• শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬  |   ৩৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩৫% শিক্ষার্থী বাংলা পড়তে পারে না 

  সারাদেশ ডেস্ক

১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:০৫
প্রাথমিক বিদ্যালয়
প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ( ছবি : সংগৃহীত )

দেশে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তির হার ৯৮% হলেও এর ৬৫% শিক্ষার্থী বাংলা পড়তে পারে না। ইংরেজি ও গণিতে দুর্বলতা এর চেয়ে আরও অনেক বেশি। বিশ্বব্যাংকের সাম্প্রতিক এক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে।

এ বিষয়ে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার নতুন বসতি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা আকলিমা সুলতানা জানান, সরকারি নিয়ম ও শিশুদের বয়স অনুযায়ী বিভিন্ন শ্রেণিতে ভর্তি করতে হয়। কিন্তু বাস্তবে দেখা যায় যে শ্রেণিতে শিক্ষার্থীকে ভর্তি করা হয়েছে সেখানে পড়ার দক্ষতা শিশুটির নেই।

তিনি আরও জানান, একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যে পরিমাণ শিক্ষার্থী রয়েছে, তাদের সবার প্রতি আলাদা আলাদাভাবে নজর দেওয়া রীতিমতো অসম্ভব। একটি ক্লাসে যদি ৫০-৬০ জন ছাত্র-ছাত্রী থাকে তাদের সবাইকে আলাদা আলাদাভাবে বোঝানো তো সম্ভব নয়। তাই শিশুর প্রয়োজন বাসায় কিছু প্র্যাকটিস করা, পড়তে বসা, হোমওয়ার্ক করা কিন্তু সেই সাপোর্টটা শিশুরা পায় না। কারণ অনেক শিশুর বাবা-মা পড়াশুনা জানেন না বলে জানান তিনি।

অন্য দিকে জাতীয় শিক্ষানীতি ২০১০ প্রণয়ন কমিটির সদস্য সচিব শেখ ইকরামুল কবির বলেন, সরকারের বিভিন্ন কাজ প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষকরা করে থাকেন। যেমন- ভোটার তালিকা প্রণয়ন, ভোটগ্রহণ এমনকি গ্রামের পাকা টয়লেট বানানোর কাজটাও প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষকরা করেন। এসব কাজ স্কুল খোলা থাকার সময় হয়। ফলে শিক্ষকদের যত শিক্ষা ঘণ্টা পাঠদান করানোর কথা ততক্ষণ তারা পাঠদান করাতে পারছে না বলে জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষকদের অল্প বেতন, সেই সঙ্গে মর্যাদাও কম হওয়ায় এই পেশার প্রতি অনাগ্রহ তৈরি হচ্ছে এ পেশায় আসা শিক্ষকদের। ফলে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়া একজন শিক্ষার্থীর যে পরিমাণ জ্ঞান থাকা দরকার তার অর্ধেকও তারা অর্জন করতে পারে না।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম আল হোসেন জানান, স্কুলগুলোর শিক্ষক, প্রধান শিক্ষক, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের বলা হয়েছে প্রাথমিক শিক্ষার মান তদারকি করতে। আমাদের লক্ষ্য দুর্বল স্কুল এবং দুর্বল শিক্ষার্থীদের চিহ্নিত করা এবং বিশেষ মনোযোগের মাধ্যমে তাদের সবল করে তোলা।

এই জন্য প্রাথমিক ও প্রাক প্রাথমিক পর্যায়ে কয়েক হাজার শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার পাশাপাশি শিক্ষকতার বাইরে তাদের যেন বাড়তি কাজ করতে না হয় সেদিকটাও মনিটর করা হবে বলে জানান তিনি।

ওডি/এসএএফ 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড