• রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬  |   ১৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

এফআর টাওয়ারে অগ্নিকাণ্ড: জমির মালিকসহ ৩ জন কারাগারে

  অধিকার ডেস্ক

১৭ নভেম্বর ২০১৯, ২৩:৫৫
এফআর টাওয়ার
এফআর টাওয়ার (ছবি : সংগৃহীত)

রাজধানীর বনানীর বহুতল ভবন এফআর টাওয়ার নির্মাণে নকশা জালিয়াতি মামলায় টাওয়ারের জমির মালিক এস এম এইচ আই ফারুকসহ তিনজন কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

রবিবার (১৭ নভেম্বর) আসামিরা ঢাকার আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করলে আদালত তাদের জামিন আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। ঢাকা মহানগরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ ইমরুল কায়েস এই আদেশ দেন। 

কারাগারে পাঠানো অপর দুই আসামি হলেন- রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) সাবেক ইমারত পরিদর্শক আওরঙ্গজেব সিদ্দিকী ও সাবেক উপপরিচালক শওকত আলী।

দুদক সূত্র জানায়, গত ২৫ জুন রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান হুমায়ূন খাদিম, টাওয়ারের জমির মালিক এস এম ফারুক, রূপায়ণ গ্রুপের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলীসহ ২৩ জনের বিরুদ্ধে আলাদা দুটি মামলা করে দুদক।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ২৮ মার্চ বনানীর এফআর টাওয়ারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এর পরপরই ভবনটির নির্মাণে নকশা জালিয়াতি ও অনিয়মের ওঠে। এ ঘটনায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে মামলা করা হয়। 

এজহারভুক্ত তিন আসামি হলেন- এফআর টাওয়ারের জমির মালিক এস এম এইচ আই ফারুক, ভবন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান রূপায়ণ গ্রুপের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী খান মুকুল এবং এফআর টাওয়ারের বর্ধিত অংশের মালিক বিএনপি নেতা তাসভির উল ইসলাম।

এফআর টাওয়ারে অনিয়মের ঘটনায় গঠিত গণপূর্ত মন্ত্রণায়ের তদন্ত কমিটি অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে দায়ী করা হয়েছে। গত ২২ মে গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এক সংবাদ সম্মেলনে তদন্ত কমিটির ওই প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। 

ওই দিন তিনি বলেন, এফআর টাওয়ারের নকশা অনুমোদনে বিধি লঙ্ঘন এবং নির্মাণের ক্ষেত্রে ত্রুটি-বিচ্যুতি ছিল। শুধু তা-ই নয়, অবৈধভাবে নির্মাণ করা হয়েছে ভবনটির ১৯ থেকে ২৩ তলা। আর এসব অনিয়মের সঙ্গে জড়িত ছিলেন রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান মো. হুমায়ূন খাদেমসহ অর্ধশতাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী। 

মন্ত্রণায়ের তদন্ত প্রতিবেদনে ভবন নির্মাণের অনিয়মের বিষয়ে যাদের দায়ী করা হয়েছে, তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিরা হলেন- রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান হুমায়ূন খাদেম, রাজউকের সাবেক সদস্য ডি এম ব্যাপারী, রাজউকের সাবেক নগর-পরিকল্পনাবিদ জাকির হোসেন, সাবেক প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইদুর রহমান, সাবেক অথরাইজড অফিসার-২ সৈয়দ মকবুল আহমেদ, সাবেক সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ উল্লাহ, জমির মূল মালিক এস এম এইচ আই ফারুক, সাবেক অথরাইজড অফিসার এ টি এম কামরুজ্জামান, সাবেক অথরাইজড অফিসার নাজমুল হুদা, সাবেক সহকারী অথরাইজড অফিসার মো. বদরুজ্জামান মিয়া, সাবেক সহকারী অথরাইজড অফিসার বশির উদ্দিন খান, ইমারত পরিদর্শক ইমরুল কবির, ইমারত পরিদর্শক মো. শওকত আলী, উচ্চমান সহকারী মুহাম্মদ আবদুর রহমান, উচ্চমান সহকারী (সাময়িক বরখাস্ত) মো. সফিউল্লাহ, নিম্নমান সহকারী মো. মজিবুর রহমান (সাময়িক বরখাস্ত), সাবেক তত্ত্বাবধায়ক জাহানারা বেগম, বিষয় পরিদর্শক মো. মেহেদুজ্জামান, সহকারী পরিচালক (এখন সাবেক) শাহ মো. সদরুল আলম, উপপরিচালক মুহাম্মদ শওকত আলী (প্রেষণ), পরিচালক শামসুল আলম (প্রেষণ), সদস্য (এস্টেট) রাজউল করিম তরফদার ও তত্ত্বাবধায়ক মোফাজ্জল হোসেন প্রমুখ।

ওডি/ এফইউ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড