• সোমবার, ০৬ এপ্রিল ২০২০, ২৩ চৈত্র ১৪২৬  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সরকারি চাকরিচ্যুতির বিধানের বৈধতা নিয়ে হাইকোর্টের রুল

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:৩২
হাইকোর্ট
হাইকোর্ট (ছবি : সংগৃহীত)

ফৌজদারি অপরাধে এক বছর বা তারও বেশি সাজা হলে সরকারি চাকরিজীবীদের চাকরিচ্যুত করার বিধান কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে হাইকোর্ট রুল জারি করেছেন। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

একই সঙ্গে সরকারি চাকরি আইন-২০১৮ এর ৪২ ধারা কেন অবৈধ নয় তা জানতে চাওয়া হয়েছে।

রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) এ রুল জারি করেছেন বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের হাইকোর্ট বেঞ্চ। এতে বিবাদী হিসেবে রাষ্ট্রপতির সচিবালয়ের সচিব, প্রধানমন্ত্রীর সচিবালয়ের সচিব, মন্ত্রিপরিষদ, জনপ্রশাসন ও আইন সচিব এবং সংসদ সচিবালয়ের সচিবকে জবাব দিতে বলা হয়েছে।

মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) করা এ রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে এ আদেশ দেন আদালত।

রিট আবেদনকারীর আইনজীবী মনজিল মোরসেদ জানান, গত ১৬ জানুয়ারি বিবাদীদের আইনি নোটিশ দেয়া হয়েছে। সেই নোটিশের জবাব না পাওয়ায় রিট করা হয়েছে।

রিট আবেদনে বলা হয়েছে, আদালত অবমাননা একটি ফৌজদারি অপরাধ। এই অপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি ছয় মাস। আর এই ছয় মাসের সাজা হলে কোন ব্যক্তিকে চাকরিচ্যুত করা যাবে। বিষয়টি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের একাধিক রায় হয়েছে।

আরও পড়ুন : বিসিএসে আবেদনের সর্বোচ্চ বয়স নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আদালত অবমাননার এই আইনকে অকার্যকর করতে ২০১৮ সালে করা এক আইনে শাস্তির মেয়াদ ছয় মাসের পরিবর্তে একবছর করা হয়েছে। সুতরাং সরকারি চাকরিজীবীদের চাকরিচ্যুত করার এই আইন বাতিল হওয়া দরকার বলে মন্তব্য করেন মনজিল মোরসেদ।

ওডি/এএইচ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড