• শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ডিনামাইট দিয়ে বিজিএমইএ ভবন না ভাঙার কারণ

  অধিকার ডেস্ক

২২ অক্টোবর ২০১৯, ১৬:১৫
বিজিএমইএ ভবন
বিজিএমইএ ভবন (ছবি : সংগৃহীত)

ঢাকার হাতিরঝিলে অবৈধভাবে নির্মাণ করা বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) বহুতল ভবন ডিনামাইট ব্যবহারে ভাঙার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। তখন বলা হয়েছিল, ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানি ঠেকাতে ডিনামাইট বা নিয়ন্ত্রিত বিস্ফোরণ পদ্ধতি ব্যবহার করা হবে। কিন্তু এবার এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে রাজউক কর্তৃপক্ষ। আলোচিত এ ভবন সনাতন পদ্ধতিতেই ভাঙা হবে।

মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) দুপুরে এ ব্যাপারে রাজউকের প্রধান প্রকৌশলী এএসএম রায়হানুল ফেরদৌস বলেন, আসলে ডিনামাইট পদ্ধতিতে ভবন ভাঙা ব্যয়বহুল। এ জন্য সনাতন পদ্ধতিতেই ভাঙার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

রাজউকের প্রধান প্রকৌশলী জানান, ভবনটিতে বিজিএমইএর যেটুকু মালামাল অবশিষ্ট ছিল, তা সোমবার সরিয়ে নেওয়া শুরু হয়েছে। এতে সাত দিন সময় লাগবে। তারপরই ভবন ভাঙার কাজ শুরু হবে।

বাংলাদেশে এর আগে কখনো এত বড় ভবন ভাঙা হয়নি। এক দশক আগে তেজগাঁওয়ের র‌্যাংগস ভবন ভাঙা হয়েছিল, তা বিজিএমইএ ভবনের চেয়ে ছোট ছিল।

এ কাজে কিছু আধুনিক যন্ত্রপাতি ব্যবহৃত হবে বলে জানিয়েছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) কর্মকর্তারা।

বিজয় সরণির র‌্যাংগস ভবনের মতো দুর্ঘটনা ও প্রাণহানি যাতে না ঘটে, সে জন্য শ্রমিকদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার রাখতে হবে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

২০১১ সালের ৩ এপ্রিল হাইকোর্ট এক রায়ে বিজিএমইএর ভবনটিকে ‘হাতিরঝিল প্রকল্পে একটি ক্যানসারের মতো’ উল্লেখ করে রায় প্রকাশের ৯০ দিনের মধ্যে সেটি ভেঙে ফেলতে নির্দেশ দেন। এর বিরুদ্ধে বিজিএমইএ লিভ টু আপিল করে, যা ২০১৬ সালের ২ জুন আপিল বিভাগে খারিজ হয়। পরে ভবন ছাড়তে উচ্চ আদালতের কাছে সময় চায় বিজিএমইএ।

প্রথমে ছয় মাস এবং পরে সাত মাস সময় দেওয়া হয়। সর্বশেষ গত বছর আবার এক বছর সময় বাড়ানো হয়। সে সময় ভবিষ্যতে আর সময় চাইবে না বলে মুচলেকা দেয় বিজিএমইএ। সেই সময় শেষ হয় গত ১২ এপ্রিল। এরপর ১৬ এপ্রিল বিজিএমইএ ভবনে তালা ঝুলিয়ে দেয় রাজউক।

হাতিরঝিলে গড়ে ওঠা বিজিএমইএ ভবনের নির্মাণকাজ শেষ হয় ২০০৬ সালের দিকে। জলাশয়ে ভবনটি নির্মাণ করায় শুরু থেকেই এর বিরোধিতা করে আসছিলেন পরিবেশবাদীরা। পরে বিষয়টি আদালতে গড়ায়।

ওডি/এমআর/এমআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড