• মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

দক্ষিণ চীন সাগরে ‘জল ঘোলা’ করছে যুক্তরাষ্ট্র

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:৩৫
দক্ষিণ চীন সাগরে ‘জল ঘোলা’ করছে যুক্তরাষ্ট্র
দক্ষিণ চীন সাগরে মোতায়েন মার্কিন যুদ্ধজাহাজ (ছবি : সিএনএন)

এশিয়ার পরাশক্তি চীনকে মোকাবিলায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাজ্যের ঐতিহাসিক নিরাপত্তা চুক্তির তীব্র সমালোচনা করেছে বেইজিং। রাষ্ট্র তিনটির বিশেষ এই নিরাপত্তা চুক্তিকে ‘সংকীর্ণমনা’ এবং ‘চরম দায়িত্বজ্ঞানহীন’ বলে উল্লেখ করেছে চীনা কর্তৃপক্ষ।

উভয়পক্ষের এই পাল্টাপাল্টি অবস্থান ও বক্তব্যে কার্যত দক্ষিণ চীন সাগরে আরও ‘জল ঘোলা’ হচ্ছে। শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) প্রতিবেদন প্রকাশের মাধ্যমে তথ্যটি নিশ্চিত করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি নিউজ।

চুক্তি অনুযায়ী, অস্ট্রেলিয়াকে প্রথমবারের মতো পারমাণবিক সাবমেরিন তৈরির প্রযুক্তি দেবে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র। এছাড়া দেশ তিনটি নিজেদের অন্যান্য উন্নত প্রতিরক্ষা প্রযুক্তিও পরস্পরের সঙ্গে বিনিময় করতে পারবে। এর সব কিছুর লক্ষ্যই চীনকে মোকাবিলা করা।

বিবিসি নিউজ জানিয়েছে, দক্ষিণ চীন সাগরে বেইজিংয়ের প্রভাব কমিয়ে আনতে অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য এই পদক্ষেপ নিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দক্ষিণ চীন সাগর ও এর পার্শ্ববর্তী এলাকা ভূরাজনৈতিকভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং সেখানে উত্তেজনাও অনেক বেশি বিদ্যমান।

যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাজ্যের নিরাপত্তা চুক্তির প্রসঙ্গে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাঁও লিজিয়ান বলছেন, এই চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রগুলো আঞ্চলিক শান্তি ধ্বংসের বড় ধরনের ঝুঁকি তৈরি করেছে। একই সঙ্গে এই ধরনের কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে অস্ত্র প্রতিযোগিতাও বাড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন : এবার ট্রেন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল উত্তর কোরিয়া

চীনকে মোকাবিলায় অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের এ ধরনের মনোভাবকে ‘অপ্রচলিত শীতল যুদ্ধ’ হিসেবে আখ্যায়িত করেন লিজিয়ান। একই সঙ্গে এ ধরনের কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে ওই তিনটি দেশ নিজেদের স্বার্থকেই ক্ষতিগ্রস্ত করছে বলেও হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

প্রায় একই ধরনের বক্তব্য সামনে এনেছে চীনের রাষ্ট্রীয় মিডিয়া গ্লোবাল টাইমসও। সংবাদপত্রটির উপ সম্পাদকীয়তে এই চুক্তির নিন্দা জানিয়ে বলা হয়েছে- নিজেকে এখন কার্যত চীনের প্রতিপক্ষ হিসেবে পরিণত করেছে অস্ট্রেলিয়া।

গত ৫০ বছরের মধ্যে প্রথম রাষ্ট্র হিসেবে অস্ট্রেলিয়াকে পারমাণবিক সাবমেরিন তৈরির প্রযুক্তি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে কেবল যুক্তরাজ্যকে এই প্রযুক্তি দিয়েছিল ওয়াশিংটন। ফলে অংশীদারিত্বমূলক এই নিরাপত্তা চুক্তির কারণে প্রথমবারের মতো পারমাণবিক শক্তি চালিত সাবমেরিন নির্মাণ করতে পারবে অস্ট্রেলিয়া।

আরও পড়ুন : ক্রুজ মিসাইলের পর ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়লেন কিম

ত্রিদেশীয় চুক্তিটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘এইউকেইউএস’। সেই চুক্তি অনুযায়ী, কোয়ান্টাম প্রযুক্তি, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও সাইবার সংক্রান্ত বিষয়গুলোর তথ্যও একে অপরের সঙ্গে ভাগাভাগি করতে পারবে যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাজ্য।

ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চলে চীনের ক্রমবর্ধমান সামরিক উপস্থিতি ও শক্তি বৃদ্ধির বিষয়ে এই তিনটি দেশই ভীষণ উদ্বিগ্ন। নতুন নিরাপত্তা চুক্তির ঘোষণা উপলক্ষে বুধবার যৌথ বিবৃতি দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এবং অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন।

আরও পড়ুন : চীনকে মোকাবিলায় নিউক্লিয়ার সাবমেরিন বানাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া

সেই বিবৃতিতে বলা হয়, এইউকেইউএস চুক্তির অধীনে প্রথম উদ্যোগ হিসেবে, অস্ট্রেলিয়ার রাজকীয় নৌবাহিনীর পারমাণবিক সাবমেরিন সক্ষমতা অর্জনে দেশটিকে সহায়তা দিতে আমরা কাজ করব।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড