• মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০১৯, ৪ আষাঢ় ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

টুথব্রাশ নিরাপদ তো?

  লাইফস্টাইল ডেস্ক ১১ জুন ২০১৯, ১৯:২৭

টুথব্রাশ
ছবি : সংগৃহীত

দাঁত মানুষের অমূল্য একটি অঙ্গ। সুস্থ এবং মজবুত দাঁত মানুষের জীবনকে সহজ করে তোলে। যারা দাঁতের নানা সমস্যায় ভোগে তারা জানেন সময় মতো দাঁতের পরিচর্যা না করার কষ্ট কতখানি। নিয়মিত দাঁতের যত্ন না নিলে দাঁত নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকে। দাঁতের যত্ন নেওয়ার ক্ষেত্রে টুথ ব্রাশ অনেক বড় ভূমিকা পালন করে থাকে। তবে এই টুথব্রাশেরও যদি ঠিকভাবে যত্ন না নেওয়া হয় তবেও ঘটতে পারে বিপত্তি। সঠিক নিয়মে কী করে টুথব্রাশের যত্ন নেবেন চলুন জেনে নেওয়া যাক।

সঠিক টুথব্রাশ :

টুথব্রাশের যত্ন নেওয়ার আগে যে বিষয়টি আসবে সেটি হলো আপনি সঠিক টুথব্রাশটি ব্যবহার করছেন কি না। আধুনিক এবং স্বাস্থ্যসম্মত টুথব্রাশ না হলে এটি আপনার দাঁতের জন্য হতে পারে বিপদের কারণ। সঠিক আকৃতির টুথব্রাশের আকৃতি হয় সাধারণত দৈর্ঘ্যে ১ ইঞ্চি এবং প্রস্থে আধা ইঞ্চি। এরচেয়ে বড় হলে তা মুখের ভেতরের দিকের দাঁতগুলোর কাছে পৌঁছাতে পারে না। আর টুথব্রাশের হাতলটি হতে হবে অবশ্যই আরামদায়ক যেন ব্রাশ করতে গিয়ে অস্বস্তিতে পড়তে না হয়। ব্রাশের মূল অংশ ব্রিসল। এটি হতে হবে নরম এবং নাইলনের তৈরি। শক্ত ব্রিসল আপনার মাড়ির অনেক ক্ষতি করে ফেলে আপনার অলক্ষ্যেই।

টুথব্রাশের যত্ন :

টুথব্রাশ দিয়ে মুখের ভেতরের যাবতীয় ময়লা পরিষ্কার করা হয় প্রতিদিন। তাই স্বাভাবিকভাবেই এতে নানা রকম ব্যাকটেরিয়া বাসা বানায়। নানান রোগ জীবাণু ছড়ানোর সুন্দর একটি জায়গা হলো ব্রাশ। তাই ব্রাশ ব্যবহারের ক্ষেত্রে প্রথমেই যে বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে তা হলো, এটি ঠিকমতো ধোয়া হয়েছে কি না। ব্যবহারের আগে এবং ব্যবহারের পরে টুথব্রাশ পানি দিয়ে ভালোমতো ধুয়ে নিন। এরপর পানি ঝরিয়ে এটি লম্বালম্বি করে দাঁড় করিয়ে রাখতে হবে। মনে রাখবেন এটি কখনোই বদ্ধ কোনো হোল্ডারে রাখবেন না। এতে করে ব্যাকটেরিয়া তার অনুকূল পরিবেশ পেয়ে যায়।

বিভিন্ন রকম ভাইরাস বা ফ্লু থেকে দূরে থাকতে পরিবারের সদস্যদের টুথব্রাশ আলাদা স্থানে রাখুন। এতে করে অনেক রোগ জীবাণুর সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেয়ে যাবেন।

গবেষণায় দেখা গেছে একটি টুথব্রাশ তিন মাসের বেশি ব্যবহার করলে এর ব্রিসল বাঁকা হয়ে নষ্ট হয়ে যায়। ক্ষয় হয়ে নষ্ট হয়ে যায় অনেক টুথব্রাশই এই সময়ের মধ্যে। তাই ডাক্তাররা পরামর্শ দিয়ে থাকেন তিন মাস পরপর টুথব্রাশ বদলে ফেলার জন্য।  তবে বাচ্চাদের টুথব্রাশ তিনমাসের আগেই বদলে ফেলা ভালো।

অনেকেরই আবহাওয়া পরিবর্তন বা বিভিন্ন কারণে নানা সময়ে সর্দি কাশি থেকে শুরু করে টনসিল, মুখের ঘা পর্যন্ত হয়ে থাকে। একটা সময় পর তা ভালোও হয়ে যায়। তবে ভালো হয়ে যাবার পর অবশ্য করণীয় যে কাজটি তা হলো আপনার টুথব্রাশটি বদলে ফেলুন। না হলে ব্রিসলে লুকিয়ে থাকা জীবাণু আবার আক্রমণ করে একই অবস্থার সৃষ্টি করতে পারে।

টুথব্রাশ ব্যবহারের ক্ষেত্রে যে কাজটি একেবারেই করবেন না তাহলো অন্যের ব্যবহার করা টুথব্রাশ নিজে ব্যবহার করবেন না এবং নিজেরটিও কখনো অন্য কাউকে ব্যবহার করতে দিবেন না। এতে করে নানান রোগ ছড়ানোর সম্ভাবনা তো থাকেই একই সাথে এটি রুচিরও একটি ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়।

ওডি/এসএম 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড