• মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৪ আশ্বিন ১৪২৭  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

জমে উঠতে শুরু করেছে কুরবানির হাট, বিক্রি কম

  আমতলী প্রতিনিধি, বরগুনা

২৫ জুলাই ২০২০, ২২:৫৪
কুরবানির পশুর হাট
জমে উঠতে শুরু করেছে কুরবানির হাট, বিক্রি কম (ছবি : দৈনিক অধিকার)

আসন্ন ইদুল আযহাকে সামনে রেখে বরগুনার আমতলীতে জমে উঠতে শুরু করেছে কুরবানির পশুর হাটগুলো। তবে করোনা ভাইরাস আর হাতে এক সপ্তাহ সময় থাকার কারণে ক্রেতা সমাগম কম হওয়ায় বেচাকেনাও কম।

একাধিক গরু ক্রেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সপ্তাহখানেক সময় হাতে থাকায় এখনই তারা কুরবানির জন্য গরু ক্রয় করছেন না। কারণ হিসেবে তারা বলেন, বর্তমানে বিক্রেতারা গরুর দাম একটু বেশি চাইছে তাই তারা গরু কিনছেন না। এছাড়া আগেই গরু কিনে রাখা এবং লালন পালন করা অনেকেই ঝামেলা মনে করছেন। ফলে ইদের দুই থেকে তিন দিন পূর্বে গরু কিনতে আগ্রহী অনেক ক্রেতা।

এ দিকে, বাজারে বিদেশি গরুর থেকে দেশি গরুর কদর বেশি। এ বছর বাজারগুলোতে বিদেশি গরু তেমন একটা চেখেও পড়ছেনা।

ক্রেতা হারুন অর রশিদ দৈনিক অধিকারকে বলেন, এখন বিক্রেতারা গরুর দাম একটু বেশি চাচ্ছেন। এ কারণে কুরবানি দেওয়ার জন্য এখনো গরু কিনিনি। হাতে সপ্তাহ খানেক সময় আছে তাই ভাবছি কুরবানির দুই তিন দিন পূর্বে গরু কিনব। তখন গরুর দামও একটু কমবে।

উপজেলার সবচেয়ে বড় গরুর হাট আমতলীসহ গাজীপুর, চুনাখালী, কলাগাছিয়া, গোজখালী, তালুকদার বাজার, খুড়িয়ার খেয়াঘাট, অফিস বাজার, বান্দ্রা ও আড়পাঙ্গাশিয়া ঘুরে দেখা যায়, বিভিন্ন খামারিরা কুরবানি ইদে বিক্রির জন্য তাদের লালন-পালন করা গরু-মহিষ ও ছাগল-ভেড়া হাটে বিক্রির জন্য নিয়ে আসছেন।

উপজেলার আঠারোগাছিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম গাজীপুর গ্রামের খামারি মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘কুরবানি ইদকে সামনে রেখে ৫টি গরু বিক্রয়ের জন্য প্রস্তুত করেছি। বাজারে দাম কম থাকায় এখনো গরু বিক্রি করতে পারিনি। কুরবানির পূর্বেই গাজীপুর হাটসহ কাছাকাছি যে হাটগুলো আছে সেখানে বিক্রির জন্য নিয়ে যাব। দেখি বিক্রি করতে পারি কিনা।’

এ দিকে, উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে ছোট বড় মিলে ৪ হাজার ২৭৬টি গরু, ছাগল, ভেড়া ও মহিষ রয়েছে। আর এ বছর কুরবানির জন্য ৩ হাজার ২৭৯টি পশু প্রয়োজন। চাহিদা মিটিয়ে বাকি পশুগুলো দেশের বিভিন্ন স্থানে রপ্তানি করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছে উপজেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগ।

উপজেলার তালুকদার বাজার গরুর হাটের পরিচালক মো. মহিবউল্লাহ কিরন বলেন, হাটে বিক্রির জন্য পর্যাপ্ত পশু থাকলেও বিক্রেতারা বেশি দাম চাওয়ায় বাজারে তেমন একটা পশু বিক্রি হচ্ছে না।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডা. আতিকুর রহমান দৈনিক অধিকারকে বলেন, প্রাণিসম্পদ বিভাগ কর্তৃক উপজেলার প্রতিটি হাট-বাজারের জন্য মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। কুরবানির জন্য কেনা গরু, ছাগল, ভেড়া ও মহিষ কোনো রোগে আক্রান্ত হয়েছে কিনা তা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছেন এবং সকলকে স্বাস্থ্যসম্মত পশু ক্রয়ের পরামর্শ দিচ্ছেন।

আমতলী গরু হাটের ইজারাদার ও সদর ইউপি চেয়ারম্যান মো. মোতাহার উদ্দিন মৃধা বলেন, আমতলী উপজেলায় যে পরিমাণ পশু রয়েছে তাতেই কুরবানির চাহিদা পূরণ হয়ে যাবে। করোনার কারণে পশুর দাম গত বছরের চেয়ে তুলনায় কিছুটা কম।

আরও পড়ুন : বড় ভাইয়ের ছুরিকাঘাতে ছোট ভাইয়ের মৃত্যু, গ্রেপ্তার ৩

এ দিকে, আমতলী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহআলম হাওলাদার দৈনিক অধিকারকে বলেন, করোনায় সামাজিক ও স্বাস্থ্যবিধি মেনেই উপজেলার পশুর বাজারে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। যাতে মানুষ নির্বিঘ্নে পশু ক্রয়-বিক্রয় করে গন্তব্যে পৌঁছাতে পারে। জাল টাকা শনাক্তকরণ মেশিনসহ প্রতিটি হাটে সাদা পোশাকে পুলিশ নিয়োজিত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801721978664

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড