• বুধবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২০, ১৫ মাঘ ১৪২৬  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পাণ্ডুলিপির অব্যক্ত কথা

মন খারাপ দূরে ফেলে খিলখিলিয়ে হেসে উঠতে ‘অপারেশন নোয়াখালী’

  নাঈম হাসান

১৪ জানুয়ারি ২০২০, ১৫:০৮
উপন্যাস
প্রচ্ছদ : রম্য উপন্যাস ‘অপারেশন নোয়াখালী’

২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাসের কনকনে শীতের সময়। তখনও আমার কোনো বই প্রকাশিত হয়নি। রহস্যপত্রিকা ও বিভিন্ন লিটল ম্যাগ, অনলাইন জার্নালে টুকটাক লিখি। সেই সময়ে মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছিল এমন এক গল্পের, যার সময় হবে শীতকালের পটভূমি এবং আমার পৈতৃক নিবাস নোয়াখালীতে। গল্পটি হবে হাসির। যার শুরু থেকে শেষ অবধি পাঠকের ঠোঁটের কোনায় হাসির রেখা ঝুলিয়ে রাখবে। যে গল্প পাঠকের মন ভালো করে দিবে, বিষণ্ন মানুষের জন্যে হবে এক দারুণ উপহার।
  
শুরু করলাম লিখা এবং লিখতে লিখতে একপর্যায়ে দেখলাম আর গল্প নেই হয়ে উঠেছে উপন্যাস। উপন্যাসটি লিখতে সময় লেগেছে প্রায় পাঁচ মাস। আমি বরাবরই কম লিখি। এবং যাই লিখি বেশ সময় নিয়েই লিখি, ভেবে চিন্তে লিখি। তা কবিতা, গল্প, উপন্যাস যাই হোকনা কেন। 

উপন্যাসের কাহিনি পাঁচ বন্ধুর। যার মধ্যে প্রেমযোদ্ধা বন্ধুর প্রেমিকার বিয়ে ঠেকাতে নোয়াখালী রওনা দেয় তার অন্যান্য বন্ধুরা। কখনো তারা সহযোগিতার হাত বাড়ায় আবার কখনো নিজেরাই ফেলে দিচ্ছে তাকে ঝামেলায়। উপন্যাসের বাঁকে বাঁকে এই সকল ঝামেলায় যুক্ত হয় বিভিন্ন বিচিত্র, উদ্ভট ও মজার সব চরিত্র। 

নোয়াখালীতে পা দিতে না দিতেই শুরু হয় একের পর এক বিপত্তি ও হাস্য-রসাত্মক সব ঘটনা। এই সবকিছু নিয়েই দম ফাটানো হাসির রম্য উপন্যাস অপারেশন নোয়াখালী। 

উল্লেখ, উপন্যাসের প্রধান কিছু চরিত্রের সাথে আমার বাস্তব জীবনের দেখা কিছু চরিত্রে মিল রেখেই করা। যেমন উপন্যাসের অন্যতম চরিত্র ইংলিশ ফারুক। যিনি ভুলভাল ইংলিশ বলেন এবং সর্বস্থানে নাক গলাতে সর্বদা তৈরি থাকেন। এছাড়াও তিনি ভারতীয় অ্যাকশন সিনেমার বিশাল ফ্যান, এলাকার প্রচণ্ড প্রভাবশালী ব্যক্তি। এই চরিত্রটি বাস্তবের এক চরিত্র থেকেই রূপদান করা। যিনি সকলকে ভুল ইংরেজিতে প্রশ্ন করেন এবং জবাব না দিতে পারলে বকাঝকা করেন। 

অপারেশন নোয়াখালী লিখা শেষ হবার পর তা ল্যাপটপে সেইভ করাই ছিল। ২০১৯ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলা যখন একদম শেষের পর্যায়, তখন থেকেই মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছিল আমার দ্বিতীয় উপন্যাস কী হতে যাচ্ছে?  

এ দিকে সকলের ভালোবাসায় আমার প্রথম রম্য উপন্যাস ‘এ্যারেঞ্জ ম্যারেজ’ বেশ প্রশংসিত হয়েছিল এবং সে বছর চন্দ্রবিন্দু প্রকাশন থেকে rokomari.com এ বেস্ট সেলার নির্বাচিত হয় এবং বইমেলাতেও চন্দ্রবিন্দু প্রকাশনের অন্যতম বেস্ট সেলার ছিল ‘অ্যারেঞ্জ ম্যারেজ’। সেই ভালোবাসার ফলশ্রুতিতেই আমি সিদ্ধান্ত নিই আমার দ্বিতীয় উপন্যাসটিই হবে ‘অপারেশন নোয়াখালী’।

আরও পড়ুন : একদিন চন্দ্রার বনে থেকে ‘জোছনা রাতে জাগে আমার প্রাণ’

২০১৯ সালের জুলাই মাসের দিকে আবার হাত দিলাম সেই উপন্যাসে। প্রুফ রিডিং, অন্যান্য ভুল শুধরানো, উপন্যাসে কিছু চেঞ্জ এবং উপন্যাসটি আরও দীর্ঘায়িত করলাম। এই কাজেও মাসখানেক সময় নিলাম। এই স্থানেও চেষ্টা করেছি কীভাবে উপন্যাসের হাসির উপাদানগুলো আরও বৃদ্ধি করা যায় এবং সম্পূর্ণ কাজ শেষ করেই পাণ্ডুলিপি পাঠিয়ে দিলাম অনুপ্রাণন প্রকাশনে। সকলের ভালোবাসা ও আশীর্বাদে একুশে বইমেলা ২০২০-এ থাকছে দম ফাটানো হাসির রম্য উপন্যাস ‘অপারেশন নোয়াখালী।’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড