• সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

নিজ দেশে ফিরে যেতে রোহিঙ্গাদের দুই শর্ত||এ পি জে আব্দুল কালামের স্মৃতিতে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী  ||উদ্বেগ থাকলেও ভারতের ওপর বিশ্বাস রাখতে চাই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ||ছাত্রলীগের চাঁদাবাজি ঢাকতেই ছাত্রদলের কাউন্সিল বন্ধ : রিজভী ||কাশ্মীরে জঙ্গি অনুপ্রবেশের অভিযোগে সীমান্তে‌ হাই অ্যালার্ট||ভারতের পর এবার বিশ্বকে পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি পাকিস্তানের||সোমবার আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব নেবেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক||মেক্সিকোয় কুয়া থেকে ৪৪ মরদেহ উদ্ধার করল বিজ্ঞানীরা||অন্যায় করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না : কাদের    ||সৌদির তেল স্থাপনাতে হামলায় ইরানকে দায়ী করল যুক্তরাষ্ট্র

ফরাসি লিগ ওয়ান

মেসিকে টপকানোর ম্যাচে হতাশ হলেন এমবাপে

  ক্রীড়া ডেস্ক

২৫ মে ২০১৯, ১১:৩৯
কিলিয়ান এমবাপে
কিলিয়ান এমবাপে (ছবি : স্কাই স্পোর্টস)

ফ্রান্স তারকা কিলিয়ান এমবাপের সুযোগ ছিল লিওনেল মেসিকে হটিয়ে ইউরোপের গোল্ডেন শু নিজের করে নেওয়ার। কিন্তু সেই স্বপ্ন পূরণ হলো না তার! ফরাসি লিগ ওয়ানে নিজেদের শেষ ম্যাচে স্তাদ দে রাঁসের বিপক্ষে ৩-১ ব্যবধানে হারে প্যারিস সেন্ত জার্মেই (পিএসজি)। এই হারের ফলেই ইউরোপের সেরা হওয়া হলো না তার! 

গোল্ডেন শু’র দৌড়ে মেসির পিছনেই ছিলেন এমবাপে। চলতি মৌসুমে বার্সেলোনা সুপারস্টার লা লিগায় করেছেন ৩৬ গোল, উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ১২ গোল এবং কোপা দেল রে’তে করেছেন দুটি গোল। সব মিলিয়ে এই মৌসুমে ৫০ গোল করেছেন কিং মেসি! অন্যদিকে, এমবাপে ফরাসি লিগ ওয়ানে গোল করেছেন ৩২টি। চ্যাম্পিয়ন লিগে ৪টি আর কোপা ডে ফ্রান্স কাপে করেছেন দুটি গোল; মোট করেছেন ৩৮ গোল। যেখানে মেসির চেয়ে ১২ গোল কম তার! আর ঘরোয়া লিগে পিছিয়ে ছিলেন ৪ গোলে। মূলত ঘরোয়া লিগে গোলের ব্যবধানে এই পুরস্কার দেওয়া হয়ে থাকে। 

লা লিগায় ৩৬ গোল করা মেসির হাতে আর একটি ম্যাচও ছিল না, অন্যদিকে এমবাপের হাতে ছিল একটি ম্যাচ তথা শেষ ম্যাচ। এই ম্যাচে ৫ গোল করতে পারলে মেসিকে টপকে যাবেন তিনি মানে এমবাপের গোল হবে ৩৭টি! কিন্তু এক ম্যাচে এত গোল করা চাট্টিখানি কথা নয়। তাই হলো- শেষ ম্যাচে শুক্রবার (২৫ মে) দিবাগত রাতে স্তাদ দে রাঁসের বিপক্ষে ফরাসি চ্যাম্পিয়নদের লড়াইয়ের ম্যাচটিতে একবারের বেশি জালে বল পাঠাতে পারেননি এমবাপে! এতেই স্বপ্ন ভঙ্গ হয় তার; হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে বিশ্বকাপজয়ী এই ফরাসি তারকাকে। 

তবে এই পরাজয় সত্ত্বেও এক নতুন ইতিহাস গড়েছে পিএসজি। ফ্রান্সের শীর্ষ লিগে প্রথম দল হিসেবে এক মৌসুমের সবগুলো (৩৮) ম্যাচেই গোলের অনন্য কীর্তি গড়েছে থমাস টুখেলের দল। 

১৯৬৭-৬৮ মৌসুম থেকে ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শু’র প্রচলন শুরু হয়। প্রতি মৌসুমে ইউরোপের শীর্ষ লিগগুলোর শীর্ষ গোলদাতাকে দেওয়া হয় এই পুরস্কার। এর আগে পাঁচবার এই পুরস্কার জেতার স্বাদ পেয়েছেন মেসি, যা এই পুরস্কার পাওয়ার ক্ষেত্রে রেকর্ড। ২০০৯-১০, ২০১১-১২, ২০১২-১৩ ও ২০১৭-১৮ মৌসুমে পুরস্কারটি জিতেছিলেন মেসি। এবারও এই পুরস্কার জিতে ষষ্ঠবারের মতো ইউরোপসেরা হলেন তিনি।

অবশ্য মেসির পর এই পুরস্কার জেতার রেকর্ডে দ্বিতীয় স্থানে আছেন জুভেন্তাস তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। মোট চারবার এই পুরস্কার ঘরে তুলেছেন এই পর্তুগিজ উইঙ্গার। এছাড়া আরও নয় খেলোয়াড় দুবার করে এই পুরস্কার জিতেছেন।

ওডি/এএপি 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড