• শনিবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২০, ৫ মাঘ ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

‘ফোনালাপে অস্বাভাবিক ছিলেন ট্রাম্প’

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২০ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:৩৬
প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (ছবিসূত্র : দ্য পলিটিকো)

মার্কিন কংগ্রেসের ডেমোক্র্যাট সংখ্যাগরিষ্ঠ প্রতিনিধি পরিষদে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন ইস্যুতে প্রকাশ্য শুনানি শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) তদন্তের শুনানি চলাকালে খোদ হোয়াইট হাউসের কর্মকর্তারাই দাবি করেছেন, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ট্রাম্পের ফোনালাপ ছিল অশোধন এবং অস্বাভাবিক। 

তুর্কি বার্তা সংস্থা ‘আনাদোলু এজেন্সি’ জানায়, ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ট্রাম্পের সেই ফোনকল ফাঁস হওয়া মাত্রই ঝড় উঠে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনৈতিক অঙ্গনে। ফাঁস হওয়া ফোনালাপে দেখা যায়, সাবেক মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও তার ছেলে হান্টার বাইডেনের বিরুদ্ধে তদন্তের জন্য ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টকে এক রকম চাপ প্রয়োগ করছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। যদিও সেই ফোনকলের অনুলিপি পরবর্তীকালে গোপন করতে চেয়েছিল হোয়াইট হাউস। তবে শেষ রক্ষা হলো না তাদের।

মঙ্গলবার ট্রাম্পের অভিশংসন শুনানিতে অংশ নেন হোয়াইট হাউসের একাধিক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা। যাদের মধ্যে হোয়াইট হাউসের ইউক্রেন বিষয়ক জাতীয় নিরাপত্তা কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কর্নেল অ্যালেক্সান্ডার ভিন্ডম্যান এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক সহযোগী জেনিফার উইলিয়ামসও ছিলেন অন্যতম।

ইউক্রেন বিষয়ক মার্কিন কর্মকর্তা অ্যালেক্সান্ডার ভিন্ডম্যান বলেছিলেন, ‘গত ২৫ জুলাইয়ের সেই ফোনালাপ শোনার পর বিষয়টি নিয়ে আমরা ভীষণ উদ্বিগ্ন ছিলাম। এতে আমি যা শুনেছি তা যথার্থ ছিল না। হোয়াইট হাউসের আইনজীবীদের সঙ্গেও আমরা কথা বলেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘মার্কিন প্রেসিডেন্ট নিজ দেশের একজন নাগরিক এবং রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের বিষয়ে তদন্তের জন্য বিদেশি সরকারের কাছে দাবি জানাবেন; এটা ভীষণই অপমানজনক।’

এ দিকে চলতি শুনানিতে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক সহযোগী জেনিফার উইলিয়ামস বক্তব্য দিয়েছেন। তিনি বলেছিলেন, ‘আমার কাছে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের প্রতি ট্রাম্পের এই আহ্বানকে অস্বাভাবিক বলে মনে হয়েছে। কেননা, এটি একটি ঘরোয়া রাজনৈতিক বিষয়।’

অপর দিকে প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি এরই মধ্যে দাবি করেছেন, ইউক্রেনকে ঘুষ দিতে চেয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও সেই কেলেঙ্কারির বিষয়টি ইতোমধ্যে তিনি নিজেই স্বীকার করে নিয়েছেন।

বিভিন্ন যুক্তি দেখিয়ে পেলোসি বলেন, ‘গত বুধবার (১৩ নভেম্বর) শুরু হওয়া গোয়েন্দা বিষয়ক এই কমিটির শুনানি চলাকালে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ইউক্রেনকে ঘুষ সাধার বিষয়টি স্বীকার করেছিলেন। ট্রাম্প দাবি করছেন, ইউক্রেনের সামরিক সহযোগিতা আটকে তিনি ভুল কোনো কিছুই করেননি।’

আরও পড়ুন :- ইরানকে নিয়ে নতুন শঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্র

প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির মতে, ‘এর মানে এসব কাজ করে তিনি মূলত আসন্ন নির্বাচনে তার অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের বিরুদ্ধে একটা ভুয়া তদন্ত শুরুর জন্য ইউক্রেনকে বাধ্য করতে চেয়েছিলেন। যা স্পষ্টতই ঘুষ। এর জন্য তিনি অভিশংসনের যোগ্য।’

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড