• সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হোম কোয়ারেন্টিন উপভোগ করার ১০ কাজ

  ফিচার ডেস্ক

১৬ এপ্রিল ২০২০, ২২:১৫
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে দূরে থাকতে অনেকেই এখন হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। বিশেষ করে তরুণ-তরুণীরা এই সময়টা হেলাফেলায় কাটাচ্ছেন। কিন্তু আপনি একটু সচেতন হলে সময়টাকে উপভোগ্য করতে পারেন। ঘরে বসেই দক্ষ হয়ে উঠতে পারেন। যা আপনার পরবর্তী জীবনে কাজে লাগবে। এই প্রতিবেদনে ১০ টি বিষয়ের উল্লেখ করা হলো, যেগুলো ঘরে বসেই আয়ত্ব করতে পারবেন।

আনন্দের জন্য পড়ুন

শিক্ষার্থীরা সারা বছর পাঠ্যবইয়ে ডুবে থাকে। ফলে গল্প, উপন্যাস, কবিতা, ভ্রমণ কাহিনি পড়ার সময় হয় না। লকডাউনের এই দিনগুলোতে আনন্দের জন্য পড়ুন। আপনার পছন্দের বই পড়ার এই তো সময়। তাই নিজের জন্য পড়ুন। আনন্দের জন্য পড়ুন। যেসব বিষয় আপনাকে আনন্দ দেয় সেসব বিষয়ের বই পড়ুন।
সময়কে কাজে লাগানো শিখুন সময়কে যে যত ভালো ভাবে কাজে লাগাতে পারবে সে দ্রুত সফলতার শিখরে পৌঁছাতে পারবে। লকডাউনের দিনগুলোকে কাজে লাগানোর মাধ্যমে আপনার টাইম ম্যানেজমেন্ট স্কিল বাড়িয়ে নিতে পারেন। প্রত্যাহিক দিনের রুটিন আগের দিনেই করে ফেলুন। সেই অনুযায়ী সময় ব্যয় করুন। দেখবেন দিনশেষে আপনার অনেকটা কাজ হয়েছে। এভাবেই আপনি হয়ে উঠবেন দক্ষ।

খাবারের প্রতি মনোযোগী হন যেহেতু ঘরে আছেন তাই খাবারের প্রতি মনোযোগী হোন। আপনি পড়াশোনার কারণে হয়তো এতদিন খেয়াল করেননি, আপনার বাবা প্রতিদিন কীভাবে বাজার করে। আপনার মা সেগুলো গুছিয়ে রান্না করে। বাসায় যতজন আছেন তাদের জন্য খাবার রান্না থেকে শুরু করে খাবার খাওয়া, নাস্তা খাওয়া-এসব বিষয়ে মনোযোগী হোন। এসবের পেছনে কত টাকা ব্যয় হচ্ছে তার হিসাবও রাখতে পারেন। এতে করে আপনি যখন পরিবারের হাল ধরতে শুরু করবেন তখন খানিকটা এগিয়ে থাকবেন।

হতাশা দূর করতে শিখুন দীর্ঘদিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার ফলে জীবনে আসে একঘেয়েমি এবং হতাশা। তাই হতাশা দূর করতে শিখুন। নিজের মাঝে সব সময় আশাবাদ ব্যক্ত রাখুন। আশাবাদী হয়ে ওঠার মাঝেই আপনি হতাশা দূর করতে পারবেন।

সাইকেল-মোটরবাইক-গাড়ির যত্ন নিন লক ডাউনে বাইরে বের হওয়ার উপায় নেই। গ্যারেজে পড়ে নষ্ট হচ্ছে আপনার প্রিয় বাই-সাইকেল, মোটরসাইকেল কিংবা আপনার বাবার গাড়ি। তাই আপনি এসব যানের প্রতি যত্নবান হোন। ধুয়ে মুছে সাফ সুতোর করুন। পরিস্কার রাখুন নিয়মিত। এতে করে আপনি হয়ে উঠবেন দায়িত্বশীল এবং কর্মঠ। সময়টাও কাটবে ভালো।

মিতব্যয়ী হোন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার ফলে অনেকেরই আয়ের পথ সীমিত হয়েছে। বাড়তি উপার্জনের পথ বন্ধ হয়েছে। তাই এই সময়ে মিতব্যয়ী হওয়াটা জরুরি। ভবিষ্যত সঞ্চয়ের পথটা সুগম হয়। তাই মিতব্যয়ী হয়ে ওঠাটা জরুরি।

গোছানো হোন একজন গোজানো মানুষ সব সময়ই সফল। শৃঙ্খলাই শৃঙ্খল মুক্তির পথ। তাই নিজের কাজগুলো গুছিয়ে সম্পাদন করার প্রচেষ্টা থাকুক আপনার মাঝে। এই অভ্যাস ছাত্রজীবন থেকে শুরু করে কর্মজীবনেরও কাজে দেবে।

হোম ওয়ার্ক করুন শিক্ষার্থীদের হোম ওয়ার্ক করাটা জরুরি। পাশাপাশি বাসা-বাড়ির এমন কিছু কাজ থাকে যেটা প্রতিদিনই করতে হয়। যেমন ঘর-বাড়ি পরিস্কার করা, বাথরুম-সিঁড়ি সাফসুতোর করা, বাগানো পানি দেয়া, পোষ্যগুলো খাবার দেয়া। বাসার ময়লা-আবর্জনা ডাস্টবিনে ফেলে দেয়া। এসব কাজ নিয়মিত করুন। এবং নিজেকে কর্মঠ ও দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলুন।

ট্যাক্স ফাইল তৈরি করা শিশু-কিশোর-তরুণদের ট্যাক্স সম্পর্কে তেমন একটা ধারণা নেই। কিন্তু আপনি যদি ট্যাক্স সম্পর্কে আগে থেকেই ধারণা রাখেন তবে আপনি যখন কর্মজীবনে প্রবেশ করবেন তখন খানিকটা এগিয়ে থাকবেন। আপনি তখন বুঝতে পারবেন কতটা আয় করলে সরকারকে ট্যাক্স দিতে হবে। এটা যখন বুঝতে পারবেন তখন আপনি যেমন আয় বাড়ানোর চেষ্টা করবেন তেমনি আয় বুঝে ব্যয় করাটাও শিখবেন।

জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলা করুন জরুরি পরিস্থিতিতে বড়রাই অনেক সময় হিমশিম খায়। বড়দের কাছ থেকে শিখুন কীভাবে জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হয়। এমন পরিস্থিতিতে মাথা ঠান্ডা রেখে সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়াটাও জরুরি। তাই জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলা করাটাও দক্ষতার অংশ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড