• শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ৬ বৈশাখ ১৪২৬  |   ৩৪ °সে
  • বেটা ভার্সন

জীবনের শেষ প্রান্তে তারা; আর কত দেরি রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি?

  কাজী কামাল হোসেন, নওগাঁ ২২ মার্চ ২০১৯, ১৬:৫১

বীরাঙ্গনা
বীরাঙ্গনা মায়া সূত্রধর ও কালীদাসী পাল এবং সন্ধ্যা পাল (ছবি- দৈনিক অধিকার)

স্বাধীনতার এত বছরেও রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি মেলেনি নওগাঁর রাণীনগরের ১০ বীরাঙ্গনার। উপজেলার আতাইকুলা পাল পাড়া গ্রামে বসবাস করেন- রেনু বালা, মায়া সূত্রধর, রাশমুনি সূত্রধর, কালীদাসী পাল, সুষমা পাল, সন্ধ্যা পাল, ক্ষান্ত বালা পালসহ ১০ বীরাঙ্গনা। তাদের মধ্যে বাণী রাণী পাল ও কান্তা রানী পাল মারা গেছেন।

একাত্তরের সেই দুর্বিষহ যন্ত্রণা ও সামাজিক বঞ্চনার পাশাপাশি অনেকটা দুঃখ-দুর্দশা এবং অভাব-অনটন আর অসুস্থতার মধ্যেই চলছে তাদের জীবন সংগ্রাম। সম্প্রতি সরকার বীরাঙ্গনা নারীদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দিলেও সেই তালিকায় রাণীনগরে এ ১০ বীরাঙ্গনার নাম তালিকাভুক্ত হয়নি।

৭১এ পাক-বাহিনীর নির্যাতনের শিকার কালীদাশী পাল জানান, ওই দিন (স্বাধীনতা যুদ্ধে) সকালে যখন আমাদের গ্রামে পাঞ্জাবী (পাক-বাহিনী) আসে তখন স্বামীসহ ঘরে আত্মগোপনের চেষ্টা করি। তখন স্থানীয় রাজাকাদের সহযোগিতায় আমার স্বামীসহ ৫২ জনকে হত্যা করে আমার ওপর নির্যাতন চালায় পাঞ্জাবীরা। বর্তমানে আমার এক ছেলে আছে। অভাবের সংসারে সে দিন মজুরের কাজ করে। আমিও পেটের তাগিদে কখনো ধান কুড়িয়ে, বয়লারের চাতালে কাজ করে ডাল-ভাত খেয়ে কোনো রকম বেঁচে আছি।

আতাইকুলা গ্রামের শহীদ পরিবারের সদস্য গৌতম পাল জানান, স্বাধীনতার প্রায় পাঁচ দশক সময়েও মুক্তিযুদ্ধের বীরত্ব গাঁথা এ গ্রামের শহীদ ও বীরাঙ্গনার পরিবারের সদস্যরা রাষ্ট্রীয় কোনো সুযোগ সুবিধা পায়নি। এমনকি মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় তাদের নামের স্থান হয়নি।

উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ইসমাইল হোসেন বলেন, এ গ্রামের বীরাঙ্গনা ও শহীদ পরিবারের সদস্যরা জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলে আবেদন করেছে। তার প্রেক্ষিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রধান করে একটি তদন্ত দল সরেজমিনে তদন্ত করেছে। আমি আশা করছি তদন্ত প্রতিবেদন কাউন্সিলে জমা হলে তাদের নাম গেজেটভুক্ত করা হবে। তখন তারা রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতিসহ সকল সুযোগ-সুবিধা পাবেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মামুন বলেন, এ গ্রামের বীরাঙ্গনাদের দ্রুত রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতিসহ সকল সুযোগ-সুবিধা প্রদানের জন্য মন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করব। আমাদের তদন্ত প্রতিবেদন মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল বরাবর পাঠিয়েছি।

স্থানীয় সংসদ সদস্য মো. ইসরাফিল আলম বলেন, বর্তমান সরকার মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ পরিবার ও বীরাঙ্গনাদের বিষয়ে অত্যন্ত আন্তরিক। আতাইকুলা গ্রামের ১০ বীরাঙ্গনার বিষয়ে শীঘ্রই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ওডি/এসএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড