• রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১ পৌষ ১৪২৬  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

নিহত বর-কনেসহ হতাহত ১৬ জনের নাম-পরিচয়

  সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

১৬ জুলাই ২০১৯, ০১:৪২
বিক্ষোভ
দুর্ঘটনাস্থলে স্থানীয়দের বিক্ষোভ (ছবি : সংগৃহীত)

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলায় ট্রেন ও বিয়ের যাত্রী বহনকারী মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে বর-কনেসহ ১০ জন নিহত ও ৬ জন আহত হয়েছেন।

সোমবার (১৫ জুলাই) সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় ঢাকা-রাজশাহী রেলপথের উল্লাপাড়ার পঞ্চক্রোশী ইউপির শাহী কোলায় অরক্ষিত রেল ক্রসিংয়ে দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহতরা হলেন- বর জেলা শহরের কান্দাপাড়া গ্রামের আলতাফ হোসেনের একমাত্র ছেলে মো. রাজন (২৫), কনে উল্লাপাড়া পৌর শহরের এনায়েতপুর গুচ্ছ গ্রামের আব্দুল গফুর শেখের মেয়ে সুমাইয়া খাতুন (১৯), সয়াধানগড়া সুরুজ শেখের ছেলে সবুজ (২১), রামগাতী গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের ছেলে আব্দুস সামাদ (৫৫) ও তার ছেলে শাকিল হোসেন (২১), সয়াগোবিন্দ মিলন মোড়ের মৃত একরামুলের ছেলে মাইক্রোবাসের চালক স্বাধীন (৪০) ও দিয়ারধানগড়া আলতাফ হোসেনর ছেলে শরীফ (২৬), কালিয়া হরিপুর চুনিয়াহাটির মৃত মহির উদ্দিনের ছেলে ভাষা শেখ (৫৫)। বাকী দুই জনের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

আহতরা হলেন- নাদেম তালুকদার (১৮), বায়েজিদ (১৮), নিরব তালুকদার (১৪), সুমন (২৭), নাজমুল আহসান (২৫) ও ইমরান (২০)। তাদের সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুর্ঘটনার পর ট্রেনটি প্রায় দেড় ঘণ্টা আটকা পড়ে থাকে।

উল্লাপাড়া ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আব্দুল হামিদ জানান, বর যাত্রীবাহী একটি মাইক্রোবাস উল্লাপাড়ার গুচ্ছ গ্রামে বিয়ে শেষে কান্দাপাড়ায় যাওয়ার পথে অরক্ষিত রেল ক্রসিং পার হওয়ার সময় রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ সময় ট্রেনটি মাইক্রোবাসকে অন্তত ২৫০ গজ ঠেলে নিয়ে গিয়ে থেমে যায়। এতে মাইক্রোবাসটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। মাইক্রোবাসের মধ্যে থাকা বর-কনেসহ ১০ জন ঘটনাস্থলেই মারা যান ও ৬ জন আহত হন। সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। নিহতদের মধ্যে নয় জনের লাশ জিআরপি থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এক জনের লাশ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে।

উল্লাপাড়া থানার ওসি দেওয়ান কৌশিক আহমেদ জানান, দীর্ঘ দিন ধরে ওই রেলক্রসিং অরক্ষিত। স্থানীয়রা বিভিন্ন সময় দাবি জানানোর পরও কোনো কাজ হয়নি। দুর্ঘটনার পর হাজারো মানুষ দ্রত রেলক্রসিং গেট নির্মাণের দাবিতে ট্রেনটি আটকে দেন। পরে এক মাসের মধ্যে রেলগেট নির্মাণের আশ্বাস দেওয়া হলে ট্রেনটি ছেড়ে দেওয়া হয়।

নিহত বর রাজনের বোন বলেন, চোখের সামনে ট্রেনটি মাইক্রোবাসকে ধাক্কা দিল। মাইক্রোবাসকে ঠেলে নিয়ে গেল অনেক দূর। গাড়ির ভেতর থেকে সবাই বাঁচার জন্য চিৎকার করছিল। চোখের সামনে সব শেষ হয়ে গেল।

জিআরপি থানার ওসি জানান, নিহত নয়জনের লাশ উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ জিআরপি থানায় নিয়ে নেওয়া হচ্ছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ওডি/এমআর 

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড