• সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

টোঙ্গায় শক্তিশালী ভূমিকম্পের আঘাত

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৭:০৬
টোঙ্গায় শক্তিশালী ভূমিকম্পের আঘাত
ভূমিকম্পের আঘাতে বিধ্বস্ত টোঙ্গার গ্রাম (ফাইল ছবি)

দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপরাষ্ট্র টোঙ্গায় আঘাত হেনেছে শক্তিশালী মাপের ভূমিকম্প। রিখটার স্কেলে যার মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ২। বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) স্থানীয় সময় সকাল ৬টা ৪০ মিনিটের দিকে কম্পনটি প্রথম অনুভূত হয়। যদিও তাৎক্ষণিকভাবে কোনো ক্ষয়ক্ষতি কিংবা হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

মার্কিন ভূ-তাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা (ইউএসজিএস) বলেছে, টোঙ্গার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় পাঙ্গাই এলাকায় রিখটার স্কেলে ৬ দশমিক ২ মাত্রার ভূমিকম্পটি আঘাত হানে। শক্তিশালী ওই কম্পনের কেন্দ্রস্থল ছিল প্রত্যন্ত লিফুকা দ্বীপ থেকে ২১৯ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে। যার উৎপত্তিস্থল ছিল ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১৪ দশমিক ৫ কিলোমিটার গভীরে।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, দ্বীপরাষ্ট্র টোঙ্গায় কম্পনটি অনুভূত হলেও সেখানে কোনো ধরনের ক্ষয়ক্ষতির তথ্য পাওয়া যায়নি। এমনকি প্রতিবেশী রাষ্ট্র ফিজিতেও কোনো ক্ষয়ক্ষতি কিংবা হতাহত ঘটেনি।

চলতি মাসের শুরুর দিকে প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের এই দেশটির সমুদ্রতলের আগ্নেয়গিরিতে প্রচণ্ড বিস্ফোরণের পর অগ্নুৎপাতের শুরু হয়। অগ্নুৎপাতের কারণে দেশটিতে সুনামিও আঘাত হানে। এতে টোঙ্গায় এক ব্রিটিশ নাগরিকসহ অন্তত তিনজন প্রাণ হারান।

সেই সময় টোঙ্গায় আগ্নেয়গিরির অগ্নুৎপাতের প্রচণ্ড বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায় হাজার মাইল দূরের যুক্তরাষ্ট্র, নিউজিল্যান্ডেও। এছাড়া টোঙ্গায় সমুদ্রের তলদেশে অগ্নুৎপাতের কারণে পেরুর রাজধানী লিমার কাছের সমুদ্র সৈকতেও হঠাৎ অস্বাভাবিক পানির ঢেউয়ের তোড়ে দুজন ভেসে যান।

আরও পড়ুন : ফাইজারের পর ওমিক্রন প্রতিরোধী টিকার পরীক্ষা মডার্নার

উল্লেখ্য, অগ্নুৎপাত এবং সুনামির আঘাতের পর থেকে প্রায় প্রত্যেক দিনই টোঙ্গায় ভূমিকম্প অনুভূত হচ্ছে বলে জানিয়েছে ইউএসজিএস।

সূত্র : রয়টার্স

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড