• মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ৬ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

গোপালগঞ্জে কাজ না করেই ৪ প্রকল্পের টাকা উত্তোলন

  কোটালীপাড়া প্রতিনিধি, গোপালগঞ্জ

১২ জুলাই ২০১৯, ২০:২১
গোপালগঞ্জ
ছবি : জেলার ম্যাপ

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় জুন ক্লোজিংয়ের নামে চারটি প্রকল্পের কাজ না করেই আট লাখ টাকা উত্তোলন করা হয়েছে। জুলাই মাসের ১১ দিন অতিক্রান্ত হলেও এসব প্রকল্পের কাজ এখনও শুরু হয়নি।

কোটালীপাড়া উপজেলার মৎস্য বিভাগের তিনটি ও প্রাণিসম্পদ বিভাগের একটি প্রকল্প থেকে ৩০ জুনের আগেই এসব টাকা উত্তোলন করা হয়।

প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সদস্যরা টাকা উত্তোলনের কথা স্বীকার করে ২-১ দিনের মধ্যেই প্রকল্পের কাজ শুরু করার কথা বলেছেন। তবে এসব কাজ ৩০ জুনের মধ্যে সম্পন্ন করার কথা ছিল।

কোটালীপাড়া উপজেলা পরিষদ কার্যালয় জানিয়েছে, গত অর্থ বছরের জুনের মাঝামাঝিতে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় উপজেলার পিঞ্জুরী ইউনিয়নের ফুলবাড়ী গ্রামে চাইটখালী খালে মৎস্য অভয়াশ্রম নির্মাণ, সাদুল্লাহপুর ইউনিয়নের লাটেঙ্গা বিলে কার্প জাতীয় মাছের পোনা অবমুক্ত, আমতলী ইউনিয়নের সিকির বাজার মৎস্য অভয়াশ্রম সংস্কার ও পিঞ্জুরী ইউনিয়নের সোনাখালী তারাইল গ্রামে গরু মোটাতাজাকরণ এবং ক্ষুরা রোগে ভ্যাক্সিনেশন ক্যাম্পেইন প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। প্রতিটি প্রকল্পের প্রকল্প ব্যয় ধরা হয় ২ লাখ টাকা।

আমতলী সিকির বাজার মৎস্য অভয়াশ্রমের প্রকল্প সভাপতি বিপ্লব চক্রবর্ত্তী টাকা উত্তোলনের কথা স্বীকার করে বলেন, আমতলী ইউনিয়নের সিকির বাজার মৎস্য অভয়াশ্রমের সংস্কার কাজ দ্রুত শুরু করেই অল্প দিনের মধ্যে শেষ করা হবে।

ক্ষুরা রোগে ভ্যাক্সিনেশন ক্যাম্পেইন প্রকল্পের সভাপতি ইলিয়াস খান বলেন, ৩০ জুনের আগেই টাকা উত্তোলন করেছি। ভ্যাক্সিন কিনতে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাকে ৫০ হাজার টাকা দিয়েছি। ২-১ দিনের মধ্যেই আমরা ভ্যাক্সিনেশন শুরু করব।

কোটালীপাড়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা পলাশ কুমার দাশ বলেন, আমরা ৫০ হাজার টাকা পেয়েছি। দ্রুতই এ টাকা দিয়ে ভ্যাক্সিন কিনে আমরা ভ্যাক্সিনেশনের কাজ শুরু করব।

আমতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হান্নান শেখ বলেন, আমার ইউনিয়নের অভয়াশ্রম প্রকল্প সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না। ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে আমি উপজেলা পরিষদের সদস্য। এ চারটি প্রকল্পের উপজেলা পরিষদের সভায় আমিসহ ১৩ জন সদস্য স্বাক্ষর করিনি। সদস্যদের স্বাক্ষর ছাড়া কীভাবে প্রকল্প পাশ হলো তা আমার বোধগম্য নয়।

কোটালীপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মাহফুজুর রহমান টাকা উত্তোলনের কথা স্বীকার করে বলেন, কোনো প্রকল্পের কাজ শেষ হয়েছে, কোনো প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে বলে আমাকে জানানো হয়েছে। টাকা উত্তোলনের জন্য পৃথক কমিটি রয়েছে। তারাই এ টাকা উত্তোলন করেছেন।

ওডি/এমবি

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড