• মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

গাইড বইয়ের প্রতি ঝুঁকে পড়েছে শিক্ষার্থীরা

  আরিফুল ইসলাম রিফাত

২৭ জানুয়ারি ২০১৯, ১৫:১৩
বই
ছবি : প্রতীকী

জানুয়ারি আর ফেব্রুয়ারি মাস এলেই যেন জমজমাট হয়ে ওঠে সারাদেশের ছোট বড় সব ধরনের লাইব্রেরি। ধুম পড়ে যায় নিষিদ্ধ গাইড বই বিক্রির। প্রসাশনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রত্যেকটি লাইব্রেরিতে দেদারসে বিক্রি করা হচ্ছে এসব বই। আর এর বিরুদ্ধে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে দেখা যাচ্ছে না সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের।

একজন শিক্ষার্থীকে পাঠ্য বইয়ের প্রতি যেমন যথেষ্ট জ্ঞান থাকা দরকার তার চেয়ে বেশি প্রয়োজন পারিপার্শ্বিক জ্ঞান। এই দুই জ্ঞানের সমষ্টি মিলে একজন শিক্ষার্থীকে মৌলিক শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে ওঠতে হবে। আর তাতেই জাতি এর সুফল ভোগ করবে, কিন্তু বর্তমানে বাংলাদেশের অধিকাংশ শিক্ষার্থীরা নোট-গাইড বা সহায়ক বইয়ের ওপর পুরোপুরি নির্ভরশীল হয়ে উঠেছে।

দেশের শিক্ষার্থীরা বোর্ড বইয়ের চেয়ে গুরুত্ব বেশি দিচ্ছে গাইড বইয়ের ওপর। তারা পাঠ্য বইয়ের প্রতি ধাবিত না হয়ে গাইড বই মুখস্থ বিদ্যার প্রতিযোগিতায় নেমে পড়েছে। এতে করে মৌলিক শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। সৃজনশীল পদ্ধতিতে শিক্ষার্থীদের একমাত্র সহায়ক হওয়ার কথা পাঠ্যবই, কিন্তু আমাদের দেশের চিত্র ঠিক বিপরীত। অজ্ঞ-বিজ্ঞ নির্বিশেষে অভিবাবকরা যাচাই-বাচাই না করে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের হাতে হাতে তুলে দিচ্ছেন গাইড বই।

অপরদিকে, কিছু অসাধু শিক্ষক বিভিন্ন কোম্পানী থেকে মোটা অঙ্কের টাকা বাণিজ্য করে শিক্ষার্থীদের সেই অনুযায়ী বইয়ের লিস্ট দেওয়া হচ্ছে বাধ্যতামুলকভাবে।

একাধিক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাদের স্ব স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে কোনো কোম্পানির বই কিনতে হবে তার লিস্ট বা মৌখিক বলে দেওয়া হচ্ছে এবং এর বাইরের অন্য কোনো কোম্পানির বই না কিনারও নিষেধ রয়েছে। কারণ তাদের প্রতিষ্ঠানে বইয়ের দেওয়া লিস্ট অনুযায়ী পড়ানো হবে। এমনকি পরীক্ষায়ও হুবহু এই গাইড থেকে প্রশ্ন তুলে দেওয়া হয়। তাই সকলকেই বাধ্য হয়ে কিনতে হয়।

তবে শিক্ষাবিদরা মনে করছে, শিক্ষার্থীদের এই দুর্বলতাকে পুঁজি করে যারা টাকা আত্নসাৎ করছেন তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থার মাধ্যমে বর্তমান শিক্ষার মানোন্নয়ন বজায় রাখা সময়ের দাবি।

লেখক : শিক্ষার্থী, ওমরগণি এম.ই.এস বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড