• বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০, ১৯ চৈত্র ১৪২৬  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সিরীয় সম্মেলন নিয়ে ‘পূর্ণাঙ্গ’ চুক্তি হয়নি : এরদোগান

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০৫
সিরীয় সম্মেলন নিয়ে ‘পূর্ণাঙ্গ’ চুক্তি হয়নি : এরদোগান
তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান (ছবি : ইউরো নিউজ)

সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় ইদলিব প্রদেশে ছড়িয়ে পড়া সহিংসতা নিয়ে সম্মেলন আয়োজনের বিষয়ে এখন পর্যন্ত রাশিয়া, জার্মানি ও ফ্রান্সের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ কোনো চুক্তি হয়নি। এমনটাই দাবি করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান। 

ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) আজারবাইজান সফরে যাওয়ার আগে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দেওয়া ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন। 

এরদোগান বলেছেন, ফরাসি প্রেসিডেন্টের ইমানুয়েল ম্যাক্রো, জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেল ও রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে আমার ইদলিব ইস্যুতে আলোচনা হয়েছে। যদিও বিষয়টি নিয়ে এখন পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ কোনো চুক্তি হয়নি।

গত শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন, আগামী ৫ মার্চ সিরিয়া ইস্যুতে রাশিয়া, ফ্রান্স এবং জার্মানির নেতাদের সঙ্গে সম্মেলন আয়োজন করা হবে। এটি মূলত ইস্তাম্বুলে নয়তো আঙ্কারায় অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে ইদলিবে হামলা চালিয়ে সিরীয় সামরিক বিমান ধ্বংসের হুমকি দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট এরদোগান। তিনি বলেছেন, সিরিয়ার সরকারি বাহিনীকে হটাতে তুর্কি সেনারা যে কোনো কিছু করতে প্রস্তুত। প্রয়োজনে আমরা পদাতিক ও বিমান বাহিনীর সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করব। তাছাড়া চলতি মাসের শেষ নাগাদ আমাদের ঘাঁটির চারপাশ থেকে তাদের সরিয়ে দেওয়া হবে।

এরদোগান আরও বলেন, ইদলিবে রুশ ও সিরীয় বাহিনী সাধারণ মানুষের ওপর হামলা চালাচ্ছে। তারা এ ধরনের কার্যক্রম চালিয়ে যেতে থাকলে ইদলিবের বাইরেও সিরীয় বাহিনীর ওপর হামলা চালাবে তুরস্ক।

বিশ্লেষকদের মতে, রুশ সমর্থিত সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের নির্দেশে সম্প্রতি বিদ্রোহীদের সর্বশেষ ঘাঁটি ইদলিবে জোরালো সেনা অভিযান শুরু হয়। আর এতেই নতুন করে শরণার্থীদের ঢল নামার আশঙ্কায় প্রেসিডেন্ট এরদোগান সীমান্তে অতিরিক্ত সেনা ও সাঁজোয়া যান পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেন।

আরও পড়ুন : সিরিয়া-ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের ভয়াবহ বিমান হামলা

উল্লেখ্য, গত বছরের ডিসেম্বর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ৩ লাখ ৯০ হাজার মানুষ ইদলিব ছেড়ে পালিয়েছে। যার মধ্যে অধিকাংশই নারী ও শিশু। বর্তমানে তুরস্কে আশ্রিত অবস্থায় আছে আরও ৩৫ লাখের অধিক সিরিয়ান শরণার্থী। যদিও উত্তেজনার কারণে নতুন করে শরণার্থীদের ঢলের আশঙ্কায় রয়েছে পূর্ব ইউরোপের এই দেশটি।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড