• বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন

পৃথিবীতে মাত্র ৪৩ জনের আছে এই রক্ত

  ফিচার ডেস্ক

২৭ মে ২০১৯, ২২:৩৩
রক্ত
ছবি : প্রতীকী

রক্তের গ্রুপ জানাটা বর্তমান পৃথিবীতে খুবই জরুরী একটা কাজ। কোন দুর্ঘটনায় পড়লে অনেক ক্ষেত্রে রক্তের প্রয়োজন পড়ে। সেক্ষেত্রে একজন আরেকজনকে রক্ত দিয়ে সাহায্য করে থাকেন। তবে যাদের রক্তের গ্রুপ নেগেটিভ গ্রুপের হয়ে থাকে তাদের বেলায় এই রক্ত সংগ্রহ করাটা বেশ ঝামেলার হয়ে থাকে। তবে জানলে অবাক হবেন পৃথিবীতে এমন গ্রুপের রক্তও আছে যা ৫০ জনের কম মানুষের শরীরে বইছে। এটিকে বলা হয় পৃথিবীর বিরলতম রক্তের গ্রুপ। গোল্ডেন ব্লাড নামে ডাকা হয় বিরল এই রক্তের গ্রুপকে।

গত শতকের ষাটের দশক পর্যন্ত চিকিৎসকরা মনে করতেন, রক্তে ‘আরএইস’ ফ্যাক্টরের অভাব ঘটলে মানুষ বেঁচে থাকতে পারে না। আরএইস ফ্যাক্টরের জন্যই রক্তের লোহিত কণিকা সচল থাকে। এটিকে বলা হয় অ্যান্টিজেন। প্রতিটি রক্তের গ্রুপে একই রকম অ্যান্টিজেন এর উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়।  কিন্তু ১৯৬১ সালে বিজ্ঞানীরা এক বিরলতম রক্তের গ্রুপ আবিষ্কার করেন। এই রক্তের গ্রুপে কোন অ্যান্টিজেন থাকে না।

আরএইস এর কারণেই রক্তের গ্রুপের পার্থক্য তৈরি হয়। এক গ্রুপের রক্ত অন্য গ্রুপের রক্তের সাথে মিশলে শরীরে  জটিল  পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। এর ফলে মানুষের মৃত্যুও হতে পারে। তাই কখনোই এক গ্রুপের রক্ত অন্য গ্রুপে দেওয়া যায় না। এক্ষেত্রে দেখা যায় গোল্ডেন ব্লাড গ্রুপের রক্তদাতাদের সংখ্যা পৃথিবীতে খুবই কম। সাকুল্যে পৃথিবীতে এখন অবধি মাত্র ৪৩ জনকে সনাক্ত করা গেছে যাদের রক্তের গ্রুপ গোল্ডেন ব্লাড।

রক্তের বিভিন্ন গ্রুপের মধ্যে এই গ্রুপের রক্ত সম্পূর্ণই আলাদা হয়ে থাকে। তাই এই গ্রুপের রক্ত জোগাড় করাটা এক রকম অসম্ভবই। এই গ্রুপের রক্তদাতার সংখ্যা কম থাকাটাই এই জন্য দায়ী। সারা পৃথিবীতে মাত্র কয়েকটি দেশে এই গ্রুপের রক্ত পাওয়া গেছে। এরমধ্যে ব্রাজিল, জাপান, আয়ারল্যান্ড এবং যুক্তরাষ্ট্রের নাম রয়েছে।

ডাক্তাররাও এই গ্রুপের রক্তের মালিককে রক্তদানে উতসাহিত করে থাকেন। কেননা এই গ্রুপের রক্ত হুট করে কেউ চাইলেই পাবে না। ১৯৫২ সালের এক সমীক্ষায় দেখা গেছে সারা পৃথিবীতে মাত্র ৪ জনের ছিল এই রক্ত।

ওডি/এসএম 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড