• শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

অবৈধভাবে ড্রেজার বসিয়ে বালু তুলছেন প্রভাবশালীরা

  রফিক খান, মানিকগঞ্জ

০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৫:১৭
অবৈধভাবে ড্রেজার বসিয়ে বালু তুলছেন প্রভাবশালীরা
অবৈধভাবে ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে (ছবি : অধিকার)

মানিকগঞ্জের সদর উপজেলার হাটিপাড়া ইউনিয়নের চর বংখুরী এলাকায় ইছামতী শাখা নদীতে ড্রেজার বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন চলছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সারা বছরই ড্রেজার বসিয়ে একটি বালু ব্যবসায়ী চক্র অবৈধভাবে বালু তুলে লক্ষ লক্ষ টাকার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

সারা বছর একই স্থান থেকে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনে ভাঙনের হুমকিতে পড়েছে কৃষি জমি, বসত-ভিটেসহ বিভিন্ন স্থাপনা। অবৈধভাবে বালু উত্তোলন স্থায়ীভাবে বন্ধ করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন স্থানীয়রা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার হাটিপাড়া ইউনিয়নের চর বংখুরী এলাকায় পদ্মায় ভাঙনের পর সেখানে জেগে উঠেছে চর। সেই চরে এখন বিভিন্ন ফসলও আবাদ হয়। গ্রামের পাশ দিয়েই বয়ে গেছে একটি ছোট নদী। স্থানীয়দের অনেকেই এটিকে ইছামতীর শাখা নদী বলে ডাকে। এই ইছামতীর শাখা নদীতেই সারা বছরেই ড্রেজার বসিয়ে বালু উঠিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার ব্যবসা-বাণিজ্য করছে একটি বালু ব্যবসায়ী চক্র। বালু ব্যবসায়ীরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার সাহস নেই বলে স্থানীয়রা জানান।

এখানে দূরত্ব অনুযায়ী প্রতিফুট বালুর মূল্য ধরা হয় ৫ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত। ড্রেজার দিয়ে বালু উঠিয়ে বাড়িঘর নির্মাণের জন্য ও বালু জমা করে বিভিন্ন এলাকায় মাহেন্দ্রা ট্রাক্টর ও ট্রলির মাধ্যমে বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করা হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে এই চরবংখুরী নদী থেকে ড্রেজার বসিয়ে বালু উঠিয়ে ব্যবসা করছে। প্রতিবাদ করার মত কেউ নেই। অনেক সময় দেখা যায় ড্রেজারের স্থানে কিছু লোকজন আসে, আবার কিছুক্ষণ পরে কথা বলে চলে যায়। যদি প্রশাসন দয়া করে এই অবৈধ ড্রেজার বন্ধ করে দেন এলাকাবাসী উপকৃত হবে বলে জানান তারা।

অবৈধভাবে ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করে ব্যবসা করছেন সদর উপজেলার হাটিপাড়া ইউনিয়নের চরবংখুরীর মিলন হোসেন ও রত্মাদিয়া এলাকার মনির মিয়া।

ড্রেজার ব্যবসায়ী মিলন হোসেন বলেন, আমরা যেটা করছি এটা অবৈধ। আমাদের ড্রেজার চালানোর কোন অনুমতি নেই। কিন্তু আশে পাশে যেভাবে আরও দু-চারটি ড্রেজার যেভাবে চলছে আমরাও একইভাবে ড্রেজার দিয়ে বালু উঠিয়ে ব্যবসা করছি।যদি প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিষেধ করা হয় আমরা ড্রেজার চালাবো না।

হাটিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার বিপ্লব হোসেন জানান, ড্রেজারটি রাতের বেলায় চলে দিনে বন্ধ করে রাখে। এর আগে হাটিপাড়া ভূমি অফিস থেকে লোকজন গিয়ে ড্রেজারটি বন্ধ করে দিয়েছিল। কিন্তু তারপরও এখনো ড্রেজার চলছে বলে তিনি জানান।

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জ্যোতিশ্বর পাল বলেন, আপনার মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারলাম। যদি কেউ অবৈধভাবে ড্রেজার বসিয়ে বালু উত্তোলন করে। খোঁজ-খবর নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক অধিকারকে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড