• বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মেহেরপুরে পাট জাগ দেওয়ার দাবিতে চাষিদের বিক্ষোভ

  মেহেরপুর প্রতিনিধি

০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২০:২৭
বিক্ষোভ
বিক্ষোভ করেছেন পাট চাষিরা (ছবি : দৈনিক অধিকার)

মেহেরপুরে পাট জাগ দেওয়ার জলাশয় না পেয়ে ভৈরব নদে পাট জাগ দেওয়ার সুযোগের দাবিতে পাট নিয়ে বিক্ষোভ করেছেন পাট চাষিরা। 

বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরের দিকে মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার দারিয়াপুর ও বিদ্যাধরপুর গ্রামের শতাধিক চাষি মেহেরপুর কোট মোড় এলাকায় এ বিক্ষোভ করেন।

পরে জেলা প্রশাসক মো. আতাউল গণির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ভৈরব নদে পাট পচানোর সুযোগের দাবি জানান। জেলা প্রশাসক কৃষকদের আশ্বস্ত করেন ভৈরব নদকে এবং আপনাদের কেউ বাঁচতে হবে। জেলা প্রশাসকের আশ্বাসে কৃষকরা বিক্ষোভ বন্ধ করে ফিরে যায়। চাষিদের দাবি তারা পাট পচাতে না পারার কারণে জমিতেই পাট শুকিয়ে যাচ্ছে। 

এজন্য কয়েকশো পাট চাষি মিলে জেলা প্রশাসকের কাছে ভৈরব নদে পাট পচানোর সুযোগের দাবিতে এসেছেন। 

পাট চাষি মতিয়ার রহমান জানান, তিনি তিন বিঘা জমিতে পাট চাষ করেছেন। কিন্তু পানির অভাবে পাট পচাতে পারছেন না। আর কয়েকদিনের মধ্যে পাট কাটতে না পারলে শুকিয়ে খড়িতে পরিণত হবে।

উল্লেখ, পানির অভাবে পাট পচাতে না পেরে চরম বিপাকে পড়েছেন মেহেরপুরের পাট চাষিরা। উন্মুক্ত জলাশয় না থাকায় মাছ চাষের পুকুর, ডোবা অথবা নিচু কোনো জায়গা ভাড়া নিয়ে তাতে শ্যালো ইঞ্জিনের সাহায্যে পানি জমিয়ে পাট পচাতে কৃষকদের বাড়তি অর্থ গুণতে হচ্ছে। পাশাপাশি জাগ দেওয়ার সময় পাটের আঁটি ডুবাতে কাদামাটি ব্যবহার করায় পাটের রং হচ্ছে কালো।

ফলে পাটের বাজার দরও কম পাচ্ছেন চাষি। ফলে চাষিরা এবারও পাট চাষ করে বিপাকে পড়েছেন। মেহেরপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের হিসাব মতে, জেলায় ২৯ হাজার হেক্টর জমিতে ৮৮ হাজার মেট্রিক টন পাট উৎপাদন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

একসময় জেলার ভৈরব নদ, কাজলা, ছেউটিয়া নদীতে প্রচুর পানি থাকত। চাষিরা এসব নদ- নদীর পানিতে পাট জাগ দিত। তাতে পাটের রং হতো সোনালী। খরচও হতো অনেক কম। 

পাশাপাশি অনেক খাল-বিল ছিল যেখানে পাট জাগ দেওয়া হতো। কিন্তু বর্তমানে পর্যাপ্ত বৃষ্টি নেই। যেসব পুকুর আছে সেখানে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে মাছ চাষ হচ্ছে। ফলে পাট পচানো নিয়ে জটিলতা পিছু ছাড়ছে না চাষিদের। মেহেরপুরে বর্তমানে পাট বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ৬শ টাকা মণ দরে। 

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মেজবাহুল হক জানান, মুক্ত জলাশয়ে পাট পচানো নিষিদ্ধ করা হয়েছে। জেলার ভৈরব নদে পাট পচানো হলে পানি দূষিত হয়ে মাছ মরে যাবে। হারিয়ে যাবে দেশি মাছ। জেলার ভৈরব নদে পাট জাগ দেওয়া নিষিদ্ধ করা হয়েছে মাছের চাহিদা মেটাতে।  

ওডি/এএসএল

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড