• শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

একই পাত্রে খাবারের শেষাংশ দিয়ে রান্না চলছে ৪৫ বছর ধরে!

  অধিকার ডেস্ক

০৪ আগস্ট ২০১৯, ১২:০৬
স্যুপ
৪৫ বছর ধরে একই পাত্রে রান্না করা সেই বিশেষ স্যুপ

কিছু খাবার আছে যেগুলো যতবেশি পুরনো হয় ততই তার স্বাদ বাড়ে। তাই বলে কোনো একটা খাবার ৪৫ বছর ধরে খাওয়া সম্ভব! তাও আবার একই স্বাদ আর গন্ধ বজায় রেখে? 

শুনতে কিছুটা অবাক শোনালেও এটা কিন্তু সত্যি! ব্যাংককের একটি রেস্টুরেন্টে মানা হচ্ছে এমনই এক নিয়ম। 'নেওয়া টুনা' নামের একটি বিশেষ ধরনের স্যুপ তৈরি হচ্ছে একই পাত্রে ৪৫ বছর ধরে! রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষের মতে, এই স্যুপ পুরনো হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এর স্বাদ বেড়েছে বহুগুণে। 

ব্যাংককের সে রেস্টুরেন্টটির নাম ‘ওয়াত্তানা পানি’চ। এখানকার নিয়ম হচ্ছে দিন শেষে স্যুপের অবশিষ্ট অংশটুকু সংরক্ষণ করে রাখা। পরের দিন একই পাত্রে ওই স্যুপটুকু দিয়েই রান্না শুরু হয়। বিশাল সেই পাত্রের স্যুপে প্রতিদিন টাটকা মাংস, মিটবল এবং অন্যান্য নানা উপাদান মিশিয়ে রান্না করা হয়। গত ৪৫ বছর ধরে একই নিয়মে এখানে চলছে সে রান্না!

স্যুপ 

৪৫ বছর ধরে একই পাত্রে রান্না করা 'নেওয়া টুনা' নামের সেই বিশেষ ধরনের স্যুপ 

রেস্টুরেন্টের বর্তমান মালিক নাট্টাপং কৌওয়েনানতাওয়ং, তার মা ও স্ত্রী মিলে বিশেষ এই স্যুপটি রান্না করেন। 

নাট্টাপং বলেন, ৪৫ বছর ধরে স্যুপের ঝোল অংশের শেষেরটুকু কখনো রান্নার পর ফেলে দেওয়া হয়নি। পরেরদিন এটি দিয়েই আবার রান্না শুরু হয়। 

তিনি আরও বলেন, স্যুপের যে স্বতন্ত্র স্বাদ এবং গন্ধ তা যুক্ত হয় কেবলমাত্র প্রাচীন এই পদ্ধতিতে রান্না করার কারণেই। 

নাট্টাপং এই ব্যবসার সাথে জড়িত তৃতীয় প্রজন্ম। তিনি চান তার পরের প্রজন্ম অর্থাৎ চতুর্থ প্রজন্মও এই ব্যবসার ধারাটা ধরে রাখুক। 

রান্নায় এত দীর্ঘ সময় ধরে একই নিয়ম মেনে চলার এই তথ্যটি এখন ব্যাংককের বাইরেও বিশ্বজুড়ে পরিচিতি লাভ করেছে। সেখানে খেতে গিয়ে অনেকেই এই প্রাচীন খাবারটির ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করেন। এর মাধ্যমে খাবারটি পরিচিতিও লাভ করেছে বেশ। 

তথ্যসূত্র: নিউজ এইট্টিন ডট কম

ওডি/এএন 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড