কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের সফলতার ১০ মাস

প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর ২০১৮, ১৫:৪২

  ভোলা প্রতিনিধি

দ্বীপ জেলা ভোলায় নদী পথে দস্যুদের হাত থেকে জেলেদের রক্ষা, চোরা চালান বন্ধ, বনজ সম্পদ রক্ষা, মা ইলিশ রক্ষা, জাটকা নিধন, তেলসহ অন্যান্য বিষয়ে দক্ষিণাঞ্চলের জেলাগুলোতে যথেষ্ট ভূমিকা রাখছে কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোন।

সূত্রে জানা গেছে, কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোন চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত ভোলাসহ দক্ষিণাঞ্চলের জেলাগুলোর নদীতে অভিযান চালিয়ে ২৭ জন ডাকাত, ২০ রাউন্ড তাজা গোলা, ৭টি শুটার গান, ৭টি সিঙ্গেল ব্যারেল গান, ৫টি পাইরোটেকনিক, ১১টি রামদা, ২টি দা-ছুরি, ১৭ জন অপহৃত জেলে এবং ২টি অপহৃত বোট উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে।

এ দিকে বনজ সম্পদ রক্ষায় ১৫৫ সিএফটি কেওড়া কাঠ, ৫০০ সিএফটি সুন্দরী কাঠ, ১২০ সিএফটি অবৈধ জ্বালানি কাঠ, ২টি হরিণের চামড়া, ২৪০ কেজি হাঙ্গরের শুটকি, ১ হাজার ২০০ লিটার হাঙ্গরের তেল, ৬৩০ সিএফটি গেওয়া কাঠ এবং ১৯ হাজার ৭২০ কেজি অবৈধ শামুক উদ্ধার করেছে। 

অপরদিকে তেলসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে ৪ হাজার ৮০ লিটার ডিজেল, ৪০০ লিটার লুবওয়েল, ২৩০ লিটার সয়াবিন, ২ হাজার ৭১০ লিটার পামওয়েল, ৪ বোতল বিদেশি মদ, ১২ কেজি ৮২৫ গ্রাম গাঁজা, ৩টি চিংড়ি রেনু বহনকারী ট্রাক, ৫৫২ পিস ইয়াবা, ৫ জন মাদক ব্যবসায়ী, ১৩টি মোবাইল, ৫টি ইঞ্জিনচালিত বোট, ৪ হাজার ৮০০ কেজি পলিথিন, ১ হাজার ৭৩০ কেজি অবৈধ ধান বীজ, ১টি বাল্কহেড, ৬টি ডেড বডি এবং ৪৬ লাখ ৩০ হাজার অনাদায়ী কর আদায় করতে সক্ষম হয়েছে। 

শুধু এ সব বিষয়ই নয়, কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের সদস্যরা জেলা প্রশাসনকেও যে কোনো প্রয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা করে আসছে। জেলা প্রশাসন ছাড়াও তারা নিজস্বভাবে ভোলাসহ দক্ষিণাঞ্চলের আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে কাজ করে যাচ্ছে। 

এ ব্যাপারে কোস্টগার্ড দক্ষিণ জোনের অপারেশন অফিসার লে. নুরুজ্জামান শেখ এর সাথে কথা হলে তিনি জানান, ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর পর্যন্ত চোরা চালান এবং অন্যান্য বিষয়ে যথেষ্ট ভূমিকা রেখেছে কোস্টগার্ড।

শুধু উল্লিখিত বিষয়সমূহ নয়, দেশের প্রয়োজনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে কোস্টগার্ড সর্বদা প্রস্তুত। অতীতে যেভাবে ভোলাসহ দক্ষিণাঞ্চলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে কাজ করেছে, ভবিষ্যতেও সেভাবে কাজ করে যাবে।