• সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

৫ টাকার বেশি ‘ইমার্জেন্সি ব্যালেন্স’ নয়

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ জুন ২০১৯, ১৯:১৯
মোবাইল অপারেটর
ছবি : প্রতীকী

মোবাইলের ব্যাল্যান্স শেষ হয়ে গেলে কথা বলার জন্য ৫ টাকার বেশি ইমারজেন্সি ব্যালেন্স দিতে পারবে না মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো। এখনও ২০০ টাকা পর্যন্ত ধার দেয় কোনো কোনো অপারেটর। ফলে একটি লাগাম টানল নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

বুধবার (১২ জুন) রাজধানী ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে আয়োজিত এক গণশুনানিতে গ্রাহকের অভিযোগের পর বিটিআরসি এ তথ্য জানায়। টেলিযোগাযোগ সেবার ওপর বিটিআরসি আয়োজনে এ গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। 

অনুষ্ঠানে গ্রাহকরা অভিযোগ করেন-  গ্রাহকের অজান্তেই মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো টাকা কেটে নিচ্ছে। এছাড়া বাণিজ্যিক খুদেবার্তা ও কল করে বিরক্ত করা, নেটওয়ার্কের নিম্নমান, দ্রুতগতির ইন্টারনেট না থাকা, গ্রামে নিম্নমানের সেবা, কলরেট ও ইন্টারনেটের দাম নিয়ে নানা অভিযোগ তুলেন। 

এ সময় একজন গ্রাহক অভিযোগ করেন, অপারেটরগুলো ২০০ টাকা পর্যন্ত ধার দিচ্ছে। ধার নিয়ে টাকা খরচের পর যতবার ছোট অঙ্কের অর্থ রিচার্জ করা হচ্ছে, ততবার টাকা কেটে নেওয়া হয়। মানুষ ধার নেয় সাধারণত জরুরি প্রয়োজনে। তাই পরিমাণ ৫-১০ টাকার বেশি হওয়া উচিত নয়।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিটিআরসির মহাপরিচালক এ বি এম হুমায়ুন কবির বলেন, ইতোমধ্যে একটি নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। যেখানে ৫ টাকার বেশি ধার না দিতে বলা হয়েছে।

গত ২৪ মে গণশুনানিতে অংশ নেওয়ার জন্য আবেদন আহ্বান করা হয়। ২০২ জন নিবন্ধন করেন। তাদের মোট প্রশ্ন ছিল ১ হাজার ৩১৯টি। গণশুনানিতে উপস্থিত থেকে গ্রাহকেরা মোট ১৭টি প্রশ্ন করেন। এছাড়া আমন্ত্রিত অতিথিদের কাছ থেকে ৩০-৩৫টি প্রশ্ন আসে। 

বিটিআরসি জানায়, সকল প্রশ্ন ও অভিযোগের সুরাহা করে আগামী ১৫-২০ দিনের মধ্যে ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে।

ওডি/ আরএডি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড