• মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১  |   ৩৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে রচিত নাটক দেশ-বিদেশে প্রদর্শনী প্রয়োজন

  সাঈদ মাহাদী সেকেন্দার

১৩ আগস্ট ২০২৩, ১৪:১১
বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে রচিত নাটক দেশ-বিদেশে প্রদর্শনী প্রয়োজন
বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে রচিত নাটক ও নাট্যকার খান শওকত (ফাইল ছবি)

খুলনা জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার শাহপুর গ্রামে নাট্যকার খান শওকত জন্মগ্রহণ করেন ১৯৬০ সালের জানুয়ারিতে। ৩০ বছর বয়সে ভাগ্যান্বেষণে ১৯৯০ সালে আমেরিকার নিউইয়র্কে যান। সেখানে যেয়েই নির্মাণ করেন প্রবাসী কমিউনিটির শিল্পীদের উদ্যোগে নির্মিত প্রথম ভিডিয়ো চলচ্চিত্র “স্বপ্ন সুখের আমেরিকা”।

প্রায় ৫৩ জন শিল্পী ও কলাকুশলী নিয়ে কাজ করেছিলেন। তিনি এ ছবির পরিচালক ও কেন্দ্রীয় অভিনেতা। ১৯৯৩ সালের ২৩ জুন তারিখে এ ছবিটি মুক্তি পেয়েছিলো।

বাংলাদেশ স্বাধীনের পর তিনি প্রথম একই মঞ্চে দুই বাংলার নাট্যকর্মীদের অংশগ্রহণে মঞ্চস্থ করেছেন ভারত বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু নাট্য উৎসব। খান শওকতের লেখা “বঙ্গবন্ধু নাট্য-সমগ্র”-তে প্রকাশিত বাংলাদেশের জাতির পিতা, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি ও পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে বাঙালী জাতির মুক্তিদাতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনভিত্তিক নাটকসমূহ নিয়ে শোকের মাস আগস্টে বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে প্রদর্শিত হবে তার রচিত নাটক।

নিউইয়র্ক প্রবাসী নাট্যকার খান শওকত তার রচিত নাটক প্রদর্শনী ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নিয়ে কথা বলেন দৈনিক অধিকার এর সাথে। তার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন দৈনিক অধিকার এর ফিচার সম্পাদক সাঈদ মাহাদী সেকেন্দার

অধিকার : আপনার আয়োজনে বঙ্গবন্ধু নাট্য উৎসবের মাধ্যমে কি বার্তা দিতে চেয়েছেন?

খান শওকত : ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর একই মঞ্চে দুই বাংলার নাট্যকর্মীদের অংশগ্রহণে “ভারত বাংলাদেশ মৈত্রী চিরজীবী হোক”- এই শ্লোগান সামনে রেখে ২০১৮ সাল থেকে কলকাতায় এবং বাংলাদেশে “ভারত-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু নাট্য উৎসব” শুরু হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এ উৎসবগুলোতে আমার লেখা ৩৫টা নাটক আমার রচিত বই “বঙ্গবন্ধু নাট্য-সমগ্র” থেকে বিভিন্ন নাটক মঞ্চস্থ হচ্ছে। নাটকের সংলাপের মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জীবনী, তার আদর্শ, সংগ্রাম ও স্বপ্নের কথা তুলে ধরার চেষ্টা করছি এ প্রজন্মের কাছে।

অধিকার : বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশকে আপনি কিভাবে দেখেন?

খান শওকত : বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শুধু বাঙালি জাতির জন্য নয়, বিশ্বের নিপীড়িত-নির্যাতিত গণমানুষের মুক্তির পথপ্রদর্শক। তাই তিনি বিশ্বনেতা মুজিব। যার জন্ম না হলে বাঙালি জাতির স্বাধীনতা অর্জন হতো না। বঙ্গবন্ধুর মৃত্যু হয়েছে, কিন্তু তার আদর্শের মৃত্যু হবেনা। তার স্বপ্নের অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক ও মানবিক সোনার বাংলা বিনির্মাণে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে তার স্বপ্ন ও আদর্শকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। তিনি আমাদের কাজের অনুপ্রেরণা এবং চলার পথের আদর্শ।

অধিকার : আপনার বঙ্গবন্ধু নাট্য-সমগ্র রচনার অনুপ্রেরণা কি?

খান শওকত : ১৭৫৭ সালে নবাব সিরাজউদ্দৌলার মৃত্যু হয়। কিন্তু দেরিতে হলেও তাকে নিয়ে নাটক রচিত হয়েছিলো বলেই পৌনে ৩০০ বছর পরও সেসময়ের পুরো ইতিহাস আমাদের মুখস্থ হয়ে গেছে। এসব চিন্তা থেকে নতুন প্রজন্মের কাছে বঙ্গবন্ধুর কথা নাটকের মাধ্যমে তুলে ধরার চিন্তা করতে থাকি। এরপর তাকে জানার জন্য তথ্যসমৃদ্ধ লেখা বা বই খুঁজতে যেয়ে দেখি ১৯৭৫ থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত সরকার সমূহের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর পক্ষে লেখা বা নাটক বা চলচ্চিত্রে তার সম্পর্কে বলার বিষয়গুলো থামিয়ে রাখা হয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, মনে পড়ল নবাব সিরাজের মৃত্যুর পর বেঈমান মীরজাফর এবং ব্রিটিশরা দীর্ঘকাল ধরে সিরাজের পক্ষে কথা বলা বা কোন কিছু রচনা থামিয়ে রেখেছিল। থামিয়ে রেখেছিল বলেই এক সময় মানুষ প্রতিবাদী হয়ে তার পক্ষে লিখতে শুরু করেন। ঠিক সেই একই ঘটনা। এই ঘটনাটি আমাকে আগ্রহী করে, এবং আমি লিখতে অনুপ্রাণিত হই।

অধিকার : বঙ্গবন্ধু নিয়ে আপনার রচিত নাটক আগস্ট মাসে প্রদর্শনীর পরিকল্পনা নিয়ে যদি বলতেন-

খান শওকত : আমার লেখা নাটকসমূহ নিয়ে চলতি আগস্টে কলকাতা, খুলনা, টঙ্গী, সিলেট, পাবনা এবং ঝিনাইদহে নাট্য প্রদর্শনীর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে মোট ৮টি নাট্য সংগঠন কাজ করছে।

অধিকার : আপনার রচিত বঙ্গবন্ধু নাট্য-সমগ্র নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?

খান শওকত : পরিকল্পনা এবং ভালোবাসা ছাড়া কোনো কাজে সফলতা আসে না। বাংলাদেশে বইমেলার স্বপ্ন সফল করতে ১৯৭২ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি শ্রী চিত্তরঞ্জন সাহা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বটতলায় চটের ওপর ৩২টি বই সাজিয়ে বইমেলার গোড়াপত্তন করেন। এখন তো বইমেলা দুই বাংলা এবং প্রবাসের বিভিন্ন দেশে বইমেলা এক জনপ্রিয় উৎসব। একইভাবে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে দেশে ও প্রবাসে বঙ্গবন্ধু নাট্য উৎসবের স্বপ্ন দেখেছিলাম অনেক আগে।

তিনি আরও বলেন, ১৯৯০ সাল থেকে এ স্বপ্নটা লালন করছি ব্যাপকভাবে। অনেককেই বলেছি কিন্তু তারা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নাটক রচনা করে রাজনৈতিক ঝুঁকি নেবার আগ্রহ দেখাননি। এরপর আমি নিজেই লেখা শুরু করি, এবং লিখতে লিখতে বঙ্গবন্ধুর জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে এ পর্যন্ত মোট ৩৫টা নাটক রচনা করেছি। এই নাটকগুলোর কথা দেশে ও প্রবাসে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দেয়া দরকার।

এ প্রসঙ্গে তার দাবি, আমরা হয়তো এখন ছোট আকারে এসব নাট্য উৎসব শুরু করছি। কিন্তু বিশ্বাস করুন যদি মুজিব সৈনিকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারি, এ আয়োজন অনেক ব্যাপক হবে একদিন। ইতিমধ্যে কলকাতার ৩টি মঞ্চে, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন মঞ্চে, শিল্পকলার উৎসবে এবং বাংলাদেশ পথ-নাটক পরিষদের উৎসবে আমার লেখা নাটক মঞ্চস্থ হয়েছে। এখন আমরা দুই দেশে শুরু করছি। তবে সবার সহযোগিতা পেলে আগামীতে মধ্যপ্রাচ্য, ইউরোপ, আমেরিকা, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশে এ উৎসব করার ইচ্ছা আছে আমাদের। সেই স্বপ্ন নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি।

অধিকার : আপনাকে ধন্যবাদ সময় দেওয়ার জন্য।

খান শওকত : আপনাকে ধন্যবাদ এবং দৈনিক অধিকার পরিবারের প্রতিও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড