• মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০, ১৭ চৈত্র ১৪২৬  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শেষ বিকালে স্বস্তি দিলেন রাহী

  ক্রীড়া ডেস্ক

২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৫:৫৭
বাংলাদেশ ক্রিকেট দল
বাংলাদেশ ক্রিকেট দল (ছবি: সংগৃহীত)

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে আগে টস হেরে ফিল্ডিং করছে বাংলাদেশ। 

জিম্বাবুয়ে স্কোর : ২০১/৫ 

এক আউটে জোড়া ক্ষতি জিম্বাবুয়ের

শেষ বিকালে জিম্বাবুয়ে শিবিরে আঘাত হেনেছেন পেসার আবু জায়েদ রাহী। টিমিসেন মারুমাকে আউট করে বড় হওয়ার আগেই ভাঙেন ক্রেইগ আরভিন ও মারুমার ২৫ রানের জুটি। 

ক্রিজে সেট হওয়ার আগেই ৮০তম ওভারে টিমিসেন মারুমাকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন রাহী। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি মারুমা। মারুমার সঙ্গে একটি রিভিউও হারিয়েছে সফরকারীরা। দলীয় ১৯৯ রানে আউট হন এ ব্যাটসম্যান। আউট হওয়ার আগে ৩৫ বলে ১ চারে ৭ রান করেন তিনি। এটি রাহীর দ্বিতীয় শিকার।

বাকিরা আউট হলেও একপাশ আগলে রেখেছেন আরভিন। ৯২ রানে অপরাজিত আছেন এ ব্যাটসম্যান। ৮২তম ওভারে নতুন বল পেয়েছে বাংলাদেশ।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ৮২ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২০১ রান। উইকেটে রয়েছেন চাকাভা (০) এবং আরভিন (৯২)।

এবার রাজাকে ফেরালেন নাঈম 

দ্বিতীয় সেশন থেকে ফিরে এসে জিম্বাবুয়েকে টানছিলেন অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন ও সিকান্দার রাজা। তারা ৪০ রানের জুটিও গড়ে ফেলেন। তবে এই জুটিকে বেশি দূর যেতে দেননি অফ স্পিনার নাঈম হাসান। 

দলীয় ১৭৪ রানের মাথায় রাজাকে উইকেটরক্ষক লিটন দাসের গ্লাভসবন্দি করে সাজঘরে ফেরান। ৬২ বল খেলে ১৮ রান করে যান রাজা। নাঈমের এটা তৃতীয় শিকার।

এর আগে, দ্বিতীয় সেশনে কোনোভাবেই প্রিন্স মাসভাউরেকে থামাতে পারছিল না বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত নাঈম হাসান দিলেন ব্রেকথ্রু, পরে ফেরালেন টেইলরকেও। এবার এই তরুণ স্পিনারের তৃতীয় শিকার হলেন রাজা। 

দ্বিতীয় সেশনে নাঈমের জোড়া আঘাতে এগিয়ে টাইগাররা

খানিকটা স্বস্তি নিয়ে দ্বিতীয় সেশন শেষ করল বাংলাদেশ। প্রথম সেশনে এক উইকেট তুলে নেয় স্বাগতিকরা। দ্বিতীয় সেশনে কোনোভাবেই প্রিন্স মাসভাউরে ও ক্রেইগ আরভিনের জুটি ভাঙতে পারছিল না। শেষ পর্যন্ত নাঈম হাসান দিলেন ব্রেকথ্রু, পরে ফেরালেন টেইলরকেও। এই সেশনে ৭০ রান যোগ করেছে জিম্বাবুয়ে, তবে দুই উইকেট নিয়ে বাংলাদেশ বার্তা দিয়েছে ঘুরে দাঁড়ানোর। 

দ্বিতীয় সেশনে বিপজ্জনক হয়ে ওঠা মাসভাউরে ও আরভিনের জুটি ভেঙেছেন অফ স্পিনার নাঈম। দলীয় ১১৮ রানের মাথায় নাঈমের বলে কট অ্যান্ড বোল্ড হয়ে ফিরেন মাসভাউরে। আরভিনের সঙ্গে ১১১ রানের জুটি গড়ে ফিরেন তিনি। ১৫২ বল খেলে ৯ চারে ৬৪ রান আসে তার ব্যাট থেকে। এরপর ১৩৪ রানের মাথায় অভিজ্ঞ নতুন ব্যাটসম্যান  ব্রেন্ডন টেইলরকে নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করেন নাঈম। ১১ বল খেলে ১০ রান করে নাঈমের বলে বোল্ড হয়ে যান তিনি।

জোড়া ব্রেক থ্রু আনলেন নাঈম

বারবার সুযোগ পেয়েও ওপেনার মাসভাউরে বেঁচে যান। স্লিপে সহজ ক্যাচ লুফে নিতে পারেননি শান্ত। নাঈম নিজেও জিম্বাবুয়ে ওপেনারকে আউটের সুযোগ পেয়েছিলেন। তবে এবার কোনো ভুল করলেন না। ৪৯তম ওভারের প্রথম কবলে সেট ব্যাটসম্যান মাসভাউরেকে ৬৪ রানে কট অ্যান্ড বোল্ড উইকেটে পরিণত করেন এ অফস্পিনার। এতে আরভিনের সঙ্গে মাসভাউরের ১১১ রানের জুটির সমাপ্তি ঘটল। 

এর আগে ক্যারিয়ার সেরা ৫৫ রান টপকে যান ওপেনার মাসভাউরে। ক্যারিয়ারের পঞ্চম টেস্টে এটি তার দ্বিতীয় হাফসেঞ্চুরি। তৃতীয় উইকেটে ১৬ রানের জুটি গড়েন টেইলর-আরভিন। একপ্রান্তে আরভিন পঞ্চম হাফসেঞ্চুরি করলেও টেইলর আউট হলেন ১০ রানে। অভিজ্ঞ এ ব্যাটসম্যানকেও ফেরান নাঈম। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৩৪ রান। 

সহজ ক্যাচ মিস করলেন শান্ত 

জুটি ভাঙার একটা সুযোগ এসেছিল অফ স্পিনার নাঈম হাসানের বলে। ঝুলিয়ে দেওয়া বলটায় বেরিয়ে গিয়ে খেলেছিলেন মাসভাউরে, ব্যাটের কানায় লেগে বল চলে যায় স্লিপে নাজমুল হাসান শান্তর কাছে, তবে সেটা ঠিক বাগে আনতে পারেননি শান্ত। 

এর আগে অবশ্য নাঈম নিজেই মাসভাউরের ক্যাচ মিস করেছেন। বেরিয়ে এসে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে চাপটা একটু আলগা করতে চেয়েছিলেন মাসভাউরে। ঠিক মতো খেলতে পারেননি, তবে লাফিয়ে হাত ছোঁয়ালেও ক্যাচ মুঠোয় নিতে পারেননি দীর্ঘদেহী নাঈম। 

তবে সেই আর যাই হোক, ধীরে ধীরে এই জুটি শক্ত ঘুঁটি হয়ে দাঁড়াচ্ছেন। অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন এবং মাসভাউরের ব্যাটে দলীয় শতরান পার করেছে জিম্বাবুয়ে। দ্বিতীয় উইকেটে ইতোমধ্যে তারা দুজন ৯৭ রান তুলেছেন। 

লাঞ্চের পর মাসভাউরের ফিফটি  

ইবাদত হোসেন, তাইজুল ইসলাম ও নাঈম হাসানের নির্বিষ বোলিংয়ে প্রথম দিনের প্রথম সেশনে নতুন বলের সুবিধা সিকিভাগও তুলে নিতে পারেননি রাসেল ডোমিঙ্গো শিষ্যরা। সন্দেহাতীত ভাবেই তাই প্রথম ইনিংসের প্রথম সেশনটি সফরকারী জিম্বাবুয়ের। মধ্যাহ্ন বিরতি পর্যন্ত তাদের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৮০ রান।

বিরতি থেকে ফিরে আবু জায়েদ রাহীর করা ৩৪তম ওভারে ৪ মেরে ফিফটি পূর্ণ করেন প্রিন্স মাসভাউরে। ১০৪ বল খেলে ৮ চারে ৫০ পেরোন তিনি। ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় ফিফটি পেলেন, লাঞ্চের পরপরই। 

লাঞ্চের আগে বাংলাদেশের প্রাপ্তি ১ উইকেট

দলীয় ৭ রানের মাথায় পেসার আবু জায়েদ রাহী ফেরান কেভিন কাসুজাকে। এরপর অবশ্য সলিড ব্যাটিং করেছে সফরকারী জিম্বাবুয়ে। অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন ও টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান প্রিন্স মাসভাউরে দেখে-শুনে ব্যাট করে ৮০ রান তুলে প্রথম সেশন শেষ করেছেন।

প্রথমে ধাক্কার পর ক্রিজে এসে ঝুঁকি নিয়েই খেলেন আরভিন। সুইপ-রিভার্স সুইপ করে যান শুরু থেকে। কয়েকবার বেঁচে গেছেন অল্পের জন্য। এ দিকে, শুরু থেকে আস্থার সঙ্গে খেলছেন মাসভাউরে। ফিফটির কাছে দাঁড়িয়ে আছেন তরুণ এই ওপেনার। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ইতোমধ্যে তারা ৭৩ রান সংগ্রহ করেছে। মাসভাউরে ৭ চারে ৪৫ রান নিয়ে ও আরভিন ৪ চারে ২৬ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন।

বল হাতে ১০ ওভারের টানা স্পেলে ২১ রান দিয়েছেন নাঈম হাসান। ব্যাটসম্যানদের বেশ ভুগিয়েছেন, টার্ন ও বাউন্সে পরীক্ষা নিয়েছেন আরভিন-মাসভাউরেকে। তবে রানের জন্য তাইজুল ইসলামকে লক্ষ্য করেছে জিম্বাবুয়ে। বাঁহাতি স্পিনার ৬ ওভারে দিয়েছেন ৩৩ রান।

বাংলাদেশের টাইট বোলিংয়ে দেখে-শুনে খেলছে জিম্বাবুয়ে 

প্রথম ১০ ওভার শেষে মাত্র ৯ রান তুলেছে সফরকারী জিম্বাবুয়ে। প্রথম ঘণ্টাটা ছিল বাংলাদেশের। আবু জায়েদ রাহী আর ইবাদত হোসেন শুরু থেকেই ছিলেন ধারাবাহিক, দুই ওপেনারকে ভুগিয়ে গেছেন। শেষ পর্যন্ত কেভিন কাসুজাকে ফিরিয়ে রাহী পেয়েছেন পুরস্কার। 

শুরুতে ধাক্কা খাওয়ার পর মাটি কামড়ে পড়ে আছেন প্রিন্স মাসভাউরে এবং অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন। দুজনই একটু স্বচ্ছন্দ হয়ে রান তোলা শুরু করেছেন। এ দিকে, বাংলাদেশ আরেকটি ব্রেক থ্রুর অপেক্ষায়।

দিনের শুরুতেই কাসুজাকে ফেরালেন রাহী

সকালের সেশনে আবু জায়েদ রাহী আর ইবাদত পরীক্ষা নিয়ে যাচ্ছিলেন জিম্বাবুয়ের দুই ওপেনারের, দুজনেই দাঁতে দাঁত কামড়ে পার করে দিচ্ছিলেন সময়। শেষ পর্যন্ত রাহী ভাঙলেন প্রতিরোধ। 

বাইরে বেরিয়ে যাওয়া বল, তবে লাইনটা হলো অফ স্টাম্পের ঠিক ওপর। ডিফেন্ড করতে গিয়ে এবার গালিতে ক্যাচ তুলে দিলেন কেভিন কাসুজা, নাঈম হাসান ভুল করলেন না সেখানে। ৭ রানে জিম্বাবুয়ে হারাল প্রথম উইকেট। 

টস জিতে ব্যাটিংয়ে জিম্বাবুয়ে

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট দিয়ে শুরু হয়েছে বাংলাদেশের দ্বিপক্ষীয় সিরিজ। একমাত্র টেস্টে (শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি) জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টে আগে বোলিং করছে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক ক্রেইগ আরভিন টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। মিরপুর স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হয়েছে সকাল সাড়ে ৯টায়। সরাসরি দেখা যাচ্ছে গাজী টিভিতে। 

বাংলাদেশ বনাম জিম্বাবুয়ে শততম ম্যাচ 

এ ম্যাচের মধ্যে দিয়ে আন্তর্জাতিক ম্যাচের সেঞ্চুরি পূর্ণ করল বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে। গত ২২ বছরে দুই দল তিন ফরম্যাট মিলিয়ে ৯৯টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে। আজ মিরপুরে পূর্ণ হলো সেঞ্চুরি। ৯৯ ম্যাচে বাংলাদেশ জিতেছে ৫৭ ম্যাচে, জিম্বাবুয়ের জয় ৩৯, ড্র হয়েছে তিন ম্যাচ। বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে দুই দলই কোনো দলের বিপক্ষে এত ম্যাচ খেলেনি। বাংলাদেশ দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৭৯ ম্যাচ খেলেছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। জিম্বাবুয়ে ৮৭ ম্যাচ খেলেছে পাকিস্তানের বিপক্ষে।

টেস্টে দুদলের লড়াই 

সফরকারী জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে এ পর্যন্ত মোট ৮টি সিরিজে মুখোমুখি হয় টাইগাররা। মিরপুরে কালকের ১ ম্যাচের টেস্ট সিরিজটি হতে যাচ্ছে ৯ নম্বর। এরমধ্যে ২টি সিরিজে বাংলাদেশ ও ৪টি জিতেছে জিম্বাবুয়ে। বাকি ২টি সিরিজ ড্র হয়েছে। এই ৮ সিরিজে মোট ১৬টি ম্যাচের মধ্যে জিম্বাবুয়ের জয় ৭টি। আর বাংলাদেশের ৬টি। বাকি ৩ টেস্ট ড্র। তবে বাংলাদেশের জন্য বড় অনুপ্রেরণা শেষ ৬টি ম্যাচের ৫টিতে জয় পেয়েছে টাইগার বাহিনী।

টিসুমার অভিষেক

জিম্বাবুয়ের হয়ে টেস্ট অভিষেক হচ্ছে পেসার চার্লটন টিসুমার। একাদশে ফিরেছেন এইনসলে এনডিলোভু। 

বাংলাদেশের একাদশ : তামিম ইকবাল, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমিনুল হক (অধিনায়ক), মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন কুমার দাস, মুশফিকুর রহীম (উইকেটরক্ষক), তাইজুল ইসলাম, নাঈম হাসান, আবু জায়েদ চৌধুরী, ইবাদত হোসেন।

জিম্বাবুয়ের  একাদশ  : প্রিন্স মাসভাউরে, কেভিন কাসুজা, ক্রেইগ আরভিন (অধিনায়ক), ব্রেন্ডন টেইলর, টিমিসেন মারুমা, সিকান্দার রাজা, রেজিস চাকাভা (উইকেটরক্ষক), ডোনাল্ড তিরিপানো, ভিক্টর নিয়াউচি, এইনসলে এনডিলোভু, চার্লটন টিসুমা।

ওডি/এএপি/এমএমএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড