• শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মাছ খেলে কমবে হাঁপানি

  স্বাস্থ্য ডেস্ক

১৬ নভেম্বর ২০১৯, ২২:১৬
স্যামন মাছ
স্যামন মাছ (ছবি : সংগৃহীত)

অনেকেই হাঁপানি বা শ্বাসকষ্ট জনিত রোগে ভোগেন। রোগটি ছোট থেকে বড় কাউকেই ছাড় দেয় না। অনেকে অল্প বয়সেই হাঁপানি রোগে আক্রান্ত হন। হোমিওপ্যাথি কিংবা এলোপ্যাথি ওষুধে ভালো না হওয়ায় কেউ কেউ আশা ছেড়ে দেন। তবে ঘরোয়া উপায়ে এই শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যার সমাধান মিলতে পারে। এ ক্ষেত্রে আপনার খাদ্যাভাসে যোগ করতে পারেন সামুদ্রিক স্যামন, সার্ডিন ও ট্রাউটের মতো মাছগুলো। কিন্তু, এটি নিয়মিত ফলো করতে হবে।

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার গবেষকরা এ বিষয়টি নিয়ে গবেষণা করেছেন। সেখানে দেখা গেছে, স্যামন, সার্ডিন, ট্রাউটের মতো সামুদ্রিক মাছগুলোর মধ্যে বিশেষ কিছু উপাদান রয়েছে। যেগুলো ছোট বাচ্চাদের হাপাঁনির প্রবণতাকে অনেকাংশে কমিয়ে দেয়। তাই, এখন থেকেই খাদ্যাভাসে যোগ করুন উপাদানগুলোকে।

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, চিনি, লবণ ও অতিরিক্ত চর্বি জাতীয় খাবার শিশুকে হাঁপানি রোগে আক্রান্ত করতে সরাসরি প্রভাবিত করে।তবে, এটাও প্রমাণিত যে স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যতালিকা এবং সঠিক উপাদান শিশুদের হাঁপানি জনিত সমস্যা কমাতে পারে৷

শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত ৬৪ জন শিশুর ওপর গবেষণাটি চালানো হয়। যেখানে বাচ্চাদের দুইটি দলে ভাগে ভাগ করে নিয়ে পরীক্ষাটি করা হয়। প্রথম দলকে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য বিশেষ ডায়েট দেওয়া হয়। তাদের প্রচুর পরিমাণ তেলযুক্ত মাছ খাওয়ানো হয়।

দ্বিতীয় দলকে দেওয়া হয় সাধারণ খাবার। যেসব বাচ্চারা বিশেষ তেলযুক্ত মাছের ডায়েটটি ফলো করেছিল, তাদের মধ্যে অনেক পরিবর্তন এসেছে। তেলযুক্ত সামুদ্রিক মাছগুলোর মধ্যে ওমেগা-৩ থাকে। যা শিশুদের শ্বাসকষ্টের প্রবণতাকে অনেকাংশে কমিয়ে দেয়।

ওডি/টিএএফ

স্বাস্থ্য-ভোগান্তি, নতুন পরিচিত অসুস্থতার কথা জানাতে অথবা চিকিৎসকের কাছ থেকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরামর্শ পেতেই-মেইলকরুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব এবং সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য সমস্যার পরামর্শ দেবার প্রচেষ্টা থাকবে আমাদের।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড