• রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০১৯, ৮ বৈশাখ ১৪২৬  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে জমকালো আয়োজনে পিঠা উৎসব

  ইবি প্রতিনিধি ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২১:২৬

উদ্বোধন
পিঠা উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান (ছবি : সংগৃহীত)

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) রংপুর বিভাগীয় ছাত্র কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে জমকালো আয়োজনে পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে।

'শীতের ভোরে পিঠা রসের গন্ধ উড়ে মনটায় মোর পিঠা খাবার চায়' এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে পিঠা উৎসবের উদ্বোধন করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমানের সভাপতিত্বে পিঠা উৎসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী)।

বিভিন্ন পদের ঝাল পিঠা, মুট পিঠা, পাঁচ পিঠা, চিতই পিঠা, ডিম পিঠা, কলাই পিঠা, বিস্কুট পিঠা, তেজপাতা পিঠা, গড়গড়ি পিঠা, শামুক পিঠা, গোলাপ পিঠা, কুলশি পিঠা, তৈল পিঠা, ডিম ঝাল পিঠা, সুজি পিঠা, সুচির পিঠা, বরফি পিঠা, ভাপা পুলি পিঠা, নকশি পিঠা, দুধ পুলি, ভেজা গোলাপ পিঠা, নুনিয়া পিঠা, নারকেল পিঠা সহ প্রায় ৩০ প্রকারের পিঠা পরিবেশন করে এ পিঠা উৎসবের আয়োজন করা হয়।

হরেক স্বাদের হরেক আকারের পিঠা (ছবি : সংগৃহীত)

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, 'সকল আঞ্চলিক সম্প্রীতি বোধকে জাতীয় সম্প্রীতিতে রূপান্তরিত করতে হবে। তাহলে আঞ্চলিকতার বৈষম্য দূর করা সম্ভব।

তিনি বলেন, বৃহত্তর রংপুর এখন বিভাগে উত্তীর্ণ হয়েছে। এটা ছিল অবহেলিত, উপেক্ষিত উত্তরাঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি। এ দাবি বাস্তবায়ন করায় রংপুরের গৃহবধূ প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ।

তিনি আরও বলেন, এই রংপুর মিঠাপুকুরের আসকারপুরে জন্ম গ্রহণ করে আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করি। একটি নিভৃত পল্লীতে জন্মগ্রহণ করলেও যদি কোনো স্বপ্ন থাকে এবং স্বপ্ন বাস্তবায়নের আবেগ থাকে, তাহলে সকল বাঁধাকে অগ্রাহ্য করে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব।

ড. রাশিদ আসকারী বলেন, আমাদের অনেক ইতিহাস ও ঐতিহ্য আছে। এখানে বৃটিশ আমলে জন্ম নিয়েছেন উইলিয়াম বেভারেজের মতো অর্থনীতিবিদ এবং তাঁর স্ত্রী লেডি বেভারেজ যিনি ‘বাবরনামা’ গ্রন্থের ইংরেজি অনুবাদ করেছিলেন এবং ‘হুমায়ুননামা’ গ্রন্থের ইংরেজি অনুবাদ করে বিশ্বখ্যাত হয়েছিলেন। বাংলার প্রগতিশীল আন্দোলনের জনক রাজা রাম মোহন রায় রংপুরে প্রায় ১০ বছর সময় অতিবাহিত করেছেন। বিখ্যাত কবি শেখ আব্দুল হাকিম এবং সবচেয়ে বড় গৌরবের যিনি, বেগম রোকেয়া এই রংপুরে জন্ম গ্রহণ করেছেন। রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, ক্রিকেটার নাসিরও এই রংপুর বিভাগে জন্ম নিয়েছেন।

অতিথিদের পিঠা আপ্যায়ন (ছবি : সংগৃহীত)

তিনি বলেন, রংপুরের মানুষকে অনেক ক্ষেত্রে অলস ও গৃহকাতর বলা হয়ে থাকে। তাই সকলের প্রতি উদাত্ত আহবান রাখবো আসুন, আমরা রংপুরবাসী আরও অধিকতর পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে নিজের বিভাগ এবং দেশের জন্য কিছু করি। তিনি এই পিঠা উৎসবের আয়োজন করায় আয়োজকদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

ইইই বিভাগের শিক্ষক, সাবেক প্রক্টর ও সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক ড. মো. মাহবুবর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন- উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শাহিনুর রহমান, ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন, লোকপ্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান, আল-কুরআন অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ড. শেখ এবিএম জাকির হোসেন ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মো. ফিরোজ-আল-মামুন।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শাহিনুর রহমান বলেন, 'রংপুরের মানুষ অত্যন্ত সরল। আর সরল মানুষেরা হয় জ্ঞানী, মহৎ ও শক্তিশালী।

তিনি বলেন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত রংপুর বিভাগের শিক্ষার্থীরা সরল পথ দিয়ে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করবে এবং সর্বত্র জ্ঞানের আলো ছড়িয়ে দিবে এই প্রত্যাশা করি। আজকের এই পিঠা উৎসব অত্যন্ত আনন্দের। বিশেষ করে গ্রাম বাংলার মা-বোনেরা নিজের পরিবারের পাশাপাশি অতিথি আপ্যায়নের জন্য পিঠা তৈরি করে থাকেন। তাই পিঠার সাথে হৃদয়, ভালবাসা ও স্নেহের মধুর সম্পর্ক রয়েছে। এ পিঠা উৎসবের আয়োজকদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান ড. শাহিনুর রহমান।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তৃতায় অধ্যাপক ড. মো. মাহবুবর রহমান বলেন, এ ধরনের অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পরস্পরের মধ্যে সহমর্মিতা ও সুসম্পর্ক বৃদ্ধি হয়। আশা রাখি শুধু রংপুরের শিক্ষার্থীরাই নয়, প্রতিটি অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা এ ধরনের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বন্ধুত্বের সম্পর্ক আরও দৃঢ় করবে'।

সাজেদা আক্তার জলি ও এনামুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ঠাকুরগাঁও জেলার আরাফত সরকার জীবন, নীলফামারী জেলার মোস্তাফিজুর রহমান, গাইবান্ধা জেলার আশাদুজ্জামান আসাদ, বদিউজ্জমান বিপ্লব, কুড়িগ্রাম জেলার হাবিবুল্লাহ বিলালী, দিনাজপুর জেলার ইরফান রানা, লালমনিরহাট জেলার গোলাম আযম প্রতীক ও রংপুর জেলার মশিউর রহমান। জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়।

অতিথিদের সঙ্গে শিক্ষার্থীরা (ছবি : সংগৃহীত)

পিঠা উৎসবে রংপুর বিভাগের ঐতিহ্যবাহী জামাই আদর পিঠা, গোলাপ পিঠা, নকশি পিঠা, ডিম-কলা পিঠা, নুনিয়া পিঠাসহ প্রায় অর্ধশত রকমের পিঠা প্রদর্শন করা হয়।

প্রসঙ্গত, পিঠা উৎসব অনুষ্ঠান শেষে রংপুর বিভাগের শিক্ষার্থীদের আয়োজনে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
SELECT id,hl2,parent_cat_id,entry_time,tmp_photo FROM news WHERE ((spc_tags REGEXP '.*"location";s:[0-9]+:"ইবি".*')) AND id<>45862 ORDER BY id DESC LIMIT 0,5

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড