• মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

করোনা পরিস্থিতিতে ফুটবল নিয়ে ফিফা প্রেসিডেন্টের ভাবনা

  ক্রীড়া ডেস্ক

২৫ মার্চ ২০২০, ১০:৫৮
ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো
ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো (ছবি : সংগৃহীত)

ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো বিশ্বাস করেন করোনা ভাইরাসের কারণে স্থবির হয়ে যাওয়া পুরো ফুটবল বিশ্বকে নতুন করে সব পরিকল্পনা ঠিক করতে হবে। আগামী মে মাসের আগে কোনো ধরনের ফুটবল মাঠে গড়ানোর আশা দেখছেন না ফিফা সভাপতি।

ইনফান্তিনো বলেছেন, ‘কোনো ধরনের আতঙ্কিত না হয়ে সবাইকে একসঙ্গে এর মোকাবিলা করতে হবে। প্রতিটি খেলোয়াড়ের স্বাস্থ্যের নিশ্চয়তা পেলেই কেবল আমরা খেলা শুরু করব। স্বাস্থ্যই প্রথম, এরপর সবকিছু।’

করোনা মহামারি পুরো ফুটবল বিশ্বকেই একটা টালমাটাল পরিস্থিতির মধ্যে ফেলে দিয়েছে। ইতোমধ্যেই এই মহামারিতে ইউরো ২০২০ ও কোপা আমেরিকা এক বছরের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। ২০২১ সালের এই টুর্নামেন্ট নিয়েও রয়েছে অনিশ্চয়তা। 

৫০ বছর বয়সী সুইস এই ফুটবল ব্যক্তিত্ব বলেন, ‘বিশ্ব অর্থনীতিতে এই ভাইরাস কতটা প্রভাব ফেলেছে সেটাও আমাদের পর্যবেক্ষণ করতে হবে। আমরা জানি না কবে নাগাদ সবকিছু স্বাভাবিক হবে। কিন্তু অবশ্যই সুযোগের দিকে তাকিয়ে থাকতে হবে। একধাপ পিছিয়ে গেলেও পুরো বিশ্ব ফুটবলকেই আমাদের নতুনভাবে গড়ে তুলতে হবে, হতে পারে সেটা ভিন্ন ফরম্যাটে। কিছু টুর্নামেন্টে হয়তো দলসংখ্যা কমে আসতে পারে। বাস্তবতা আমাদের মেনে নিতেই হবে।’

ইনফান্তিনোর চিন্তায় এখন খেলোয়াড়দের রেজিস্ট্রেশন ও ট্রান্সফার। ৩০ জুন বর্তমান ডেডলাইন শেষ হয়ে নতুন তারিখ শুরু হচ্ছে। কিন্তু এখানে বিকল্প কোনো পন্থাও নেই। সে কারণেই সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে বিষয়গুলো মোকাবিলার আহ্বান জানিয়েছেন ফিফা প্রধান।

উল্লেখ্য, বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মহামারি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) বুধবার (২৫ মার্চ) সকাল পর্যন্ত এক দিনে ২ হাজার ৩৬৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এতে মোট মৃতের সংখ্যা ১৮ হাজার ৮৯২ জনে পৌঁছেছে। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ লাখ ৮ হাজার ৮৭৯ জন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা জানিয়েছে, উৎপত্তিস্থল চীন ছাড়াও বিশ্বের মোট ১৯৭টি দেশে মরণঘাতী ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে। তাছাড়া ঝুঁকিতে আছে আরও অনেক দেশ। এতে বিশ্বজুড়ে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪ লাখ ২২ হাজার ছাড়িয়েছে। যাদের মধ্যে ইতালি, ইরান ও দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিকদের সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি। এমন অবস্থায় বিশ্বজুড়ে সতর্কতা জারি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

ওডি/এএপি 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড