• বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ৭ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

জীবনের কঠিন পরিস্থিতি থেকেই শাম্মীর ব্যবসায়িক জীবনের সূচনা

১৬ জুলাই ২০১৯, ১১:৩৫
শাম্মী আকতার আলো
নিজের ডিজাইন করা শাড়িতে 'শাম্মী আকতার আলো'

মানুষকে সবচেয়ে বেশি দায়িত্বশীল করে তোলে তার পরিস্থিতি, একই সঙ্গে করে দেয় সাহসীও। প্রিয় মানুষের খারাপ সময়ে তার পাশে দাঁড়ানো, তার জন্য কিছু করা কিংবা হুট করে সাহস করেই নতুন পথে নামার উদাহরণ মাঝেমধ্যেই আমাদের চোখের সামনে আসে। এমনই একটি উদাহরণ আলো, যার পুরো নাম শাম্মী আকতার আলো। 

স্বামীর চাকরিতে সমস্যা দেখা দেওয়া, কিছুটা আর্থিক অস্বচ্ছলতা, সন্তানদের জন্ম দেওয়া— অনেক কষ্টের গল্প জীবন ঝুড়িতে জমিয়েছেন শাম্মী। সব পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই করে জিতেছেনও বেলা শেষে। তাই তো বর্তমানে নিজেকে একজন উদ্যোক্তা হিসেবে পরিচিত করতে পারেন অন্যদের কাছে। 

আইন নিয়ে পড়াশোনা করেছেন শাম্মী। তবে বর্তমানে সেদিক থেকে কিছুটা দূরেই রয়েছেন। কারণ, দুটি ছোট সন্তানের মা তিনি। তাদের সামলে কোর্টে দৌড়ঝাঁপ করা হয়ে ওঠে না। তবে সন্তানরা একটু বড় হলেই পেশাগত দায়িত্বে মনোযোগী হবেন। বর্তমানে যে একেবারে বেকার শাম্মী এমনটা বলা যাবে না। কারণ ঘরে বসেই সামলে যাচ্ছেন নিজের অনলাইন প্রতিষ্ঠান 'শাম্মী'স এক্সক্লুসিভ'।

২০১৭ সালে ব্যবসা জগতে আসেন শাম্মী। তখন তিনি ছিলেন সন্তান সম্ভবা। হঠাৎ করেই স্বামীর চাকরিতে কিছু সমস্যা দেখা দিল। তিনি ছিলেন মায়ের বাড়িতে। বাবাকে হারিয়েছেন তারও আগে। স্কুল শিক্ষিকা মা সবরকম সাহায্যই করতেন তিনি মনে শান্তি মিলত না শাম্মীর। বারবার ভাবতেন, এভাবে আর কত? 

শাম্মী বলেন, কিছু একটা করার কথা ভাবতাম। বাচ্চাদের বাবা নিজের মতো চেষ্টা করতে লাগলেন, আমি আমার মতো। আল্লাহ্‌র নাম নিয়ে কিছু শাড়ি দিয়ে পেইজ খুললাম। কিন্তু পুরো ব্যাপারটা আমি যতটা সহজ ভেবেছিলাম, ততটা সহজ ছিল না। যে সোর্সের ভরসায় পেইজ খুললাম তারা তেমন আগ্রহ দেখাল না। 

s

'শাম্মী'স এক্সক্লুসিভের' কিছু পণ্য 

আরও কয়েকজনের সাথে কথা বললাম। ঠিক করলাম মসলিন বা সিল্কের শাড়িগুলোতে কাজ করিয়ে বিক্রি করব। কারণ, নামিদামি শোরুমগুলোতে এমন শাড়ির যে দাম নেয় আমি তার থেকে ৫/৬ হাজার কমে দিতে পারতাম। কিন্তু নতুন বলে তেমন ভরসা পেল না ক্রেতারা।’

এরই মধ্যে কন্যা সন্তানের মা হলেন শাম্মী। সবকিছু একা সামলাতে গিয়ে পেইজে আর সময় দেওয়া হচ্ছিল না। স্বামী নতুন কর্মস্থলেও চলে আসলেন। নতুন করে গুছিয়ে সংসার শুরু করলেন। এরপর বড় বিরতি শেষে ২০১৮ সালের অক্টোবরে আবার ফিরলেন ব্যবসায়। 

শাম্মী বলেন, ‘এবার খুব ভালো কিছু সোর্স পেয়ে গেলাম। পেইজে রাখলাম দেশি বিদেশি পোশাক আর গয়না। সাড়াও পেলাম দারুণ। সবসময় পরার উপযোগী পোশাকগুলো বিক্রি হলো ভালোভাবে। আর এরপর থেকে ক্রেতাদের ভরসা আর ভালোবাসাকে সঙ্গী করে চলছে আমার পথচলা।’

s

''শাম্মী'স এক্সক্লুসিভের' কিছু পণ্য 

শিক্ষক মা-বাবার ছোট সন্তান শাম্মী। মা, বাবা, ভাই সবসময় চাইতেন তিনি কিছু করেন। উৎসাহ দিতেন স্বামীও। এখনো ব্যবসার কাজে মা, ভাই আর স্বামী উৎসাহ পান শাম্মী। যখনই কারও ব্যবহারে কষ্ট পান কিংবা ভাবেন ব্যবসা ছেড়ে দেবেন তখনই স্বামী বোঝান। সেই কথাগুলোই শক্তি দেয় শাম্মীকে। 

নিজের বর্তমান অবস্থানের জন্য মাকেও কৃতজ্ঞতা জানান শাম্মী। তিনি বলেন, ‘নানান প্রতিকূলতার জন্য ছাত্রজীবনে বিয়ে হয়েছে, আমার বিয়ের পর আব্বু মারা যান। কিন্তু মা হাল ছাড়েননি। সবসময় আমার পিছনে লেগে থেকেছেন, এখনো আছেন যেন আমি ভালো কিছু করি, স্বাবলম্বী হই। তার জন্যই আমি আইনজীবী হতে পেরেছি, সাথে ব্যবসায়ী।’

কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার ভাই থেকে পেয়েছেন টেকনিক্যাল সাপোর্ট, শিখেছেন কম্পিউটারের যাবতীয় বিষয়। চরম হতাশার দিনগুলোতে শাম্মীর পাশে ছিলেন আরও একজন। তিনি হলেন শাম্মীর সবচেয়ে কাছের বান্ধবী নিশি। বর্তমানে স্বামী ও সন্তান নিয়ে অস্ট্রেলিয়াতে থাকা এই বান্ধবী সম্পর্কে শাম্মী বলেন, ‘ও সাহস না যোগালে হয়তো গল্পটা অন্যরকম হতো। হতাশার দিনগুলোতে ও সাহস দিয়েছে বলেই আমি আজ ব্যবসায়ী।’

‘শাম্মী’স এক্সক্লুসিভ’ এ রয়েছে নানারকম পোশাক ও শাড়ি। এবার ঈদে ক্রেতাদের পাশাপাশি শাম্মীর মা, শাশুড়ি, ভাবি সবাই ‘শাম্মী’স এক্সক্লুসিভ’ এর শাড়ি পরেছে। এই ব্যাপারটি বেশ ভালো লাগা অনুভূতি দেয় তাকে। ভালো লাগে যখন কেউ নিজের ভালোলাগার কথা জানায়।  

আস্তে আস্তে নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পরিধি বাড়াতে চান শাম্মী। ধরে রাখতে চান নিজের সততা। ব্যবসায়ী এই নারীর জন্য ‘দৈনিক অধিকারের’ পক্ষ থেকে রইল শুভেচ্ছা। 

‘শাম্মী’স এক্সক্লুসিভের’ ফেসবুক পেজের লিঙ্ক- Shammi's Exclusive

‘শাম্মী’স এক্সক্লুসিভের’ ফেসবুক গ্রুপের লিঙ্ক- shammi's exclusive (authentic collections)

ওডি/এনএম 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড