• শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ১৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইডেনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য হীরার স্মারক

  ক্রীড়া ডেস্ক

২০ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৫৭
শেখ হাসিনা
ইডেন গার্ডেন্সে শেখ হাসিনার জন্য নানা আয়োজন (ছবি : সংগৃহীত)

শুক্রবার থেকে কলকাতায় শুরু হচ্ছে ঐতিহাসিক দিবারাত্রির টেস্ট। গোলাপি বলের এ টেস্টকে স্মরণীয় করে রাখতে গোলাপি সাজে সেজেছে কলকাতা। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও স্বাগত জানাতে প্রস্তুত শহরটি। রাতের ইডেন গার্ডেন্স শুধুই মাঠ নয় যেন গোলাপি রাজ্য! পুরো ইডেন সেজে উঠেছে গোলাপি রঙে।

প্রস্তুতি পূর্ণ করতে শেষ মুহূর্তে আয়োজকদের ব্যস্ততা বেড়েছে। অন্য সবার চেয়ে বেশি ব্যস্ত ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের সম্পাদক অভিষেক ডালমিয়া। দিবারাত্রি টেস্ট নিয়ে বাংলাদেশ-ভারত দুই দেশের দর্শকদেরই সীমাহীন আগ্রহ। এরই মধ্যে শেষ হয়েছে টেস্টের প্রথম চার দিনের টিকিট। বাংলাদেশ থেকেও আসছেন অনেক দর্শক। আলোচিত দিবারাত্রির টেস্টকে স্মরণীয় করে রাখতে নানা রকমের আয়োজন করছে সিএবি।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশের শীর্ষ এক গণমাধ্যমকে অভিষেক ডালমিয়া বলেন, ‘এটা আমাদের জন্য ঐতিহাসিক এক উপলক্ষ। ঐতিহাসিক টেস্টকে স্মরণীয় করে রাখতে যা যা সম্ভব সবই করেছি, করছি। টেস্ট শুরু হওয়ার আগে-পরে, লাঞ্চ কিংবা চা বিরতিতে নানা কর্মসূচি রাখা হয়েছে। একটার পর একটা হতে থাকবে। যেহেতু গোলাপি বলে খেলা হবে, পুরো শহর, পুরো ইডেন গার্ডেন্সে গোলাপি আবহ ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। চারদিক এখন আলোকিত হচ্ছে গোলাপি আলোয়। সংস্কৃতিই হচ্ছে বাংলার মূল। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান থাকছে। অতিথি আপ্যায়নে কোনো কমতি রাখা হচ্ছে না।’

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর জন্য ভীষণ মূল্যবান এক স্মারক তৈরি করেছেন আয়োজকেরা। সিএবির যুগ্ম সম্পাদক দেবব্রত দাস বলেন, ‘এটা তো কেবল একটা খেলাই নয়, দুই বাংলার গোলাপি বন্ধন! স্মারক উপহার হিসেবে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে শাল উপহার দেওয়া হবে। এই টেস্ট উপলক্ষে তৈরি সোনার মুদ্রা দেওয়া হবে। রুপোর বলের ওপর আমেরিকান হীরা দিয়ে তৈরি গোলাপি বলের আকারে একটা বিশেষ স্মারক দেওয়া হবে। রূপার লোগোর ওপরে জারকন পাথরে তৈরি স্মারকটি হবে খুবই আকর্ষণীয়।’

যেকোনো আতিথেয়তায় ভোজন পর্বটা ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। দেবব্রত দাস বলেন, ‘মাংস তো থাকছেই। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী যেসব খাবার পছন্দ করেন সবই প্রায় থাকছে। বাংলা খাবারের মধ্যে কালাই ডাল, চাপাটি, রাবড়ি, লাল চালের পায়েশ ইত্যাদি রাখা হয়েছে। বাংলাদেশের তরফ থেকেও কিছু খাবারের তালিকা এসেছে। যেমন—মিষ্টি, মাছের কিছু পদ। মাছের মধ্যে ইলিশ রাখা সম্ভব হচ্ছে না। রাখা উচিতও না। যে ইলিশটা ওপারের বাংলায় মেলে, এপারে সেটা পাওয়া যায় না। এখানকার ইলিশ অতটা ভালোও হবে না। বাকি যেসব মাছ যেমন—ভেটকি মাছে পাতুড়ি, সবজির মধ্যে ফুলকপির রোস্ট, অন্যান্য তরকারিসহ প্রধানমন্ত্রীর মনের মতো খাবারের প্রায় সব ব্যবস্থাই আমরা করছি। বাংলার কৃষ্টি-সংস্কৃতি প্রাধান্য দিয়েই সব খাবারের আয়োজন করা হচ্ছে।’

ইডেনে দিবারাত্রির টেস্ট আকর্ষণীয় করে তুলতে আয়োজকদের চেষ্টার কমতি নেই। কিন্তু সব উদ্যোগ তখনই পূর্ণতা পাবে, যখন মাঠের খেলাটা হবে জমজমাট। আয়োজকেরা আশাবাদী, দুই দলই উপহার দেবে রোমাঞ্চকর এক ম্যাচ। গোলাপি বলের টেস্ট উপলক্ষে সিএবি যেসব আয়োজন রেখেছে তা হলো —ঢাউস গোলাপি রাঙা হিলিয়াম বেলুন ওড়ানো হয়েছে ইডেনে, টেস্ট উপলক্ষে থাকছে বিশেষ দুটি মাসকট ‘পিংকু-টিংকু’। টেস্ট শুরুর আগে নামবে আট প্যারা ট্রুপার। ভারতীয় বিমানবাহিনী এটা তত্ত্বাবধান করবে। আটজন আটটি গোলাপি বল নিয়ে নামবে। তারা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে হস্তান্তর করবে গোলাপি বল। 

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী দুই দলের অধিনায়ককে গোলাপি বল হস্তান্তর করবেন। টস করতে সোনার তৈরি বিশেষ কয়েন ম্যাচ রেফারিকে হস্তান্তর করবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। দুই দেশের জাতীয় সংগীত বাজাবে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। জাতীয় সংগীতের পর বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বাজাবেন ইডেনের ঘণ্টা। এই টেস্টে উপস্থিত থাকতে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে ভারতের সাবেক সব অধিনায়ককে। তারা ল্যাপ অব অনার দেবেন, প্রদক্ষিণ করবেন পুরো মাঠ। এটা হবে চা বিরতিতে। অন্য খেলার ভারতীয় কিংবদন্তি যেমন—বক্সিংয়ে মেরি কম, টেনিসের সানিয়া মির্জা, শুটিংয়ে অভিনব বিন্দ্রাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে ২০০০ সালের নভেম্বরে অভিষেক টেস্ট খেলা বাংলাদেশ দলের সব খেলোয়াড়কে। মাঠে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন ২০০ নৃত্যশিল্পী।

ওডি/এনএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড