• রোববার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯  |  
  • বেটা ভার্সন
sonargao

হাবিপ্রবিতে দিনের বেলাতে কয়েল দিয়েও মশা দূর করা যাচ্ছে না!

  মাসুদ রানা,হাবিপ্রবি:

০৮ আগস্ট ২০২২, ১৫:২৪
হাবিপ্রবি ক্যাম্পাসে বেড়েছে মশার উপদ্রব

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি) ক্যাম্পাসে সাম্প্রতিক সময়ে মশার উপদ্রব উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। দিনের বেলাতেই ক্যাম্পাসজুড়ে মাত্রাতিরিক্ত মশার উপদ্রব দেখা যাচ্ছে। সন্ধ্যার পর বোট্যানিক্যাল গার্ডেন, শহীদ মিনার চত্ত্বর, লাইব্রেরী চত্ত্বরসহ সব জায়গায় ঝাঁকে ঝাঁকে উড়ছে মশা।

ফলে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় গ্রুপ স্ট্যাডি, বিভিন্ন সংগঠনের সাধারণ সভায় অংশ নিতে গিয়ে দুঃসহ যন্ত্রণার মুখে পড়ছেন। এতে পড়াশোনাসহ বিভিন্ন সাংগঠনিক কাজের ব্যাঘাত ঘটছে বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের। ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গুসহ মশাবাহিত বিভিন্ন রোগের আতঙ্কে রয়েছেন শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, ক্যাম্পাস ও হলের আশপাশের ঝোঁপঝাড়, জঙ্গল, ড্রেনগুলো নিয়মিত পরিষ্কার না করায় মশার উপদ্রব বৃদ্ধি পেয়েছে। তারা দ্রুত সময়ের মধ্যে মশা নিধনের জন্য প্রশাসনের নিকট দাবি জানিয়েছে।

সরজমিনে দেখা যায়,বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ রাসেল হলের পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেন তৈরির কাজে নিয়োজিত বিপুল চন্দ্র রায় ও মিল্টন চন্দ্র রায় নামের দুইজন শ্রমিক দিনের বেলায় কয়েল জ্বালিয়ে কাজ করছে। তারা বলেন, মশার অত্যাচারে দিনের বেলায় কাজ করা প্রায় অসম্ভব। এমন মশা আগে দেখি নাই ,কয়েল জ্বালিয়েও মশা তাড়ানো যাচ্ছে না।

ভেটিরিনারি ও এ্যানিমেল সাইন্স অনুষদের শিক্ষার্থী রুহুল আমিন বলেন, ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের বসার একমাত্র জায়গা টিএসসি। কিন্তু এত শিক্ষার্থীদের জন্য একটা মাত্র ফ্লোর বরাদ্দ। সেখানে জায়গা পাওয়া অনেক কঠিন। এজন্য বিভিন্ন কাজে ক্যাম্পাসের খোলা জায়গায় আমাদের বসতে হয়। কিন্তু সেখানেও মশার জন্য শান্তি নেই। নামমাত্র মাঝে মাঝে মশানিধণ কর্মসূচি দেখা যায়, কিন্তু কোন কাজের নয়।

মশা নিধনের দায়িত্বে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খামার শাখার ডেপুটি চীফ ফার্ম সুপারিনটেনডেন্ট ড. এস. এইচ. এম গোলাম সরওয়ার জানান, আমাদের কাছে মশানিধনের জন্য ৭ বছর পুরোনো একটি ফগার মেশিন রয়েছে। একজন কর্মচারী ১৩ দিন পর পর বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক আবাসিক এলাকায় এই মেশিনের সাহায্যে মশা নিধনের কাজে নিয়োজিত রয়েছে। কিন্তু মশার যে জীবনচক্র সে অনুযায়ী এই মেশিন দিয়ে শুধু এডাল্ট মশাই নিধন সম্ভব, কিন্তু ডিম, লার্ভা, পিউপা এগুলো নিধন সম্ভব নয়। তবে এগুলোর উৎস ড্রেন গুলোতে ঢাকনা এবং রেগুলার পরিস্কার না করার জন্য উপদ্রব কমতেছে না। আমরা উপাচার্য স্যারের নির্দেশনায় যথাসাধ্য চেষ্টা করছি মশা নিধনের।

আপনার ক্যাম্পাসের নানা ঘটনা, আয়োজন/ অসন্তোষ সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড