• বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

রুশ-ইউক্রেন ইস্যুতে উচ্চ সতর্কতায় সাড়ে ৮ হাজার মার্কিন সৈন্য

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১৬:১৬
রুশ-ইউক্রেন ইস্যুতে উচ্চ সতর্কতায় সাড়ে ৮ হাজার মার্কিন সৈন্য
মিশনে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন মার্কিন সৈন্যরা (ছবি : ইউএসএ টুডে)

ইউক্রেন সীমান্তে প্রায় এক লাখ সৈন্য মোতায়েন করে রেখেছে প্রতিবেশী রাষ্ট্র রাশিয়া। যে কোনো মুহূর্তে রুশ সৈন্যরা দেশটিতে আক্রমণ চালাতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে। সংকটময় এমন পরিস্থিতিতে সেনাবাহিনীর প্রায় সাড়ে আট হাজার সদস্যকে উচ্চ সতর্কতায় রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র।

প্রয়োজন হলে স্বল্প সময়ের নোটিশে এসব সৈন্যকে ইউরোপে মোতায়েন করা হতে পারে বলে ঘোষণা দিয়েছে ওয়াশিংটন। মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও সংবাদমাধ্যম বিবিসি নিউজ পৃথক প্রতিবেদন প্রকাশের মাধ্যমে তথ্যটি জানিয়েছে।

এর আগে রাশিয়া ও ইউরোপের পূর্বাঞ্চলীয় দেশ ইউক্রেনের মধ্যে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই পূর্ব ইউরোপে সামরিক বহর, যুদ্ধজাহাজ ও বোমারু বিমান পাঠিয়েছিল পাশ্চাত্য দেশগুলোর সামরিক জোট নর্থ আটলান্টিক ট্রিটি অর্গানাইজেশন (ন্যাটো)।

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) বিবৃতির মাধ্যমে ন্যাটোর মহাপরিচালক জনস স্টলটেনবার্গ বলেছেন, যেসব দেশ ন্যাটোতে তাদের সেনাবাহিনী ও যুদ্ধযান পাঠিয়েছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। এভাবেই সকল মিত্রকে রক্ষা করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা অব্যাহত রাখবে ন্যাটো।

এরপরই রাশিয়া-ইউক্রেনের মধ্যকার উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যেই ইউরোপে মোতায়েনের জন্য সৈন্য প্রস্তুত রাখার কথা জানায় মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগন। সোমবার পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি বলেছিলেন, সাড়ে আট হাজার মার্কিন সৈন্যকে যে কোনো মুহূর্তে মোতায়েনের জন্য প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। মূলত তারা ন্যাটোর র‍্যাপিড রেসপন্স টিম হিসেবে মোতায়েন হবে।

আরও পড়ুন : এরদোগানকে অপমানের খেসারৎ গুনলেন সাংবাদিক

জোর দিয়ে তিনি বলেন, মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিন চান, যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্যও অনির্দিষ্ট সংখ্যক সৈন্য তৈরি থাকুক।

সংবাদ সম্মেলনে জন কিরবি দাবি করেন, এখন যেটা হচ্ছে তা হলো, (প্রয়োজন হলে) স্বল্প সময়ের মধ্যে মোতায়েনের জন্য সেনাদের প্রস্তুত রাখা। আজ আমরা সৈন্য মোতায়েনের আদেশ নিয়ে কথা বলছি না। (আপনাদের কাছে) বলার মতো কোনো সেনাসদস্য মোতায়েন সম্পর্কিত আদেশও আমাদের কাছে নেই।

পেন্টাগন অবশ্য এখনই এসব সেনাকে ইউক্রেনে পাঠানোর কোনো কথা উল্লেখ করেনি। পেন্টাগনের মুখপাত্র বলেছেন, এসব সৈন্যকে শুধুমাত্র তখনই ইউক্রেনে পাঠানো হবে যখন ন্যাটো জোট ‘তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানানোর’ সিদ্ধান্ত নেবে অথবা ইউক্রেন সীমান্তে জরুরি কোনোকিছু ঘটবে।

তার দাবি, যুক্তরাষ্ট্র যে সামরিক জোট ন্যাটোর প্রতি শ্রদ্ধাশীল এর মাধ্যমে তার প্রমাণ দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন : যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে প্রত্যক্ষ আলোচনা চায় ইরান

রাশিয়ার সঙ্গে তার প্রতিবেশী দেশ ইউক্রেনের সাম্প্রতিক উত্তেজনা এই ন্যাটোকে ঘিরেই। সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের ঘনিষ্ঠ মিত্র ইউক্রেন ন্যাটোর সদস্যপদের জন্য আবেদন করার পর থেকেই দিন দিন তিক্ত হচ্ছে রাশিয়া ও ইউক্রেনের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক।

এর আগে রবিবার ইউক্রেনে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাসে নিযুক্ত কর্মীদের পরিবারের সদস্যদের দেশটি ত্যাগের নির্দেশ দেয় যুক্তরাষ্ট্র। পূর্ব ইউরোপে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যেই নতুন এই নির্দেশনা জারি করে ওয়াশিংটন।

এছাড়া পূর্ব ইউরোপের এই দেশটির দূতাবাসে অবস্থান করা অপ্রয়োজনীয় কর্মীদেরও ইউক্রেন ছাড়তে বলা হয়। এমনকি ইউক্রেনে অবস্থানরত মার্কিন নাগরিকদেরও দেশটি ছাড়ার কথা বিবেচনা করার অনুরোধ জানায় ওয়াশিংটন।

আরও পড়ুন : বরফে ছেয়ে গেছে তুর্কি বিমানবন্দর, ফ্লাইট চলাচল বন্ধ

উল্লেখ্য, ইউক্রেন সীমান্তে দীর্ঘদিন যাবতই প্রায় এক লাখ সেনাসদস্য মোতায়েন করে রেখেছে প্রতিবেশী রাষ্ট্র রাশিয়া। রুশ সেনারা যে কোনো মুহূর্তে দেশটিতে আক্রমণ চালাতে পারে বলেও আশঙ্কা রয়েছে। যদিও ইউক্রেনে হামলার কোনো পরিকল্পনা নেই বলে বরাবরই দাবি করে আসছে মস্কো।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড