• মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন

কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে অভিযান, ১৫ দিনে আটক ২৩৬   

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৩:৩৮
কিশোর গ্যাং
রাস্তার দেয়ালে কিশোর গ্যাংদের নাম (ছবি : সংগৃহীত)

রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে শুরু হয়েছে অভিযান। ইতোমধ্যেই সারা দেশে অভিযানে গত ১৫ দিনে অন্তত ২৩৬ জন কিশোরকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।       

পিরোজপুরের বিভিন্ন উপজেলায় বিশেষ অভিযানে কিশোর গ্যাংয়ের মোট ৯২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দিবাগত রাত ৮টা থেকে ১১টা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। তবে তাৎক্ষণিকভাবে আটককৃতদের নাম জানা যায়নি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা আজাদ হোসেন।

তিনি জানান, আটককৃতদের মধ্যে পিরোজপুরর সদর উপজেলা হতে ৩০ জন, নাজিরপুর উপজেলা থেকে ২২ জন, ভান্ডারিয়া উপজেলা হতে ১৭ জন, মঠবাড়ীয়া উপজেলা থেকে আটজনন, ইন্দুরকানী উপজেলা থেকে একজন, কাউখালী থেকে চারজন এবং নেছারাবাদ উপজেলা হতে ১০ জনসহ মোট ৯২ জনকে আটক করা হয়।
 
মোল্লা আজাদ জানান, শহরের বিভিন্ন স্থানে রাতে স্কুল ও কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা রেখে বাইরে আড্ডা দেয়। সেখান থেকে যেন কোনো অপরাধ সংগঠিত হতে না পারে- এজন্যই পিরোজপুরের পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় কিশোর গ্যাংয়ের ৯২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়ে পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান সাংবাদিকদের বলেন, গ্যাং কালচার অপরাধের নতুন মাত্রা। কিশোর অপরাধীরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে বড় বড় অপরাধের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে। তাই এই অভিযান অব্যাহত রাখতে হবে। পিরোজপুর জেলায় কোনো কিশোর গ্যাং লিডার সৃষ্টি হতে দেওয়া হবে না। 

তিনি বলেন, উঠতি বয়সের ছেলেমেয়েরা যাতে মাদক, সন্ত্রাস, ইভটিজিংসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নানা অপরাধে লিপ্ত না হতে পারে, এজন্য অভিভাবক ও সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। এ বিষয়ে নিরাপত্তা বাহিনী যথেষ্ট সজাগ। কিশোর হলেও আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এছাড়া অভিভাবকদের উদ্দেশে পুলিশ সুপার বলেন, আপনার সন্তান কোথায় থাকে কার সঙ্গে আড্ডা দেয় এবং প্রয়োজন ছাড়া রাতে বাইরে থাকে কি না- সে দিকে নজর রাখতে হবে। একই সঙ্গে কিশোর গ্যাংয়ে যাতে কেউ সম্পৃক্ত হতে না পারে সে ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে। 

অভিযানে পিরোজপুরের জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) মোল্লা আজাদ হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আহমাদ মাঈনুল হাসান, অফিসার ইনচার্জ সদর থানা, ওসি ডিবিসহ জেলা পুলিশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ৬ সেপ্টেম্বর কিশোর গ্যাংয়ের তৎপরতা বন্ধে রাজধানীর হাতিরঝিল এলাকা থেকে শতাধিক কিশোরকে আটক করে হাতিরঝিল থানা পুলিশ। এ বিষয়ে ডিএমপি তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল জোনের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার হাফিজ আল ফারুক বলেন, হাতিরঝিলে ঘুরতে এসে মানুষজন ছিনতাই, ইভটিজিংসহ নানা ধরনের অপরাধের শিকার হন। অধিকাংশের অভিযোগ ছিল, হাতিরঝিল এলাকার কিশোরদের বিরুদ্ধে। কিশোর গ্যাংয়ের সঙ্গে জড়িত সন্দেহভাজন শতাধিক কিশোরকে বিভিন্ন স্থান থেকে আটক করা হয়েছে। এখন তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের যাচাই-বাছাই চলছে।

এছাড়া গত ৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২২ কিশোরকে আটক করে পুলিশ। মোহাম্মদপুরের বেড়িবাঁধ, ঢাকা উদ্যানসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে আড্ডারত অবস্থায় ২২ কিশোরকে আটক করা হয়েছে। তাদের প্রত্যেকের বয়স ১৮-এর কম। এদের মধ্যে অনেকেই বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী বলে জানায় পুলিশ।

মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গনেশ গোপাল বিশ্বাস জানান, সন্দেহভাজন হিসেবে ২২ কিশোরকে আটক করা হয়েছে। এদের কারও বিরুদ্ধে কোনো অপরাধের অভিযোগ আছে কি না, বিষয়টি যাচাই-বাছাই করে দেখা হচ্ছে।

এছাড়া গত ২৬ আগস্ট রাজধানীর মুগদা এলাকায় অভিযানে ২২ কিশোরকে আটক করে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। এর মধ্যে তিনজনকে কারাদণ্ড দিয়ে গাজীপুরের কিশোর সংশোধনাগারে পাঠানো হয়েছে। 

এছাড়া ১৯ জনের কাছে মাদক পাওয়ায় বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দিয়ে কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে র‌্যাব পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এলাকায় আধিপত্য বিস্তার, মাদক সেবন ও বিক্রির সাথে জড়িত কিশোর গ্যাং গ্রুপের সদস্যদের ধরতে সোমবার দিবাগত সন্ধ্যা ৭টা থেকে মান্ডা ব্রিজ ও হিরু মিয়ার গলি সংলগ্ন এলাকায় অভিযানে নামে র‌্যাব-৩।

র‌্যাব-৩-এর অতিরিক্ত এসপি বীণারানি দাশের সহযোগিতায় অভিযানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আক্তারুজ্জামান।  

এছাড়া গত ৭ সেপ্টেম্বর গ্যাং কালচারের বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, রাজধানী ঢাকা শহরে গ্যাং কালচার বলতে কিছু থাকবে না। সবাইকে নিশ্চিহ্ন করা হবে। ওইদিন রাজধানীর হোসেনী দালানের ইমামবাড়ায় সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।  

ওডি/এআর 

অপরাধের সূত্রপাত কিংবা ভোগান্তির কথা জানাতে সরাসরি দৈনিক অধিকারকে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড