• সোমবার, ১৩ জুলাই ২০২০, ২৯ আষাঢ় ১৪২৭  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শেষবেলায় মেলা মাতিয়েছে তাজবীর সজীবের দুই বই

  নিজস্ব প্রতিবেদক

০২ মার্চ ২০২০, ১৮:১৩
তাজবীর সজীব
পাঠকদের অটোগ্রাফ দিচ্ছেন লেখক তাজবীর সজীব (ছবি : দৈনিক অধিকার)

অমর একুশে গ্রন্থমেলার শেষ দুই দিন বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ছিল পাঠকের স্রোত। শুক্র ও শনিবার সরকারি ছুটির দিন হওয়ায় পাঠকদের নজর ছিল পছন্দের বইয়ের দিকেই। কাঙ্ক্ষিত বই কিনতে মেলার বিভিন্ন স্টল ও প্যাভিলিয়নে ভিড় জমিয়েছিলেন তারা।

শেষবেলায় জনসমুদ্রের মেলায় আগত পাঠকদের অনেককেই ভিড় জমাতে দেখা গেছে ঘাসফুলের স্টলে। একটু এগিয়েই দেখা গেল উৎসুক পাঠকরা একজন তরুণ লেখককে ঘিরে আছেন। আর লেখক বিরতিহীনভাবে তাদের অটোগ্রাফ দিয়ে যাচ্ছিলেন।

অটোগ্রাফ নিতে দেখা গেল, এ সময়ের জনপ্রিয় লেখক ‘মেঘডুবি’ খ্যাত কিঙ্কর আহ্সানকেও। হ্যাঁ, তরুণ লেখক তাজবীর সজীবের দুটি বই এসেছে এবারের বইমেলায়। একটি সম্পাদিত তাত্ত্বিক গ্রন্থ ‘গণমাধ্যমের গন্তব্য’ অপরটি গল্পগ্রন্থ ‘অধিকার’। পেশাগত জীবনে এই লেখক দেশের জনপ্রিয় পত্রিকা দৈনিক অধিকার ও অধিকার ডট নিউজের সম্পাদক এবং প্রধান নির্বাহী।

গ্রন্থমেলায় ডিএমপির ডিসি মামুন মোয়াজ্জেম হোসেনের হাতে ‘অধিকার’ বইটি তুলে দেন লেখক (ছবি : দৈনিক অধিকার)

বইমেলায় যখনই বেজেছে বিরহের পিয়ানোর করুণ সুর; তখন এই লেখকের বেলায় ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন। ঘাসফুলের স্টলে এসেছিলেন তরুণ সম্পাদক ও লেখক তাজবীর সজীব। পেশাগত কাজ সামলে মেলায় অতটা সময় দিতে পারেন না তিনি। তারপরও পাঠকদের ভালোবাসায় সব কিছু সামলে সময় তৈরি করে ছুটে গেছেন বইমেলায়। তার সঙ্গে যোগ দেন এবারের বইমেলার ‘মেঘডুবি’ বইয়ের সেলিব্রেটি লেখক কিঙ্কর আহ্সান। এলেন অণুগল্পের আরেক জনপ্রিয় লেখক জান্নাত কেকা। এত সব লেখকের সম্মিলন ঘাসফুলের স্টল যেন পরিণত হয়েছিল লেখক মিলনমেলায়। জান্নাত কেকাও অটোগ্রাফসহ সংগ্রহ করলেন লেখকের দুটি বই ‘গণমাধ্যমের গন্তব্য’ ও ‘অধিকার’।

ঘাসফুলের স্টলে খোঁজ নিয়ে জানা গেল অমর একুশে গ্রন্থমেলার ২০তম দিনে এসেছে লেখকের সম্পাদিত দেশের গণমাধ্যমের নানা বিষয় নিয়ে ভিন্ন ধাঁচের বই ‘গণমাধ্যমের গন্তব্য’ ও গল্পগ্রন্থ ‘অধিকার’। প্রকাশের প্রথম দিন থেকেই বই দুটি ঘাসফুলের পাঠক চাহিদার শীর্ষে ছিল বলে জানান প্রকাশক মাহ্দী আনাম।

লেখক তাজবীর সজীবের অটোগ্রাফ নিচ্ছেন আরেক জনপ্রিয় লেখক কিঙ্কর আহ্সান (ছবি : দৈনিক অধিকার)

গণমাধ্যম নিয়ে ভিন্ন ধাঁচের এই বই গণমাধ্যমকর্মীদের কাজে লাগার আশা প্রকাশ করে বইটির প্রকাশক মাহ্দী আনাম বলেন, যারা সাংবাদিকতায় আসতে চান কিংবা আসার কথা ভাবছেন; তাদের জন্য বইটি দারুণ সহায়ক হবে।

গণমাধ্যমের বিভিন্ন সমস্যা বাতলে দেওয়া এই বই গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের পাঠ্য তালিকায় যুক্ত হলেও অবাক হবেন না বলে মন্তব্য করেন তিনি।

‘অধিকার’ নিয়ে এই প্রকাশক বলেন, লেখক তাজবীর সজীবের দুটি বই আসতে বেশ বিলম্ব হয়েছে। বইটি মেলার শুরুর দিকে আনা গেলে কয়েকটি সংস্করণ করা লাগত। তারপরও বইটি ঘাসফুলের বেস্ট সেলারের তালিকায় আছে।

‘দুইটা বই-ই ভালো বিক্রি হয়েছে। তবে আমার মনে হয়েছে বই দুটো শুধু বইমেলা কেন্দ্রিকই নয়; সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বিশেষ করে গণমাধ্যমের গন্তব্য বইটি আমাদের সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিরা সংগ্রহ করবেন’, যোগ করেন এই প্রকাশক।

মেলা থেকে ‘গণমাধ্যমের গন্তব্য’ বইটি কিনেছেন ব্যারিস্টার তানিয়া আরমান। দেশের প্রখ্যাত এই আইনজীবী বলেন, গণমাধ্যম মানে গণমানুষের কথা। এখানে আমার-আপনার সবার কথা থাকবে। তাই দেশের গণমাধ্যমের বর্তমান পরিস্থিতি জানার জন্য বইটি পড়া দরকার; গণমাধ্যম সম্পর্কে জ্ঞান রাখা দরকার।

এই বই কেনা আরেক পাঠক আল-তামাশ সান বলেন, আমি একসময় সাংবাদিকতার সঙ্গে জড়িত ছিলাম। সেই আকর্ষণ থেকেই বইটি কিনেছি।

পাঠকদের অটোগ্রাফ দিচ্ছেন লেখক তাজবীর সজীব (ছবি : দৈনিক অধিকার)

‘গণমাধ্যমের গন্তব্য’ নিয়ে তাজবীর সজীব বলেন, গণমাধ্যমের বিভিন্ন প্রয়োজনীয় ও সময়োপযোগী তাত্ত্বিক বিষয়বস্তু উঠে এসেছে আমার সম্পাদিত গ্রন্থটিতে। পাশাপাশি গণমাধ্যমের নেতৃস্থানীয় ও আন্তর্জাতিক ব্যাপ্তিতে সুখ্যাতি অর্জন করা ব্যক্তি, সম্পাদক, টেলিভিশন, পত্র-পত্রিকার জ্যেষ্ঠ এবং তরুণ সাংবাদিকদের বর্তমান গণমাধ্যম ও ভবিষ্যৎ গন্তব্য নিয়ে অভিমত রয়েছে এই বইয়ে। তাদের অভিমত বইটিকে সমৃদ্ধ করেছে। আমার জন্য এটা সৌভাগ্য ও ভালো লাগার ব্যাপার।

বইমেলায় অভূতপূর্ব সাড়া পাওয়ায় আপ্লুত এই লেখক বলেন, ভালো কিছু সৃষ্টি করতে পারলে মানুষ তা গ্রহণ করবেই। আমি আমার সেরাটা পাঠকদের উপহার দিতে পেরেছি। আর পাঠকরাও তা জেনে-বুঝেই সংগ্রহ করছেন এবং বই পড়ে আমাকে ফোন করে কিংবা ই-মেইল করে পাঠ প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন।

পাঠকদের অটোগ্রাফ দিচ্ছেন লেখক তাজবীর সজীব (ছবি : দৈনিক অধিকার)

তিনি আরও বলেন, দৈনিক অধিকারের ব্যবস্থাপনায় আমার সম্পাদনায় গণমাধ্যম নিয়ে বড় পরিসরের কলেবরের গ্রন্থ ‘গণমাধ্যমের গন্তব্য’। গণমাধ্যম নিয়ে যারা কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলেন তাদের বইটি পড়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

তার বইয়ের খবরও দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যম গুরুত্বসহকারে প্রকাশ করেছে। এ ব্যাপারে লেখক তাজবীর সজীব বলেন, আমার বইয়ের খবর প্রকাশ করেছে ৯১টি সংবাদমাধ্যম। এটি আমার মতো একজন তরুণ লেখকের জন্য বড় পাওয়া।

তাজবীর সজীবের বই দুটি প্রকাশ করেছে ঘাসফুল প্রকাশনী। গণমাধ্যমের গন্তব্যের প্রচ্ছদ এঁকেছেন নামকরা প্রচ্ছদশিল্পী কাজী যুবায়ের মাহমুদ এবং অধিকারের প্রচ্ছদ এঁকেছেন ইবনে শামস্। 

ওডি/এমআই/এমআর

নবীন- প্রবীন লেখীয়োদের প্রতি আহ্বান: সাহিত্য সুহৃদ মানুষের কাছে ছড়া, কবিতা, গল্প, ছোট গল্প, রম্য রচনা সহ সাহিত্য নির্ভর আপনার যেকোন লেখা পৌঁছে দিতে আমাদেরকে ই-মেইল করুন [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড