• বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শেখার আছে ‘উইপোকা’ থেকেও!

  ফিচার ডেস্ক

১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:৫৩
উইপোকা
উইপোকার ঢিবি; (ছবি- ইন্টারনেট)

ছোট্ট একটি পতঙ্গ উইপোকা। এদের বৈশিষ্ট্যের কারণে এদের সামাজিক পতঙ্গ বলা হয়। উই পরিবারের সবাই বাচ্চাদের যত্ন নেয়। এদের মধ্যে শুঁয়োপোকা খোলস ছেড়ে পরিণত হয় কর্মী উইতে। কিছু কিছু কর্মী উই পুনরায় খোলস ছাড়ে। তখন তারা সৈনিক উইতে পরিণত হয়। কেউ যদি তৃতীয়বারের মতো খোলাস ছাড়ে তবে পরিণত হয় প্রজননক্ষম উইতে। তারা ডিম পাড়ে আর তা থেকে বাচ্চা জন্মায়। 

শত সহস্র এমনকি লক্ষ কোটি হতে পারে উইপোকার সংখ্যা। তাদের মধ্যে শ্রম ভাগ করে দেওয়া হয়। সবাই মিলে পরিশ্রম করে বাসা বোনে, সন্তান লালন পালন করে। একে অন্যের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের ক্ষেত্রে উইপোকারা বিশেষ সঙ্কেত ব্যবহার করে। তবে তারা কীভাবে এই সঙ্কেত পাঠায় তা আজও জানা যায়নি। 

গবেষকগণ, উইপোকাকে বিরূপ অবস্থাতে ফেলে পর্যবেক্ষণ করে দেখেন যে, অন্যান্য পোকা অর্থাৎ পিপড়া বা মৌমাছির মতো উইপোকা এলোমেলো হয়ে ছুটাছুটি করে না। বরং খুব শান্ত ও সুশৃঙ্খলভাবে ধীরে ধীরে পলায়ন করে তারা। 

এখানেই শেষ নয়। উইপোকা বিপদে পড়লে বা আঘাতপ্রাপ্ত হলে কেউ দৌড়াদৌড়ি করে না, হুড়োহুড়ি করে একে অন্যের গায়ের ওপর ওঠে না। তারা সুশৃঙ্খল হয়ে স্থান ত্যাগ করে। এটিই তাদের সামাজিক ক্রমধারা। সারির শুরুতে থাকে দলনেতা আর তার পেছনে কর্মী উইরা। পথ চলতে গিয়ে কোনো কর্মী যদি দলছুট হয়ে যায় তবে সে আবার ফিরে না আসা অব্দি পুরো দল শান্তভাবে অপেক্ষা করে। 

উইপোকার ঢিবি নিশ্চয়ই দেখেছেন। কখনো কখনো হয়তো দেখে অবাক হয়েছেন। অতটুকু পোকা এত বড় শিল্পকর্ম করল কী করে! এর কারণ হলো, উইপোকা অত্যন্ত ক্ষুদে প্রাণী হয়েও যে বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিচ্ছে তা সবচেয়ে বুদ্ধিমান মানুষকেও হার মানায়। 

একতা থাকলেই সবকিছু সম্ভব। দলবদ্ধ হয়ে থাকলে কঠিন পরিস্থিতিও সামলানো যায় সহজে। এই উইপোকাদের থেকেই অনেককিছু শেখার রয়েছে আমাদের। 

ওডি/এনএম 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড