• বুধবার, ০৩ জুন ২০২০, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইবির প্রধান প্রকৌশলীকে হুমকি, নিরাপত্তা চেয়ে থানায় জিডি

  ইবি প্রতিনিধি

১৮ মার্চ ২০২০, ২১:৩৬
ইবি
ইবির ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী আলিমুজ্জামান টুটুল (ছবি : সংগৃহীত)

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী আলিমুজ্জামান টুটুল।  

বুধবার (১৮ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে ইবি থানায় এ জিডি করেন তিনি।

জানা যায়, ইবির ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী আলিমুজ্জামান টুটুলকে বেশ কিছুদিন যাবত বিভিন্ন সময়ে অচেনা নম্বর থেকে মেগা প্রকল্প পাইয়ে দেওয়ার জন্য বলা হচ্ছে। এসব প্রকল্পের কাজ না পাইয়ে দিলে তার এবং তার সন্তানের ক্ষতি হয়ে যাবে বলেও এসব নম্বর থেকে তাকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে ইবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আরিফ জানান, বিভিন্ন লোক তাকে (টুটুল) ভয়ভীতি দেখাচ্ছে মর্মে ইঞ্জিনিয়ার টুটুল আজ (বুধবার) একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। জিডি নম্বর- ৬৫৭।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের অবকাঠামোগত উন্নয়নে বর্তমানে ৫৩৭ কোটি টাকার মেগা প্রকল্প চলছে। ৩০ মার্চ (সোমবার) এবং ৬ এপ্রিল (সোমবার) ৫৩ কোটি টাকা করে ১০৬ কোটি টাকার আরও দুটি দরপত্র খোলা হবে। এ দরপত্রের মধ্যে একটি দরপত্র ঢাকার একটি সংগঠনকে পাইয়ে দেওয়ার জন্য তাকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এজন্য সোমবার (১৬ মার্চ) রাতে আলীমুজ্জামান টুটুল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের আইডিতে একটি স্ট্যাটাস দেন। এতে তিনি লিখেন, ‘ইবিতে আর চাকরি করা হলো না আমার। রিজাইন করব, ইনশাআল্লাহ।’

এ দিকে জিডি সূত্রে জানা যায়, গত ১৫ দিন যাবত বিভিন্ন সময় তাকে বিভিন্ন অচেনা নম্বর থেকে মেগা প্রকল্পের কাজ পাইয়ে না দিলে সন্তানের ক্ষতি হয়ে যাবে বলে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। তিনি অপমানিত হবেন, তার বিরুদ্ধে পত্রিকায় বিভিন্ন খারাপ কিছু লিখে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার কথাও বলে তারা। এছাড়া অতীতের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তার বিরুদ্ধে মামলার হুমকি দেওয়া হয়। 
জিডিতে আরও উল্লেখ রয়েছে, গত কয়েক মাস যাবত বিভিন্ন মেয়েদের নম্বর দিয়ে তাকে ফোন করে এবং মেসেঞ্জারে বিভিন্ন টেক্সট দিয়ে তাকে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এতে মানসিকভাবে খুবই ভীত তিনি।

এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী আলীমুজ্জামান টুটুলকে একাধিকবার মুঠোফোনে কল করেও তাকে পাওয়া যায়নি।  

আরও পড়ুন : বাসা থেকে কাজ করার অনুমতি পেয়েছে ঢাবির শিক্ষক-কর্মকর্তারা

এ দিকে এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। অধ্যাপক ড. কাজী আখতার হোসেনকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. হালিমা খাতুন ও আইকিউএসির পরিচালক অধ্যাপক ড. কে এম আব্দুস সোবহান। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী জানান, ইতোমধ্যে ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ওডি/এমআরকে

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড