• রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

চীনে হামলা চালাতে শক্তিশালী গ্রেনেড লঞ্চার পেল ভারতীয় সেনারা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৪ আগস্ট ২০২০, ১১:২৪
চীনে হামলা চালাতে শক্তিশালী গ্রেনেড লঞ্চার পেল ভারতীয় সেনারা
ভারতীয় সেনাদের হাতে শক্তিশালী গ্রেনেড লঞ্চার (ছবি : এনডিটিভি)

ভারতের পুনের খড়কির গোলাবারুদ কারখানার তৈরি গ্রেনেড ছোঁড়ার ৪০ মিলিমিটার লঞ্চারের প্রথম চালান দেশটির সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) হাতে এসে পৌঁছেছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) এমন খবর জানিয়ে সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি বলছে, পুনের খডকির গোলাবারুদ কারখানা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ‘আত্মনির্ভর ভারত’ এর আহ্বানে সাড়া দিয়ে এ লঞ্চার তৈরি হয়। যা আন্ডার ব্যারেল গ্রেনেড লঞ্চার (ইউবিজিএল) নামে পরিচিত।

লঞ্চারটিতে ৫ দশমিক ৫ মিমি রাইফেলের (আইএনএসএএস) ব্যারেলের নিচে লাগানো থাকবে। এটি বহন করার ক্ষেত্রে খুবই সহজ এবং ভীষণ হালকা। হ্যান্ড গ্রেনেডের ব্যাপ্তি ৩০ মিটার হলেও এ লঞ্চারে ব্যাপ্তি ৪শ মিটার। এছাড়া এটি বহন করার ক্ষেত্রে খুবই নিরাপদ।

আরও পড়ুন : এবার পাকিস্তানকে নিয়ে গোপনে ষড়যন্ত্র করছে ইসরায়েল!

অত্যাধুনিক এই অস্ত্রটির মূলত চারটি ধরণ রয়েছে। সেগুলো হলো- মিলিমিটার ইউবিজিএল (প্র্যাকটিস), ৪০ মিলিমিটার ইউবিজিএল (এইচইএপি), ৪০ মিলিমিটার ইউবিজিএল (এইচইডিপি) ও ৪০ মিলিমিটার ইউবিজিএল (আরপি)।

লঞ্চারটি বর্তমানে ভারতীয় সেনা ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় (এমএইচএ) ইউনিট আমদানি করেছে।

আরও পড়ুন : ইসরায়েলের সঙ্গে চুক্তি করে ফিলিস্তিনিদের পিঠে ছুরি মারল আমিরাত

অস্ত্র কারখানার জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক এম কে মহাপাত্র বুধবার খডকিতে ৪০ মিলিমিটার ইউবিজিএল (প্র্যাকটিস) প্রথম চালান বিএসএফের ডিআইজি আশোক কুমার ঝারের কাছে হস্তান্তর করেন।

আরও পড়ুন : বিস্ফোরণে বিধ্বস্ত লেবাননকে যুদ্ধের হুঁশিয়ারি দিল ইসরায়েল

প্রতিরক্ষা জনসংযোগের করা এ সংক্রান্ত টুইটে বলা হয়- এ ইভেন্টের মাধ্যমে প্রতিরক্ষা উৎপাদনে ভারত খডকির অস্ত্র কারখানা স্বনির্ভরতা ও মূল্যবান বৈদেশিক মুদ্রা বাঁচানোর জাতীয় প্রয়াসে যোগ দিল।

jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড