• রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে চবি ছাত্রলীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষ

  চবি প্রতিনিধি

৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৮:২৩
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়
শহীদ আবদুর রব হলের কক্ষে ভাংচুর (ছবি : দৈনিক অধিকার)

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) অগ্রণী ব্যাংকে টাকা জমা দিতে গিয়ে লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে শাখা ছাত্রলীগের দুটি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয়পক্ষের ৩ জন আহত এবং পরে শহীদ আবদুর রব হলের পাঁচটি কক্ষ ভাংচুর করা হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বেলা পৌনে দুইটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অগ্রণী ব্যাংক শাখায় টাকা জমা দিতে যান শিক্ষার্থীরা। সেখানে বাংলার মুখ গ্রুপের এক কর্মী লাইন ভঙ্গ করে আগে টাকা দেওয়ার চেষ্টা করেন। পরে লাইন ভঙ্গ করে ভার্সিটি এক্সপ্রেস (ভিএক্স) গ্রুপের আরেক কর্মী টাকা জমা দিতে গেলে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। পরবর্তীতে বাংলার মুখের আরও কয়েকজন কর্মী জড়ো হলে উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ও সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ৩ জন আহত হন। 

আহত তিনজন হলেন- ইংরেজি বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী লাবিব শাহরিয়ার, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী শিপন, কম্পিউটার সাইন্স বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের আজহার হোসেন। আহত লাবিব ও আজহার বাংলার মুখ গ্রুপ ও শিপন ভিএক্সের কর্মী বলে জানা গেছে। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা কেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এসময় শহীদ আবদুর রব হলের ৪১৮ থেকে ৪২২ নাম্বার পর্যন্ত পাঁচটি কক্ষ ভাংচুর করে ভার্সিটি এক্সপ্রেস (ভিএক্স)। উক্ত রুমগুলোতে বাংলার মুখের কর্মীরা থাকে বলে জানায় তারা।

চবি চিকিৎসা কেন্দ্রের কর্মরত ডাক্তার মোস্তফা কামাল হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘আহত দুজনের মাথায় ভাঙ্গা কাচের আর একজনের হাতে ইটের আঘাত লাগে। পরে তাদের মাথায় ও হাতে ব্যান্ডেজ করে দিয়েছি।’

এ ঘটনায় বাংলার মুখ গ্রুপের নেতা ও শাখা ছাত্রলীগের সাবেক শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক আমির সোহেল এবং ভিএক্স গ্রুপের নেতা ও ছাত্রলীগের কার্যকরী সদস্য প্রদীপ চক্রবর্তী দুর্জয় একই সুরে বলেন, ‘জুনিয়রদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির ফলে ঝামেলা হয়েছে। পরবর্তীতে উভয় গ্রুপের সিনিয়ররা বসে বিষয়টির সমাধান করা হয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরী বলেন, ‘সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে প্রক্টরিয়াল বডি ও পুলিশ যায়। পরে উভয় পক্ষের সঙ্গে বসে আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি সমাধান করা হয়েছে।’

ওডি/এমএ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড