• বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

ব্রেন অ্যানিয়োরিজম : জেনে নিন দরকারি কিছু প্রশ্নের উত্তর

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি

০৭ আগস্ট ২০১৯, ১২:৩৬
ব্রেন অ্যানিয়োরিজম
ছবি : প্রতীকী

ব্রেইন হ্যামারেজ সম্পর্কে অনেকে জানলেও, এর পেছনে থাকা ‘ব্রেন অ্যানিয়োরিজম’ নামক কারণটিকে অনেকেই চেনেন না। আমাদের মস্তিষ্কে রক্তনালীর মধ্যে অনেকসময় বেলুনের মতো ফোলা অংশ তৈরি হয়। বাইরে থেকে ছোট জামের মতো দেখতে লাগে এই গোলাকৃতির জিনিসটিকে। সঠিক সময়ে চিকিৎসা না নিলে এটি মস্তিষ্কে রক্তপাত ঘটিয়ে ব্রেইন হ্যামারেজের কারণও হয়ে পড়তে পারে। এই ভয়ংকর সমস্যাটি নিয়ে কিছু প্রয়োজনীয় প্রশ্নের উত্তর জেনে নিন এখনই- 

১। ব্রেন অ্যানিয়োরিজম কি নারী-পুরুষভেদে বেশি কিংবা কম হয়ে থাকে?

মজার ব্যাপার হলো, অন্যান্য ক্ষেত্রে মস্তিষ্কের এই সমস্যাগুলো পুরুষের মধ্যে বেশি দেখা গেলেও নারীরাই ব্রেন অ্যানিয়োরিজমে বেশি ভুগে থাকেন। এখানে অনুপাতটা অনেকটা নারী ও পুরুষের মধ্যে যথাক্রমে ৩:২। এটি মূলত এক ধরণের সেরেব্রোভাসকুলার ডিজিজ। যেটি সাধারণত নারীদের ক্ষেত্রে ৫২ বছর বয়সে হয়ে থাকে। তাই, এই বয়সের কমবয়সীদের ক্ষেত্রেই এই অসুখ বেশি দেখা দেয়। 

২। কেন এই সমস্যাটি দেখা দেয়?

উচ্চ রক্তচাপ। ধূমপান, বংশগত কোন জেনেটিক সমস্যা- এমন নানাবিধ কারণ থাকতে পারে যেগুলোর ফলে ব্রেন অ্যানিয়োরিজম তৈরি হয়। পরিবারে দুইজনের মধ্যে এই সমস্যা দেখা দিলেই বাকিদের এ ব্যাপারে সতর্ক থাকা উচিৎ। তবে স্বাস্থ্যকর জীবন যাপন না করার কারণেই এটি বেশি হতে দেখা যায়। মস্তিষ্কে রক্তপাতের মতো সমস্যা সৃষ্টি করা এই অসুখটি ৪০-৬০ বছর বয়সীদের মধ্যে বেশি দেখা দেয়। তবে মোট স্ট্রোক সংখ্যার মধ্যে ব্রেন অ্যানিয়োরিজমের কারণে হওয়া স্ট্রোকের সংখ্যা মাত্র ৪ শতাংশ। এটি বেশ বিরল। অবশ্য বিরল হলেও ব্রেন অ্যানিয়োরিজমকে ভয়াবহ বলা যায় সহজেই। 

৩। ব্রেন অ্যানিয়োরিজমের লক্ষণগুলো কী?

কোনো ব্যক্তির ক্ষেত্রে ব্রেন অ্যানিয়োরিজম দেখা দিলে তিনি নিয়মিত মাথাব্যথা অনুভব করেন। তবে আপনার ছোটখাটো মাথাব্যথায় উদ্বিগ্ন হওয়ার কোন কারণ নেই। কারণ, ব্রেন অ্যানিয়োরিজমের কারণে যে মাথাব্যথা তৈরি হয় সেটি বেশ ভয়ংকর। সাধারণ মাথাব্যথার চাইতে অনেক বেশি আলাদা এটি। আর এই ব্যথা প্রতিনিয়ত শুধু বেড়েই যাবে। 

মূলত, মাথার ভেতরে রক্তপাতের কারণেই এমন ব্যথা তৈরি হয়। আক্রান্ত ব্যক্তি এক্ষেত্রে কথা বলতেও সমস্যা বোধ করেন। জ্ঞান হারানোটাও অস্বাভাবিক কিছু নয়। এমন লক্ষণ দেখা দিলে অপেক্ষা না করে চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন। এতে করে মস্তিষ্ক পরীক্ষার মাধ্যমে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হবে।

তবে ব্রেন অ্যানিয়োরিজমের সবচাইতে কঠিন দিকটি হচ্ছে এই যে, অনেকসময় এর কোন লক্ষণ দেখা যায় না। ফলে, কিছু বুঝে ওঠার আগেই বড় রকমের সমস্যা ভোগ করেন আক্রান্ত ব্যক্তি।

৪। ব্রেন অ্যানিয়োরিজমের ফলে কী সমস্যা হতে পারে?

সাধারণত, ব্রেন অ্যানিয়োরিজমে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে এক তৃতীয়াংশ রোগী হাসপাতালে আসার আগেই মৃত্যুবরণ করেন। অন্যদিকে, বাকি একটি ভাগ বাজেভাবে আক্রান্ত হয়ে পক্ষাঘাতগ্রস্থ হয়ে পড়েন। আর এই তালিকার শেষভাগের রোগীরা কোনরকম সমস্যা ছাড়াই ব্রেন অ্যানিয়োরিজমের হাত থেকে মুক্তি পেতে সক্ষম হন। 

৫। ব্রেন অ্যানিয়োরিজম কীভাবে হয়ে থাকে?

সাধারণত, ব্রেন অ্যানিয়োরিজমের ক্ষেত্রে আমাদের মস্তিষ্কের রক্তনালীর পর্দা পাতলা হতে থাকে এবং রক্তের চাপ না সহ্য করতে পেরে ফেটে যায় এবং রক্ত বাইরে বেরিয়ে পড়ে। আমাদের শরীরের অন্যান্য অংশের চাইতে মস্তিষ্কের রক্তনালী কিছুটা ভিন্ন। মস্তিষ্কে একটি রক্তনালীতে কোন সমস্যা হলে সেই রক্ত অন্য রক্তনালী দিয়ে প্রবাহিত হয়। এর ফলে হুট করে কোন রক্তনালীর ওপরে অনেক বেশি চাপ পড়ে যায় এবং সেটি এই চাপ নিতে না পারায় সমস্যা তৈরি হয়। 

ব্রেন অ্যানিয়োরিজম নিয়ে চিন্তিত? ইতিবাচক ব্যাপার হচ্ছে এই যে, আপনার এই চিন্তা দূর করতে চিকিৎসকেরা কাজ করে চলেছেন। ফলে, আগের চাইতে অনেক সহজ উপায়ে এই সমস্যাকে প্রতিহত করার চেষ্টা করছেন তারা। কয়েল, বিশেষ ধরণের স্টেন্টের ব্যবহার এবং ছোটখাটো সার্জারির মতো ব্যাপারগুলো আপনার ব্রেন অ্যানিয়োরিজম থেকে দূরে রাখতে না পারলেও এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার ক্ষেত্রে সাহায্য করতে সক্ষম হবে। 

তাই, স্বাস্থ্যকর জীবন যাপন করুন, সুস্থ থাকুন এবং যেকোন সমস্যায় চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন। এতে করে শুধু ব্রেন অ্যানিয়োরিজম নয়, অন্য যেকোন শারীরিক সমস্যার হাত থেকেই দূরে থাকতে পারবেন আপনি। 

সূত্র- ওয়েবএমডি।

ওডি/এনএম

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড