• বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ইবি রিপোর্টার্স ইউনিটির ১ম বর্ষপূর্তি উদযাপন

  ইবি প্রতিনিধি

১৯ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৪১
ইবি
কেক কেটে ইবি রিপোর্টার্স ইউনিটির ১ম বর্ষপূর্তি উদযাপন (ছবি : দৈনিক অধিকার)

নানা আয়োজনে উৎসবমুখর পরিবেশে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) রিপোর্টার্স ইউনিটির ১ম বর্ষপূর্তি উদযাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে সোমবার (১৮ নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে বিকাল ৪টায় ‘মুক্তিযুদ্ধে সাংবাদিকদের ভূমিকা ও বর্তমান প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. হারুন-উর-রশিদ আসকারী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, পাকবাহিনীর নির্মম অত্যাচারের কাহিনি বিশ্ববাসীর নিকট লুকিয়ে রাখার জন্য সাংবাদিকতার ওপর অনেক কড়া বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছিল। দৈনিক জনতা, দৈনিক ইত্তফাক, দৈনিক সংবাদের মতো পত্রিকাকে পাকিস্তানি শাসকদের প্রত্যক্ষ মদদে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে সাড়ে সাত কোটি বাঙালির প্রাণের যে আন্দোলন সে আন্দোলনকে ভুলভাবে ব্যাখ্যা করার জন্য বেশ কিছু হলুদ সাংবাদিককে তারা ক্রিয়াশীল রেখেছিল। যারা সত্যিকার অর্থে দেশপ্রেমিক সাংবাদিক তাদের অনেক নিগ্রহ ও হত্যার শিকার হতে হয়েছে।

তিনি বলেন, সৎ ও সাহসী সাংবাদিকতার পথ কোনোভাবেই রুদ্ধ করা যায় না। আমরা দেখেছি, দেশের মাটিতে না হলেও, বিদেশের মাটিতে গড়ে উঠেছিল স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র। মহান মুক্তিযুদ্ধে সংবাদপত্র ও সাংবাদিকদের ভূমিকা বর্তমান সময়ের সাংবাদিকদের জানার দরকার আছে।

ছবি

আনন্দ শোভাযাত্রা (ছবি : দৈনিক অধিকার)

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি উপ-উপাচার্য ড. মো. শাহিনুর রহমান বলেন, ২৫ মার্চ কালো রাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গ্রেফতারের পর তার অবর্তমানে কলম হাতে যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছিলেন তারই হাতে তৈরি সাংবাদিকরা।

অপর বিশেষ অতিথি কোষাধ্যক্ষ ড. মো. সেলিম তোহা বলেন, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে সাংবাদিকরা লেখনীর মাধ্যমে বিশ্ববাসীর কাছে মুক্তিযুদ্ধের যৌক্তিকতা তুলে ধরতে পেরেছিলেন এবং মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে বিশ্বজনমত গড়ে তুলতে পেরেছিলেন।

আলোচনা সভায় বক্তব্য প্রদান করেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস.এম আব্দুল লতিফ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. নাসিম বানু, সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক ড. মো. মাহবুবর রহমান, ছাত্র-উপদেষ্টা ও প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্মণ।

ইবি রিপোর্টার্স ইউনিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আবু সালেহ শামীমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা সঞ্চালনায় ছিলেন- ইউনিটির সদস্য ফারহানা নওশীন তিতলী ও মারিয়া জামান এশা।

এর আগে ওইদিন বেলা ৩টায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটি অফিস থেকে আনন্দ শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। আনন্দ শোভাযাত্রার পর ১ম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে কেক কাটা হয়।

ওডি/আরএআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড