• মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

রাইড শেয়ারিংয়ের লাইসেন্স পেল ৬ প্রতিষ্ঠান

  প্রযুক্তি ডেস্ক

১০ জুলাই ২০১৯, ১৪:৪১
রাইড শেয়ারিং
(ছবি: সংগৃহীত)

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) এখন পর্যন্ত দেশে ছয় কোম্পানিকে রাইড শেয়ারিংয়ের লাইসেন্স প্রদান করেছে। তবে এখন পর্যন্ত উবার এই লাইসেন্সের জন্য আবেদন করেনি। তবে এবার পাঠাও এবং ওভাইসহ আরও পাঁচ কোম্পানি অনুমোদন পেয়েছে। 

গত সপ্তাহে দেশে প্রথম লাইসেন্সের অনুমতি পায় পিকমি। পরে কর্তৃপক্ষ নতুন করে এই পাঁচ প্রতিষ্ঠানকে অনুমোদন দেয়। এগুলোর মধ্যে দুটি প্রতিষ্ঠান এখনো সেবা চালু করেনি।   

লাইসেন্স পাওয়া এই কোম্পানিগুলো হচ্ছে- পাঠাও, ওভাই, চালডাল লিমিটেড, ইজিয়ার ও কম্পিউটার সিস্টেমস। এর মধ্যে পাঠাও এবং ওভাই বেশ পরিচিত। 

আর চালডাল ই-কমার্সে গ্রোসারি ব্যবসার জন্য পরিচিত হলেও এবার রাইডিং শেয়ারিং ব্যবসার অনুমোদন নিয়েছে।

আর ইজিয়ার টেকনোলাজি একটুআধটু পরিচিত এবং একেবারেই অচেনা হচ্ছে কম্পিউটার সিস্টেমসের।

আর স্থানীয় রাইড শেয়ারিং কোম্পানি পিকমি গত সপ্তাহে রাইড শেয়ারিংয়ে দেশের প্রথম লাইসেন্স পায়। 

যেসব কোম্পানি এখন এই অনুমোদন পেয়েছে, তাদেরও পিকমির মতো চালক ও তাদের বাহন নিবন্ধনের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।

আর এখন বিআরটিএর কাছে আরও চারটি আবেদন জমা রয়েছে। এর মধ্যে বেশ পরিচিত সহজ রয়েছে। আর বাকি তিনটি একেবারেই নতুন- আকাশ টেকনোলাজি, সিগেস্তা ও প্রবাহন।

তবে দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাইড শেয়ারিং কোম্পানি উবার এখন পর্যন্ত বিআরটিএ কর্তৃপক্ষের কাছে কোনো আবেদন জমা দেয়নি। 

২০১৬ সালের আগে দেশে রাইড শেয়ারিং সার্ভিস চালু হলেও সে বছর উবার, পাঠাও এবং সহজের মতো কিছু প্রতিষ্ঠান রাইড শেয়ারিং শুরু করে। 

আর তখন থেকেই এই সেবাকে নীতিমালায় আনার কথা ওঠে। কারণ, উবার রাইড শেয়ারিং শুরু করার দুদিন পর বিআরটিএ সেটি নিষিদ্ধ করে। পরে ২০১৭ সালের জুনে সবকিছু বিবেচনায় শেয়ারিংয়ের লাইসেন্স দিতে নীতিমালা প্রণয়নের কাজ শুরু হয়।

এই নীতিমালা প্রণয়ন ও বাস্তাবায়নের সঙ্গে বাংলাদেশ পুলিশ, নির্বাচন কমিশন (জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগ) ও বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) সংশ্লিষ্টতা ছিল।

পরবর্তী তিন মাসের মধ্যে নীতিমালার প্রথম খসড়া প্রকাশিত হয়। যেখানে বিআরটিএ সরকারের ১৭টি মন্ত্রণালয় ও সংস্থার মতামত নেয়। খসড়াটি ১৪ ডিসেম্বর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে যায়। আর ২০১৮ সালের ১৫ জানুয়ারি  সেই খসড়া মন্ত্রিসভায় অনুমোদন পায়। 

কিন্তু সেই নীতিমালায় সব আগ্রহীদের জন্য শর্ত পূরণ কঠিন হয়ে পড়লে তা সংশোধন হয় এবং এখন সেই সংশোধনী অনুসারেই লাইসেন্স দেওয়া হচ্ছে।

ওডি/টিএফ 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড