• সোমবার, ০১ জুন ২০২০, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

‘প্যাকেজ’ বাস্তবায়নে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিশেষ তদারকি

  অর্থ-বাণিজ্য ডেস্ক

০৯ এপ্রিল ২০২০, ১০:২৪
কেন্দ্রীয় ব্যাংক
কেন্দ্রীয় ব্যাংক (ফাইল ফটো)

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে দেশের অর্থনীতির নেতিবাচক প্রভাব মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত ৫ দফা প্যাকেজ বাস্তবায়নে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর সক্ষমতা বাড়ানো হবে। এ লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে ব্যাংকগুলোতে টাকার প্রবাহ ও ঋণ বিতরণের ক্ষমতা বাড়ানো হবে। কেননা প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ৫ প্যাকেজ বাস্তবায়ন করতে ব্যাংকগুলোকে বেশি মাত্রায় ঋণ বিতরণ করতে হবে। একই সঙ্গে ব্যাংকগুলোর তারল্য সংকট মেটাতে টাকার প্রবাহ বাড়াতে হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্র জানায়, করোনার প্রভাব মোকাবেলার জন্য সরকার যেসব প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সেগুলো ব্যাংকিং খাতনির্ভর। এর বাইরেও কেন্দ্রীয ব্যাংক থেকে নানাভাবে দেশের বাণিজ্য ও উৎপাদন খাতকে আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে। এসব কারণে ব্যাংকগুলোতে টাকার প্রবাহ বাড়াতে বহুমুখী উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। 

এর মধ্যে রয়েছে, ব্যাংকগুলোর চাহিদা অনুযায়ী বৈদেশিক মুদ্রার জোগান, সরকারি ট্রেজারি বিল ও বন্ড কেনার বিপরীতে আটকে থাকা অর্থ ছাড়, বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে প্রয়োজনে অর্থের জোগান, বৈদেশিক উৎস থেকে ব্যাংকগুলোর অর্থ সংগ্রহের বিধি শিথিল করা, বৈদেশিক মুদ্রা কেন্দ্রীয় ব্যাংকে বিক্রি করে নগদ অর্থ নিতে পারবে। এছাড়াও এক ব্যাংক অন্য ব্যাংক থেকে আমানত বা ধার নেয়া, বিধিবদ্ধ আমানত (এসএলআর) হিসাবে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে জমা অর্থ কিছুটা ছাড় করতে এর হার কমানো, সেকেন্ডারি বন্ড মার্কেট থেকে অর্থ সংগ্রহ করতে পারবে। এর বাইরে ব্যাংকগুলো তাদের শেয়ার বিক্রি করেও অর্থ সংগ্রহ করতে পারবে।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেন, প্যাকেজটি পুরোপুরি ব্যাংকনির্ভর হয়ে গেছে। এতে ব্যাংকের ওপর চাপ বাড়বে। এটি বাস্তবায়ন করতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ও সরকারকে তদারকি ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে। তা না হলে ব্যাংকগুলো ঋণ বিতরণে উৎসাহিত হবে না।

সূত্র জানায়, করোনার প্রভাবে গত প্রায় এক মাস ধরে দেশের আমদানি-রফতানি কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে। আমদানি করায় ইতোমধ্যে দেশে শিল্পের কাঁচামালের সংকট দেখা দিয়েছে। এদিকে রফতানি আয় ও প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্স কমার কারণে বৈদেশিক মুদ্রার প্রবাহ কমেছে। আগের এলসির দেনা এখন শোধ করতে হচ্ছে। ফলে ব্যাংকগুলোতে বৈদেশিক মুদ্রার চাহিদা বেড়েছে। ব্যাংকে এখন চাহিদা অনুযায়ী বৈদেশিক মুদ্রার জোগান না থাকায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে বৈদেশিক মুদ্রার জোগান দেয়া হচ্ছে। এতে ব্যাংকে বৈদেশিক মুদ্রার সরবরাহ বাড়বে।

আরও পড়ুন রাজধানীতে আরও ১২ এলাকা লকডাউন

গত রোববার প্রধানমন্ত্রী ৫টি প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। এর মধ্যে দুটি প্যাকেজের আওতায় ৫০ কোটি টাকার ঋণ দেবে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো। আরও দুটি প্যাকেজের আওতায় ১৫০ কোটি ডলারের সমপরিমাণ ১২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকা ও ৫ হাজার কোটি টাকা দেবে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড