• মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন

রাজশাহীতে নিরাপত্তা কর্মীর হামলার শিকার সাংবাদিক

  রাজশাহী প্রতিনিধি

০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৫:১৩
হামলার শিকার
থিম ওমর প্লাজা ইনসেটে কালের কণ্ঠের রাজশাহী ব্যুরো প্রধান রফিকুল ইসলামে (ছবি : দৈনিক অধিকার)

হত্যার উদ্দেশ্যে দৈনিক কালের কণ্ঠ রাজশাহী ব্যুরো প্রধান রফিকুল ইসলামের ওপরে হামলা চালিয়েছে থিম ওমর প্লাজার নিরাপত্তা কর্মীরা। 

সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে রাজশাহী নগরীর নিউ মার্কেট সংলগ্ন থিম ওমর প্লাজার সামনে এই ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় রাজশাহীর সাংবাদিক নেতারা বলেন, গত সপ্তাহে থিম ওমর প্লাজার মালিক ওমর ফারুক চৌধুরী এমপি বেশ কয়েকজন সাংবাদিকের সামনে সাংবাদিক রফিকুল ইসলামকে হত্যা ও গুম করে দেওয়ার হুমকি দেয়। এই হামলার ঘটনায় সাংবাদিক নেতারা মনে করছেন, এমপি ফারুক চৌধুরীর হুকুমেই এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে তার কর্মচারীরা। 

এই হামলার ঘটনার পরে রাজশাহীতে কর্মরত সাংবাদিকরা পাঁচজন হামলাকারীকে থিম ওমর প্লাজার ভেতরে আটকে রাখে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে হামলাকারীদের আটক করে শিলোইল পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে যায়। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বর্তমানে পুলিশ ফাঁড়ির সামনে অবস্থান করছেন সাংবাদিকরা। 

হামলাকারীরা হলেন- নগরীর ষষ্ঠীতলা এলাকার সেকেন্দার আলীর ছেলে সাইদ আলী (২৮), কাটাখালীর মাসকাটাদিঘী এলাকার আলতাফ হোসেনের ছেলে মুন্না (২৭), তেরখাদিয়া এলাকার (ভাড়াটিয়া) মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে আবদুল হাকিম (৪৮), পবার মথুরা এলাকার মতিউর রহমানের ছেলে নাহিদ (২০), বহরমপুর এলাকার গনেষের ছেলে শ্রী সানি (২২) ও আব্দুল হাকিম (৪৮)। 

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে শিলোইল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মাহফুজুর রহমান জানান, সকালে মাছ কেনার জন্য থিম ওমর প্লাজার মূল গেট থেকে একটু দূরে মোটরসাইকেল রাখেন সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম। এ সময় একজন সিকিউরিটি গার্ড এসে সাংবাদিক রফিকুল ইসলামের মোটরসাইকেলের ওপরে রাখা হেলমেটটি নিয়ে যায়। পরে রফিকুলকে বলেন, ‘এখানে আই। নিয়ে যা তোর হেলমেট।’ এক পর্যায়ে এক সিকিউরিটি গার্ড মুন্না এগিয়ে আসে রফিকুলের দিকে। সিকিউরিটি গার্ড বলে, ‘এখানে গাড়ি রাখা যাবে না।’ রফিকুল বলে, ‘মাছ কেনা হলেই আমি চলে যাব।’ সিকিউরিটি গার্ড বলে, ‘এটা তোর বাবার জায়গা? যে এখানে গাড়ি রেখেছিস বলেই এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে তারা।’ 

এ সময় কয়েকজন মাছ ব্যবসায়ী ও পথচারীরা এসে রফিকুলকে উদ্ধার করেন। আবার সিকিউরিটি গার্ড সানি, হাকিম ও নাহিদ এসে লাঠি দিয়ে মারধর শুরু করে। এই হামলার ঘটনায় সাংবাদিক নেতারা মনে করছেন, এমপি ফারুক চৌধুরী এই হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। তা না হলে একটি মোটরসাইকেল রাখাকে নিয়ে এই ধরনের মামলার ঘটনা ঘটার কথা না। এই হামলায় পুরোপুরি ফারুক চৌধুরীর হুকুম রয়েছে। তিনি হুকুম দিয়ে থিম ওমর প্লাজার কয়েকজন কর্মচারীদের দিয়ে হামলা চালিয়েছেন। 

স্থানীয়রা জানায়, থিম ওমর প্লাজার ফুটপাত দখল করে তৈরি করা হয়েছে মার্কেটটি। ফুটপাত বা রাস্তার পাশে কেউ গাড়ি রাখলে থিম ওমর প্লাজার সিকিউরিটি গার্ডরা দাঁড়াতে দেয় না। প্রায় সময় গার্ডরা রিকশা চালকদের মারধর করে। কেউ কিছু বললে, সিকিউরিটি গার্ডরা বলে, ‘থিম ওমর প্লাজা এমপির। এই রাস্তা ও ফুটপাত এমপির কেনা। কেউ কিছু বলতে পারবে না।

এ বিষয়ে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাজী শাহেদ বলেন, কালের কণ্ঠের সাংবাদিক রফিকুল ইসলামের ওপরে পরিকল্পিতভাবে হামলা চালানো হয়েছে। এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে হামলাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। রাজশাহী সাংবাদিক সমাজের পক্ষ থেকে এই হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায়। 

ওডি/এএসএল

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড