• বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

বশেমুরবিপ্রবির সমস্যা সমাধানে কমিটি, আন্দোলন চলবে

  বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৭:৫০
ইতিহাস বিভাগ
বিভাগ অনুমোদনের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ও অসুস্থ শিক্ষার্থী সৈয়দা মৌমিতা এনি (ছবি : সম্পাদিত)

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) ইতিহাস বিভাগ অনুমোদনের দাবিতে টানা ১৩ দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম শুরু হওয়ার কথা থাকলেও আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা ভবনের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে রাখে। ফলে টানা ৮ম দিনের মতো কার্যত বন্ধ রয়েছে বশেমুরবিপ্রবির অ্যাকাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম।

এদিকে বেলা দেড়টায় বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬ সদস্যের প্রতিনিধি দলের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। রেজিস্ট্রার দপ্তর সূত্রে জানা যায়, ইতিহাস বিভাগের অনুমোদনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক সমস্যা সমাধানের জন্য ইউজিসি কর্তৃক উচ্চতর ক্ষমতাসম্পন্ন সাত সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সাত সদস্যের কমিটিতে প্রধান হিসেবে রয়েছেন অধ্যাপক ড. দিল আফরোজ বেগম। অন্য ছয় সদস্য হলেন- অধ্যাপক ড. মো. আলমগীর হোসেন, অধ্যাপক ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক অধ্যাপক ড. কামাল হোসেন (সদস্য সচিব), বশেমুরবিপ্রবির চলতি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শাহজাহান, বশেমুরবিপ্রবির রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. নূরউদ্দিন আহমেদ এবং বশেমুরবিপ্রবির জীববিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এম এ সাত্তার।

ইতিহাস বিভাগ অনুমোদনের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র কারিমুল দৈনিক অধিকারকে জানান, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলবে। 

এদিকে বেলা ১টায় আন্দোলন কর্মসূচি পালন করার সময় জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন এক শিক্ষার্থী। অসুস্থ শিক্ষার্থীর নাম সৈয়দা মৌমিতা এনি। তিনি ইতিহাস বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। বর্তমানে তিনি গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আরও পড়ুন : ৮ বছরে ২০০ ধাপ পেছাল ঢাবি

প্রসঙ্গত, ইউজিসির অনুমোদন ব্যতীত বশেমুরবিপ্রবির সাবেক উপাচার্য খোন্দকার নাসিরউদ্দিন ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ইতিহাস বিভাগের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করেন। প্রায় তিন বছর পর গত ৬ ফেব্রুয়ারি বিভাগটিতে নতুন কোনো শিক্ষার্থী ভর্তি না করার নির্দেশ দেয় ইউজিসি। ইউজিসির সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান করে ৬ ফেব্রুয়ারি রাত থেকেই প্রশাসনিক ভবনের সামনে আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা এবং ৮ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সব গুরুত্বপূর্ণ ভবনে তালা ঝুলিয়ে দেন তারা। বিভাগটিতে তিন ব্যাচে সর্বমোট ৪২৪ জন শিক্ষার্থী অধ্যায়নরত রয়েছেন বলে জানা যায়।

ওডি/জেআই 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড