• রবিবার, ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬  |   ৩৪ °সে
  • বেটা ভার্সন

চকবাজারে আগুন : তবে কি ‘নিমতলী’র ঘটনার পুনরাবৃত্তি?

  অধিকার ডেস্ক    ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:০৬

আগুন
নিমতলী ট্র্যাজেডির ফাইল ছবি

রাজধানীর পুরান ঢাকার চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বেড়েই চলছে লাশের সংখ্যা। দীর্ঘ ১০ ঘণ্টা চেষ্টার পরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসলেও বাড়ছে মৃতের সংখ্যা। তথ্যমতে এখনও পর্যন্ত লাশের সংখ্যা বেড়েছে ৭৬। আহত অবস্থায় বার্ন ইউনিটে রয়েছেন প্রায় অর্ধ শতাধিক মানুষ। এই অগ্নিকাণ্ড মনে করিয়ে দেয় ২০১০ সালের নিমতলীর সেই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের কথা। ঠিক যেন ১০ বছরের ব্যবধানে ‘নিমতলী’র ঘটনার পুনরাবৃত্তি।

নিমতলী ট্র্যাজেডির ফাইল ছবি

২০১০ সালের ৩ জুন নিমতলীর নবাব কাটরায় রাত ৯টার দিকে বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমারের বিস্ফোরণ থেকে একটি প্লাস্টিক কারখানায় আগুন ধরে যায়। পরে সেই আগুন মুহূর্তেই আশপাশের ভবনে ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় ১২৪ জন প্রাণ হারান এবং আহত হন অর্ধশতাধিক। পুড়ে যায় ২৩টি বসতবাড়ি, দোকান ও কারখানা।

পুরান ঢাকার ঘিঞ্জি এলাকায় ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঢুকতে না পারায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে হিমশিম খাচ্ছিল ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। মূলত কেমিক্যালের কারখানা ও গুদামের কারণে এই আগুনের ভয়াবহতা বেড়ে যায়। এ ঘটনার পরে পুরান ঢাকার এসব এলাকা থেকে কারখানা ও গুদাম সরিয়ে নেওয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিলেও তা বাস্তবায়িত হয়নি এখনও। এমনকি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দৃষ্টির অগোচরে এক অসাধু শ্রেণির মানুষ চালিয়ে যাচ্ছে এসব ব্যবসা।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন কেমিক্যালের গুদাম ও কারখানা সরানোর উদ্যোগ নেওয়ার আশ্বাস দিলেও তা কার্যকর হয়নি। দীর্ঘ দশ বছর পর একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি জনমনে প্রশ্ন তোলে, তবে কি নিমতলীর ঘটনা আমাদের শিক্ষা দেয়নি? এই দায়ভার কার? কেন প্রশাসন এসব কারবার বন্ধে ব্যর্থ হচ্ছে? অনেক প্রশ্ন নাড়া দিলেও এই উত্তর নেই কারোর কাছে। এসব প্রশ্নের উত্তরে প্রশাসন মুখে কুলুপ এঁটে আছে।

চকবাজারে আগুন

উল্লেখ্য, বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টা ৩৮ মিনিটে রাজধানীর পুরান ঢাকার চকবাজার থানার চুড়ি হাট্টা শাহী মসজিদের সামনে একটি বহুতল ভবনে আগুন লাগে। প্রথমে ওয়াহেদ ম্যানশন নামের একটি ভবনে আগুন লাগে। এ ভবনের নীচতলায় কেমিক্যাল গোডাউন এবং প্লাস্টিক তৈরির উপকরণের দোকান রয়েছে। ভবনটির পাশের ওয়াহিদ মঞ্জিল, আমানিয়া হোটেল, রাজ হোটেল এবং উল্টো পাশের চারটি বাসায় আগুন ছড়িয়ে পরে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড