ারে বসিয়ে বাড়ির সংরক্ষণশালার মধ্যে কাঁচের বক্সে বন্ধ করে দেন। তবে কোনো একদিন এড ও লরেন কোনো কাজে বাড়ির বাইরে গেলে অ্যানাবেল ওই দম্পতিও মেয়ের ওপর হামলা শুরু করে।

‘অ্যানাবেল কামস হোম’ ছবিটির পরিচালনা করছেন গ্রে ডুবারম্যান। তিনি ‘দ্যা নান’ সহ কনজিউরিং ইউনিভার্সের বেশকিছু ভৌতিক ছবির গল্পের লেখক।

ওডি/টিএফ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড