• রোববার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মঈনুল রনির তিনটি কবিতা 

  মঈনুল রনি

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১৪:৩৫
মঈনুল রনির তিনটি কবিতা 
মঈনুল রনির তিনটি কবিতা 

অতৃপ্ত কলুষিত আত্মা

আমি সেই অতৃপ্ত আত্মা যে বারে বারে ফিরে আসি,

যে কুড়ে খাই, আষ্টেপৃষ্ঠে করি গ্রাস, করি মানব সভ্যতার সর্বনাশ।

আমি সেই আত্মা, যে তোমাকে ভালো হতে দেই না, তৃপ্ত হতে দিবো না, শূন্যতা ঘুচি না।

আমি শান্তির সুবাস ছড়াই না, কষ্ট বাড়াই,

হতাশা ছড়াই, নিরাশা জাগাই।

আমি অস্থিরতা জেকে বসাই, ক্রন্দনের সীমা ছাড়াই।

আমি সেই আত্মা, যে অপরাধীকে প্রলুব্ধ করি, নিরপরাধী কে নিষ্ক্রিয় করি

করি পর্যদুস্ত, অব্যক্ত, অস্ফুট।

আমার খামতি নেই, নেই কমতি

নিস্তার নেই, নেই সুমতি।

আমি যুগে যুগে বিনাশ করি, সমাজ সংসার কলুষিত করি।

আমার চাওয়ার শেষ নেই, চাহিদার থামতি নেই, নেই শোকর!

নেই শৃঙ্খলা, করি বিশৃঙ্খলা।

বেলা, অবেলা, সারাবেলা!

আমি প্রাপ্তি মানি না, যাতনা কমাই না।

আমি বারে বারে আসি ফিরে, এই ধরাধামে,

দিতে হয় মূল্য জাতির, অতি চরা দামে।

আত্মার আস্ফালন

কত বার যে পালাতে চেয়েছি

কত শত বার, পালাতে গিয়ে হোচট খেয়েছি

পালানো আর হয়ে ওঠেনি!

কত বার ওই দুর আকাশে হারাতে চেয়েছি

ওই গোধূলি নীলিমায়, যত দূর দেখা যায়

মুহূর্তেই বৃষ্টি এসে আমাকে নামিয়ে দিয়ে যায়।

আমি উড়তে চেয়েও পারি না

উড়া আমার হলো না।

কত বার আর্তনাদে ফেটে পড়েছি

বিষাক্ত ছোবলে রক্তাক্ত হয়েছি

পারি নি,পারি নি প্রকাশ করতে,উপচে পড়তে

ফুঁসে উঠে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে দিতে পারি নি।

সব পাপ গিলেছি,সকল অনাচার, অবিচার সহ্য করেছি, ব্যভিচার মেনে নিয়েছি।

শুধু বলতে পারি নি,বলা হয়ে উঠে নি।

মাঝে মাঝে মনে হয়েছে দূরে যাই,সরে যাই,অবেলায়

রক্তাক্ত বিভীষিকা হাতড়ে বেরিয়েছি, কূল পাইনি,পথ পাইনি।

এ জীবন কি চেয়েছিলাম?

ঘর্মাক্ত, কর্দমাক্ত, কলঙ্কিত!

রক্তাক্ত, বিব্রত, অসমাপ্ত!

নিথর, অচল, নিষ্প্রাণ!

কত কি যে বলতে চেয়েছিলাম,বলা হলো না

কত কিছু হতে চেয়েছি, হলাম কই?

কত স্বপ্নে বুদ হয়েছি, পূরণ হলো কই?

এখন স্বপ্ন দেখা ছেড়ে দিয়েছি!

শুধু ভাবি আর ভাবি!

করি অপেক্ষা আর প্রতীক্ষা!

আসলে সব স্বপ্ন পূরণ হবার নয়

পূরণ হবার দরকার নেই

সব চাওয়া পাওয়া হয়ে গেলে জীবনের রহস্য যে ভূলুণ্ঠিত হয়!

থাকুক না কিছু অপ্রাপ্তি, শূন্যতা!

গ্লানি না থাকলে কি জীবন সুন্দর হয়?

সব চাওয়া পাওয়া হয়ে গেলে কি কবি হওয়া যায়?

সকল কবিতা কি প্রাপ্তির কথা বলে?

হতাশা, নিরাশা না থাকলে কি জীবন রংধনুর মত সুন্দর হতো!

কবি খোঁজেন পৃথিবীর মর্মার্থ, জীবনের রহস্য,করেন সুখের অন্বেষণ

চোখ করে আশা নিরাশা প্রাপ্তি অপ্রাপ্তি অবলোকন

অসহায় মানব সত্তা করে অনন্ত দিন গণন।

মহাকালের অপেক্ষায় চলে নির্ঘুম রাত্রি যাপন!

হউক তবু উদঘাটিত জীবনের নিগূঢ় রহস্য,

কবিদের লিখায়, সাহিত্যের ভাষায়

অস্ফুট ক্রন্দনে, আত্মার আস্ফালনে!

মঈনুল রনি

অসময়ের ভাবনা

মানুষ বাড়ছে, মানব সত্তা সাজছে

মনুষ্য আত্মা কাদঁছে

এতো চাওয়া, চাওয়ার আর্তনাদ!

এতো আহ্লাদ, এতো স্বাদ!

কেউ থেমে নেই, থামার সময় নেই

কেউ বসে নেই, বসার অর্থ নেই

নিরর্থক দিন গুনি, অসময়ে কবিতা শুনি

নিরাশায় স্বপ্ন বুনি, দুরাশার গান গুনি

কেটে যায়, সয়ে যায়,দিন আসে, রাত যায়

আশার আলো উকি দেয়,ধরা দেয়

চলে যাবার সময় হয়,তবুও পিছু ফিরে চায়, পিছু টানে তাকায়

ভালোবাসা ভাবায়, আবেগ কাঁদায়

বুকে ক্রন্দন ,শেষ বেলায়

পাওয়া না পাওয়ার শেষ ভেলায়

দেখা হবে এক অবেলায়

পড়ে রবে, নিঃশেষ হবে, নিয়তির নিষ্ঠুর খেলায়!

নবীন- প্রবীন লেখীয়োদের প্রতি আহ্বান: সাহিত্য সুহৃদ মানুষের কাছে ছড়া, কবিতা, গল্প, ছোট গল্প, রম্য রচনা সহ সাহিত্য নির্ভর আপনার যেকোন লেখা পৌঁছে দিতে আমাদেরকে ই-মেইল করুন [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড