• মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইচ্ছা'র ‘মাস্কআপ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়’ কর্মসূচি পালিত

  আরিফুল ইসলাম আরিফ, জাবি প্রতিনিধি

২৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:১৫
মাস্কআপ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়
মাস্কআপ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় কর্মসূচি (ছবি : দৈনিক অধিকার)

‘মাস্কআপ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়’ কর্মসূচির অংশ হিসাবে মাস্ক বিতরণ করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক সংগঠন Inspire Care & Cultivate Human Aid-ICCHA (ইচ্ছা)।

‘আসুন নিজে মাস্ক ব্যবহার করি, অন্যকে মাস্ক ব্যবহারে উৎসাহিত করি’— এই স্লোগানকে ধারণ করে সোমবার (২৫ অক্টোবর) সাড়ে ৩টায় এই কর্মসূচি পালন করেন তারা। এই সময় তারা দেড় শতাধিক রিকশাচালক, ক্ষুদ্র দোকানদার, চা বিক্রেতাদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করে।

কর্মসূচিতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ফিরোজ উল হাসান, অধ্যাপক ড. এ কে এম শাহনাওয়াজ, টিএসসির পরিচালক ও ইচ্ছা’র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলমগীর কবির, অর্থনীতির শিক্ষক রনি।

এ সময় প্রক্টর ফিরোজ উল হাসান বলেন, দীর্ঘ ১৯ মাস পর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রাণ চাঞ্চল্য ফিরেছে। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধির পাশাপাশি রিকশাচালক ও দোকানদারদের স্বাস্থ্যসুরক্ষার দরকার। সামাজিক সংগঠন ইচ্ছা এই কাজটি করেছে। তারা রিকশাচালক ও দোকানদারদেরকে মাস্ক বিতরণ করেছে। অনেক অনেক ধন্যবাদ ইচ্ছা সংগঠনকে। ইচ্ছা'র জন্য অনেক শুভ কামনা রইল।

অধ্যাপক এ কে এম শাহনাওয়াজ বলেন, ইচ্ছা’কে অনেক অভিনন্দন ও ধন্যবাদ তারা এই সময় মহৎ কাজ করেছে। রিকশাওয়ালাদের মাস্ক বিতরণ করেছে,তবে এই সুন্দর কাজের সঙ্গে তরুণদের অনুরোধ করব, তারা যাতে ক্যাম্পাসের সবাইকে মাক্স পরায় উৎসাহ সৃষ্টি করে।

টিএসসির পরিচালক ও ইচ্ছা’র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলমগীর কবির বলেন, ইচ্ছা সংগঠনকে অনেক ধন্যবাদ। তারা কোভিড পরিস্থিতিতে রিকশাওয়ালাদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেছে ও মাস্ক পরার জন্য উৎসাহিত করেছে।

ইচ্ছা’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি নুরুজ্জামান শুভ বলেন, দীর্ঘ ১৯ মাস পর বিশ্ববিদ্যালয় খুলেছে। শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত ক্যাম্পাস। শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নানা ভাবে ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে যারা সহযোগিতা করে বিশেষভাবে রিকশাচালক, ক্ষুদ্র দোকানদার, চা বিক্রেতাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্য সুরক্ষাও জরুরী। তাই স্বাস্থ্য সচেতনতার অংশ হিসাবে তাদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে।

ইচ্ছা’র সভাপতি এস এন সোহেল রানা বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরকে স্বাস্থ্যবিধির আওতায় আনা হয়েছে। কিন্তু রিক্সাচালক, চা বিক্রেতা যারা আছেন তাদেরকে মাস্ক পরার জন্য আমরা ইচ্ছা সংগঠন থেকে মাস্ক বিতরণ করেছি। আশা করছি তারা মাস্ক ব্যবহার করে ক্যাম্পাসে চলাচল করবে। আমাদের এই উদ্যোগের পিছনে শ্রদ্ধেয় শিক্ষক ও ইচ্ছা’র সদস্যরা অনেক কষ্ট করেছেন। তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। বিশেষ করে “লিজেন্ড পাবলিকেশন্স” এর সঙ্গে যারা জড়িত তাদের প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা।

ইচ্ছা’র সাধারণ সম্পাদক স্বপ্নীল সাগর বলেন, দীর্ঘ ১৯ মাস পর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় খুলেছে। করোনা মহামারী পরিস্থিতিতে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধির আওতায় আনা হয়েছে। কিন্তু রিক্সাচালক, চা বিক্রেতা, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের স্বাস্থ্যবিধি ও মাস্ক বাধ্যতামূলক করার লক্ষ্যে ইচ্ছা’র পক্ষ থেকে তাদের মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। আশা করি সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্যাম্পাসে যাতায়াত করবে। আমাদের ক্যাম্পাস, আমাদের সচেতনতাই পারে করোনা প্রতিরোধ করতে।

এ সময় ইচ্ছা’র সহ-সভাপতি জিল্লুর রহমান রিয়াদ, সহ-অর্থ সম্পাদক মো. শাহ আলম, সহ-অর্থ সম্পাদক জাকিয়া সুলতানা পিংকি, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শেখ শাহরিয়ার পারভেজ শাওন, অনুষ্ঠান সমন্বয় সম্পাদক, শাহজালাল আহমেদ আকাশসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

ওডি/নিমি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড