• রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

জিয়ার পরিচয় তিনি বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী : রেলমন্ত্রী||কলকাতায় চিকিৎসা করাতে যাওয়া ২ বাংলাদেশিকে পিষে মারল জাগুয়ার||ছাত্রদলের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদের ফরম বিক্রি শুরু ||ইহুদিবাদী ইসরায়েলের প্রস্তাব নাকচ করে দিল মার্কিন সাংসদ||ভারতকে অবিলম্বে কাশ্মীরের কারফিউ তুলতে বলেছে ওআইসি||‘তদন্ত করতে হবে কেন এসব অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে’||ইউক্রেনের হোটেলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৮ জনের প্রাণহানি||‘অগ্নিকাণ্ডে কেউ চাপা পড়েছে কিনা তল্লাশি চলছে’ ||মুক্তিপ্রাপ্ত ইরানের সুপার ট্যাঙ্কারটি আটকে এবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ারেন্ট জারি||অবৈধ অভিবাসন ইস্যুতে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী  
eid

এইচএসসির ফল পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন শুরু

  শিক্ষা ডেস্ক

১৮ জুলাই ২০১৯, ১৩:০২
এইচএসসি
ছবি : প্রতীকী

চলতি বছরের উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফল পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন শুরু হয়েছে আজ (১৮ জুলাই) থেকে, চলবে ২৪ জুলাই পর্যন্ত। যারা পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছে অথবা কাঙ্ক্ষিত ফল পায়নি তারা টেলিটক নম্বর থেকে ফল পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন করতে পারবে।

কীভাবে করবেন ফল পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন?

ফল পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন করতে RSC লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে বিষয় কোড লিখে পাঠাতে হবে ১৬২২২ নম্বরে। ফিরতি এসএমএসে ফি বাবদ কত টাকা কেটে নেওয়া হবে তা জানিয়ে, দেওয়া হবে একটি পিন নম্বর (পার্সোনাল আইডেন্টিফিকেশন নম্বর-PIN)।

আবেদনে ইচ্ছা পোষণ করলে RSC লিখে স্পেস দিয়ে YES লিখে স্পেস দিয়ে পিন নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে যোগাযোগের জন্য একটি মোবাইল নম্বর লিখে এসএমএস পাঠাতে হবে ১৬২২২ নম্বরে। প্রতিটি বিষয় ও প্রতিটি পত্রের জন্য চার্জ কাটা হবে ১৫০ টাকা হারে।

যেসব বিষয়ের দুইটি পত্র (প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র) রয়েছে, যেসব বিষয়ের ফল পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন করলে দুইটি পত্রের জন্য ফি কাটা হবে ৩০০ টাকা। একই এসএমএসে একাধিক বিষয়ের আবেদন করা যাবে, এ ক্ষেত্রে বিষয় কোড পর্যায়ক্রমে লিখতে হবে ‘কমা’ দিয়ে।

এ বছরের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় পাসের হার ৭৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ। জিপিএ-ফাইভ পেয়েছে ৪৭ হাজার ৫৮৬ জন শিক্ষার্থী। শতভাগ পাস করেছে ৯০৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এছাড়া ৪১ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একজনও পাস করেনি।

বুধবার (১৭ জুলাই) সকাল ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ফল হস্তান্তর করেন শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনি। পরে সংবাদ সম্মেলন করে প্রধানমন্ত্রী ফল ঘোষণা করেন।

এবার আটটি সাধারণ বোর্ডে পাসের হার ৭১ দশমিক ৮৫ শতাংশ। মাদ্রাসা বোর্ডে পাসের হার ৮৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ। এ বছর মাদ্রাসা বোর্ডে দুই হাজার ২৪৩ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-ফাইভ পেয়েছে। অন্যদিকে কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৮২ দশমিক ৬২ শতাংশ। এ বোর্ডে তিন হাজার ২৩৬ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-ফাইভ পেয়েছে।

ওডি/আরএআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড